মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১ আশ্বিন ১৪২৪, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

কৃষিক্ষেত্রে বিনিয়োগ হ্রাস পাচ্ছে

প্রকাশিত : ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫, ০৫:১২ পি. এম.

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দেশের কৃষিক্ষেত্রে অমূল পরিবর্তন ঘটেছে। তবে কৃষি উন্নয়নের তুলনায় কৃষকের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটে নি। আর টানা কয়েক বছর ধরে কৃষক তার উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে না। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও কৃষি ক্ষেত্রে বিনিয়োগ হ্রাস পেয়েছে। বৃহস্পতিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে রিসার্চ ইনিশিয়েটিভস্, বাংলাদেশ (রিইব) আয়োজিত ‘বাংলাদেশের কৃষি প্রশ্ন: কৃষকের প্রেক্ষিত’ শীর্ষক এক জাতীয় সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষি ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব শাইখ সিরাজ বলেন, দেশে কৃষির অমূল পরিবর্তন ঘটেছে। আমি ৩০ বছর ধরে কৃষিখাত কীভাবে এগুচ্ছে তা দেখছি। বিশ্ব চাহিদার প্রতি লক্ষ রেখে গ্রিন রেভ্যুলেশন হয়। আর কৃষির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় দেশের খাদ্য নিরপত্তা নিশ্চিত হয়েছে। তবে দেশে কৃষির যে উন্নয়ন ঘটেছে সে তুলনায় কৃষকের ভাগ্যের কোন পরিবর্তন হয় নি।

তিনি বলেন, বিশ্বব্যাপী কৃষিতে বিনিয়োগ ব্যাপকভাবে কমে যাচ্ছে। বাংলাদেশেও রাষ্ট্রীয়ভাবে কৃষিতে বিনিয়োগ হ্রাস পেয়েছে। অনেকেই সমবায় কৃষি ব্যবস্থার কথা বলেন। তবে আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলব বাংলাদেশে কোন দিন সমবায় পদ্ধতি সফল হবে না। তাই পারিবারিক কৃষিকে টিকিয়ে রেখে কৃষিতে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির প্রসার ঘটাতে হবে।

তিনি আরও বলেন, ফসলের বীজের প্যাকেটে অঙ্গীকারনামা থাকতে হবে। বীজ থেকে চারা না হলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ক্ষতিপূরণ দিতে বাধ্য থাকবে; এমন নিয়ম করতে হবে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধপাঠকালে রিইব প্রকল্প পরিচালক সুরাইয়া বেগম বলেন, কৃষকের কাছে মানসম্পন্ন বীজ, বালাইনাশক, ভেজালমুক্ত সারসহ অন্যান্য কৃষি উপকরণ সুলভ নয়। এছাড়া আধুনিক প্রযুক্তি প্রয়োগ করে তুলনামূলকভাবে বেশি মূলধন প্রয়োজন পড়ে। শুধু তাই নয়, কৃষক তার উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে না।

প্রবন্ধে আরও বলা হয়, জিডিপির প্রায় ১৮ দশমিক ৭ শতাংশ কৃষিখাত থেকে আসে, আর এ খাতে চলমান প্রবৃদ্ধির হার ২ দশমিক ১৭ শতাংশ। গ্রামীণ এলাকায় কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে বিশাল জনগোষ্ঠীর সমৃদ্ধির জন্য কৃষির ভূমিকা গুরুত্বপূূর্ণ হলেও কৃষকদেরকেই খাদ্য নিরাপত্তা ও চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হয়। বর্ধিত জনসংখ্যার চাপে দেশে প্রতিবছর ১ শতাংশ হারে কৃষি জমি কমছে। আর ভূমি বন্টনের ক্ষেত্রেও রয়েছে অসমতা।

সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন রিইব নির্বাহী পরিচালক ড. মেঘনা গুহঠাকুরতা। অনুষ্ঠানে সংগঠনের চেয়ারম্যান ড. শামসুল বারির সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ জহির চন্দন, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামসুল হক রেজা প্রমুখ।

প্রকাশিত : ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫, ০৫:১২ পি. এম.

১৭/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

জাতীয়



শীর্ষ সংবাদ: