মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১০ আশ্বিন ১৪২৪, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

বাজছে ভোটের গান

প্রকাশিত : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫
  • রাজশাহীতে ভোট জ্বরে আক্রান্ত পাড়া মহল্লা

মামুন-অর-রশিদ, রাজশাহী ॥ পৌরসভা নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে প্রার্থীদের প্রচার ততই জমে উঠছে। এখন রীতিমত ভোটজ¦রে আক্রান্ত গ্রামের পাড়া মহল্লা আর মোড়ের বাজার। সবখানেই বাজছে ভোটের ‘গান’। নির্বাচনী এলাকার রাজপথ থেকে মেঠোপথ ছেয়ে গেছে প্রার্থীদের সাদা-কালো বাহারি সাইজের পোস্টারে। যেন পোস্টারের মালায় ছেয়ে গেছে সবখানে। রাতের কুয়াশায় পোস্টার ঝরে পড়লেও সকালে আবারও ঝুলানো হচ্ছে পোস্টার।

রাজশাহীর ১৩ পৌরসভার সবখানে এখন একই দৃশ্য। শহরের সীমানা ছাড়িয়ে পৌর এলাকায় পা বাড়ালেই সবার আগে চোখে পড়বে প্রার্থীদের পোস্টার। বৃহস্পতিবার রাজশাহী নগরীর উপকণ্ঠ পবা উপজেলার কাটাখালি ও নওহাটাসহ কয়েকটি পৌর এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে সবখানে পোস্টারে ছাওয়া। প্রার্থী সমর্থকদের হাতে হাতেও লিফলেট। সবাই ভোটের মাঠে সবশক্তি নিয়ে নেনে পড়েছেন। দুপুর গড়িয়ে বিকেল হতে না হতেই প্রার্থীর সমর্থকরা বেরিয়ে পড়ছেন সবখানে। বাড়ি বাড়ি ভোট প্রার্থনা করছেন শীতের তীব্রতা উপেক্ষা করে।

এবার প্রার্থীরা দিচ্ছেন নানা উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি। কোথাও কোথাও টাকার কারবারও শুরু হয়েছে। সারাদিন ভোটের প্রচার শেষে রাতের বেলায় পরের দিনের কর্মপন্থা নির্ধারণ করছেন। সকাল হলেই চলছে চায়ের কাপে ভোট গল্পের ঝড়। প্রচার পাগল মানুষের সংখ্যাও বাড়ছে। কেউ কেউ নিজেদের প্রার্থীর প্রচার চালাতে নিচ্ছেন নানান রকমের কৌশল।

কেউ ভ্যান, সাইকেল, রিকশার হাতলে পছন্দের প্রার্থীর সাদাকালো পোস্টার ঝুলিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন বাজার-ঘাট। কেউ বা মোটরসাইকেলের পেছনের রেজিস্ট্রেশন প্লেট ঢেকে ফেলেছেন পছন্দের প্রার্থীর পোস্টার দিয়ে।

পুঠিয়া ও কেশরহাট পৌরসভায় দেখা গেল এমন চিত্র। পছন্দের প্রার্থীর পোস্টার সাঁটিয়ে রেখেছেন মোটরসাইকেলের রেজিস্ট্রেশন প্লেটে। কেশরহাট পৌরসভার ভ্যানচালক আব্দুল আলিম প্রতীক বরাদ্দ শুরুর পর থেকে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পোস্টার লাগিয়ে রেখেছেন তার ভ্যানের সামনে। আব্দুল আলিম জানান, ম্যালা দিন পর ভুট জমিছে। মুজিবের টাইমত থ্যাকি আমলীগ করিত্তি। ভুটের সুমাই তাই লোকা (নৌকা) লিয়ে ঘুরিত্তি। তানোর পৌরসভায় ভটভটি চালক আকরাম হোসেনও তার ভ্যানের সামনে লাগিয়ে রেখেছেন ধানের শীষের পোস্টার। আকরাম হোসেন বলেন, ম্যালাদিন পর ধানের শীষের ভোট হচ্চে বা রে। তাই সাতে লিয়ে বেড়াচ্চি।

পৌরসভাগুলোতেও পোস্টারের ছড়াছড়ি। সমর্থকরা তাদের প্রার্থীদের নিয়ে যে যেমন করে পারছে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। বাগমারার ভবানীগঞ্জ পৌরসভায় বইছে ভোটের গরম হাওয়া। পৌর বাজার এলাকার চায়ের দোকানদার শমসের আলী বলেন, প্রার্থীর মানুষরা আসিচ্ছে আর পোস্টার মারি যাত্তে। হামার চায়ের দোকান পোস্টারে ভরে যাত্তে। হামার চায়ের বেচাও বাড়িত্তে।

এদিকে রাতদিন সমানে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্র্থরা। রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ জানান, দলীয়ভাবে নির্বাচনে নিজ দলের প্রার্থীদের জয়যুক্ত করতে সমানে কাজ করছেন। কখনও মাঠে আবার কখনও দূর থেকে প্রার্থী ও নেতাকর্মীদের উৎসাহ যোগাচ্ছেন। তিনি জেলার প্রায় উপজেলাতেই এবার দলীয় প্রার্থীদের ব্যাপারে জয়ের বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, নির্বাচন তো নির্বাচনই। এটিকে ছোট করে দেখার কোনও সুযোগ নেই। তাই দলের প্রার্থীদের পক্ষেই কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। দলের সব নেতাকর্মীকে একসঙ্গে নিজেদের মধ্যে বিভেদ ভুলে কাজ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন এই নেতা। বৃহস্পতিবার পবার নওহাটা বাজার এলাকায় আওয়ামী লীগ মেয়রপ্রার্থী আব্দুল বারী খানের নৌকা প্রতিকের পক্ষে গণসংযোগে দেখা গেলো আওয়ামী লীগ নেতাদের। সাবেক সংসদ সদস্য মেরাজ উদ্দিন মোল্লা, ভাইস চেয়ারম্যান এবং উপজেলা কৃষক লীগ সভাপতি মনসুর রহমানও সেখানে ছিলেন।

প্রকাশিত : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫

১৮/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

পৌর নির্বাচন-২০১৫



শীর্ষ সংবাদ: