মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

দেশে সাম্প্রদায়িকতার স্থান হবে না ॥ নাসিম

প্রকাশিত : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী এবং ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র। এখানে সাম্প্রদায়িকতার কোন স্থান নেই। কেউ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের অপচেষ্টা করলে তা কঠোর হস্তে দমন করতে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। ১৪ দলের ধর্মীয় সংখ্যালঘু সেলের নেতৃবৃন্দ সোমবার সন্ধ্যায় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বাসায় সাক্ষাত করতে গেলে তিনি এ সব কথা বলেন।

তিনি বলেন, অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে বাঙালী জাতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে এক সাগর রক্তের বিনিময়ে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছিল। মুক্তিযুদ্ধের চার মূলনীতির অন্যতম ছিল ধর্ম নিরপেক্ষতা। কিন্তু পরিতাপের বিষয় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর জেনারেল জিয়াউর রহমান ক্ষমতা দখল করে সংবিধান থেকে ধর্মনিরপেক্ষতা তুলে দেন। এরপর এ দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর অনেক অত্যাচার-নির্যাতন হয়েছে। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে জনগণের ম্যান্ডেট নিয়ে ক্ষমতায় এসে সংবিধানে পুনরায় ধর্ম নিরপেক্ষতা অন্তর্ভুক্ত করেন। এরপর থেকে দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিরাজ করছে।

মোহাম্মদ নাসিম আরও বলেন, ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় আসার পর আবার সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনের স্টিম রোলার চালানো হয়। বর্তমানে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি যাতে নষ্ট না হয়, সে ব্যাপারে সরকার সচেষ্ট। ধর্মীয় সংখ্যালঘু সেলের নেতৃবৃন্দ সাক্ষাতকালে মোহাম্মদ নাসিমের কাছে সাম্প্রতিককালে দেশের বিভিন্ন স্থানে সংঘটিত কয়েকটি ঘটনার কথা তুলে ধরেন। মন্ত্রী এ ব্যাপারে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলে আশ্বাস দেন। এ সময় মোহাম্মদ নাসিম বিষয়টি নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন।

এছাড়া ধর্মীয় সংখ্যালঘু সেলের নেতৃবৃন্দ আসন্ন পৌর নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের প্রার্থীদের নির্বাচিত করার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। সাক্ষাতকালে অধ্যাপক নিম চন্দ্র ভৌমিক, ইউবার্ড গোমেজ, বাসুদেব ধর, মনীন্দ্রনাথ কুমার, জয়ন্ত কুমার দেব, তাপস কুমার পাল, নির্মল রোজারিও, নির্মল চ্যাটার্জী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রকাশিত : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫

১৫/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



শীর্ষ সংবাদ: