মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

রাজাকারদের গাড়িতে পতাকা তুলে দিয়ে জিয়া এরশাদ মুক্তিযুদ্ধের মর্যাদা ভূলুণ্ঠিত করেছেন ॥ নাসিম

প্রকাশিত : ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, সিরাজগঞ্জ ॥ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব নিজেও জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান করেছেন, তাঁর কন্যা শেখ হাসিনাও মুক্তিযোদ্ধাদের শুধু ভাতা নয়, তাদের মর্যাদা দিয়েছেন, সম্মানিত করেছেন। কিন্তু ’৭৫-পরবর্তীতে ২১ বছর মুক্তিযোদ্ধা দাবিদার জেনারেল জিয়া, এরশাদ ও বেগম জিয়ার সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানিত না করে বরং রাজাকারদের সম্মানিত করেছেন, তাদের এমপি, মন্ত্রী বানিয়েছেন, বাড়িতে গাড়িতে রক্ত খচিত জাতীয় পতাকা তুলে দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের মর্যাদা ভুলুণ্ঠিত করেছেন। জাতীয় পতাকার অসম্মান করেছেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বুধবার দুপুরে সিরাজগঞ্জে বিজয় দিবস উপলক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারবর্গের সদস্যদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেছেন। তিনি তাঁর বক্তব্যের শুরুতেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব, জাতীয় চার নেতা এবং মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরণ করেন। এর আগে তিনি শহীদ এম মনসুর আলী অডিটরিয়ামে পৌঁছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও শহীদ এম মনসুর আলীর ম্যুরালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান এবং এক মিনিট নীরবে দাঁড়িয়ে তাঁদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করেন।

সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসন আয়োজিত শহীদ এম মনসুর আলী অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত এ সংবর্ধনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোঃ বিল্লাল হোসেন। সংবর্ধনা সভায় বক্তব্য দেনÑ মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও সংগ্রাম পরিষদের সদস্য সচিব আনোয়ার হোসেন রতু, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম কিবরিয়া, সিরাজুল ইসলাম খান, আবু ইউসুফ সূর্য্য, মুক্তিযোদ্ধা জেলা কমান্ডার গাজী সফিকুল ইসলাম সফি, অধ্যাপক ডাঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না এমপি, সেলিনা বেগম স্বপ্না এমপি, পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহমেদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা ডেপুটি কমান্ডার আশরাফুল ইসলাম জগলু চৌধুরী ও থানা ডেপুটি কমান্ডার আব্দুল মজিদ। এর আগে প্রধান অতিথিসহ উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারবর্গের সদস্যদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়।

সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, কোন মুক্তিযোদ্ধা যেন অর্থাভাবে বিনা চিকিৎসায় মারা না যান সে জন্য দেশের প্রতিটি হাসপাতালে মুক্তিযোদ্ধাদের বিনা খরচে চিকিৎসার ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। কারণ মুক্তিযোদ্ধারা দেশের সূর্যসন্তান। অনেক আন্দোলন হবে বা অনেকেই আরও আন্দোলন করবেন। কিন্তু কেউ মুক্তিযোদ্ধা হতে পারবেন না। যে কারণে তাদের সম্মান সকলের ওপরে। তিনি এও বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকারে থাকলে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান চিরদিন থাকবে।

নাসিম বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, বাঙালী জাতি এখন বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। বিশ্বের ইউরোপ আমেরিকাসহ অন্যান্য দেশ এখন বাঙালী জাতিকে সম্মান করে। অপার সম্ভাবনার এই বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন আবারও বাস্তবায়িত হবে। কারণ বাংলাদেশের শিশু-কিশোর তরুণরা একাত্তরের বর্বরতার কথা শুনে শিহরিত হয়ে উঠেছে।

প্রকাশিত : ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫

১৭/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: