মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৯ আশ্বিন ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

ঢের হয়েছে, রেহাই চান শাহরুখ

প্রকাশিত : ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:০১ পি. এম.

অনলাইন ডেস্ক ॥ নিজের জন্মদিনে যা বলেছিলেন, নিজের নতুন ছবি মুক্তির দু’দিন আগে একেবারে তার উল্টো কথা বললেন শাহরুখ খান। বললেন, ভারতে এখন কোনও সমস্যা নেই। বললেন, ‘‘এ দেশে অসহিষ্ণুতা আছে, এমন কথা আমি বলছিই না। আমার কথা শুনে কারও যদি খারাপ লেগে থাকে, তার জন্য আমি দুঃখিত।’’

ঠিক দেড় মাস আগে কী বলেছিলেন? গত ২ নভেম্বর নিজের পঞ্চাশ বছরের জন্মদিনে শাহরুখ বলেছিলেন, ‘‘দেশে চরম অসহিষ্ণুতার পরিবেশ তৈরি হয়েছে। এ ভাবে চলতে থাকলে আমরা আর ক’দিনের মধ্যে অন্ধকার যুগে ফিরে যাব।’’

সেই বক্তব্য থেকে এ দিন শুধু সরেই আসেননি দিলওয়ালে-র নায়ক, এবিপি নিউজের অনুষ্ঠানে প্রতি পদে বুঝিয়ে দিয়েছেন অসহিষ্ণুতা নিয়ে কথা বলতে অস্বস্তি বোধ করছেন তিনি। অত্যন্ত সতর্ক হয়ে কথা বলছেন এবং বিতর্কে দাঁড়ি টানতে চাইছেন। তিনি যে বেশ ভয় পেয়েছেন, স্বীকার করেছেন সেটাও। সঞ্চালক তাঁকে অসহিষ্ণুতা নিয়ে প্রশ্ন করতেই শাহরুখ বলে ওঠেন, ‘‘আপনি ঠিক কী জানতে চাইছেন সুনির্দিষ্ট ভাবে বলবেন? এই প্রসঙ্গটা নিয়ে কেউ কথা বললেই আমি আজকাল নির্দিষ্ট করে জেনে নিই, তিনি ঠিক কী প্রসঙ্গে কথাটা বলছেন!’’ নায়ককে বলা হয়, দেশের বর্তমান অবস্থায় অসহিষ্ণুতার প্রসঙ্গ নিয়েই তাঁর মত জানতে

চাওয়া হচ্ছে। উত্তরে নানা বিষয় টেনে আনেন শাহরুখ। অসহিষ্ণুতা আছে বা নেই, এ রকম কিছু তাঁর মনে হয় না বলে দাবি করেন। জন্মদিনে যখন অসহিষ্ণুতা নিয়ে মুখ খুলেছিলেন, সে দিন তাঁকে ঠিক কী প্রশ্ন করা হয়েছিল, সেটাও জানান।

শাহরুখের কথায়, তাঁর কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে তিনি কী বার্তা দিতে চান। তাঁর দাবি, উত্তরে তিনি যা বলেছিলেন তার জন্যই সকলে তাঁর উপরে খড়্গহস্ত হয়ে ওঠে আর বিতর্কের ঝড় বয়ে যায়! দৃশ্যতই এ দিন শাহরুখের চেষ্টা ছিল, সে দিনের ‘ভুল’ সংশোধন করে নেওয়া এবং যেনতেন প্রকারে গোটা বিষয়টা থেকে অব্যাহতি চাওয়া! নতুন প্রজন্মকে কিছু বলার হলে প্রাদেশিকতা-ধর্ম-জাতপাত-বর্ণ-লিঙ্গের ভিত্তিতে কোনও রকম পার্থক্য না করার পরামর্শই দেবেন, এ কথা বলেছেন আজও। তার পরেই জুড়েছেন, ‘‘তাই বলে কি বলছি যে এ সব হচ্ছে? না তো! সোজাসুজি বলছি, ভয় পেয়ে গিয়েছি ভাই!’’

কেন এতটা পরিবর্তন? ইন্ডাস্ট্রির অন্দরে অনেকগুলো উত্তরই ভাসছে। জন্মদিনের সেই বিস্ফোরক সাক্ষাৎকারের পরে শাহরুখকে নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি। তাঁকে দেশদ্রোহী তকমা দিয়ে পাকিস্তানি জঙ্গির সঙ্গে তুলনা করেন কট্টরবাদী হিন্দু নেতারা। শাসক দল বিজেপির সাংসদরা তাঁর বিরুদ্ধে তোপ দাগেন। শাহরুখের পরে অসহিষ্ণুতা নিয়ে সরব হন আমির খান। পরিস্থিতি যে রকম দাঁড়িয়েছে, তাতে দেশ ছেড়ে যেতে হবে কি না, এমন আশঙ্কাও স্ত্রী কিরণের মনে এসেছে বলে জানান তিনি। সেই মন্তব্যের পরে আমির-কিরণকে নিয়েও ছিছিক্কার আর সমালোচনার বান ডাকে। এমনকী আমির ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর— এমন একটি অনলাইন কেনাকাটার সাইটকে বয়কট করার হিড়িকও শুরু হয়ে যায়। আমিরকে বিবৃতি দিয়ে জানাতে হয়, দেশ ছেড়ে যেতে চান এমন কথা তিনি বলেননি।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

প্রকাশিত : ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:০১ পি. এম.

১৭/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: