মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ আগস্ট ২০১৭, ৭ ভাদ্র ১৪২৪, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার শপথ

প্রকাশিত : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:৫২ এ. এম.
  • বিনম্র শ্রদ্ধায় বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় অনিবার্য বুঝতে পেরে একাত্তরের ১৪ ডিসেম্বর জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের হত্যা করে হানাদারদের এদেশীয় দোসর আলবদর। সেই বাহিনীপ্রধান মুজাহিদের ফাঁসির মধ্য দিয়ে জাতি হয়েছে কলঙ্কমুক্ত। তাই এবার ভিন্নমাত্রায় জাতি শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি জানিয়েছে বিনম্র শ্রদ্ধা। স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর :

চট্টগ্রাম

বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের ব্যানারে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বুদ্ধিজীবীদের প্রতি জ্ঞাপন করা হয় বিনম্র শ্রদ্ধা। শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে সর্বস্তরের মানুষ। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গৃহীত হয় মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বৈষম্যমুক্ত অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়ার শপথ। সোমবার দিনব্যাপী নানান কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন করেছে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদ। মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা কার্যালয়ের সামনে জাতীয় পতাকা ও মেলা পতাকা উত্তোলন করা হয়। এছাড়া মেলা পরিষদ কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মরণে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। উপস্থিত ছিলেনÑ মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদের মহাসচিব মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইউনুছ, অর্থ সচিব মুক্তিযোদ্ধা পান্টু লাল সাহা, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক আদনান, সম্পাদকম-লীর সদস্য বাবু চন্দন ধর, মশিউর রহমান চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য এমএ লতিফ টিপু, কোতোয়ালী থানা আওয়ামী লীগের আবুল মনসুর, মহানগর যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ, হেলাল উদ্দিন প্রমুখ। এছাড়া আওয়ামী লীগ, কমিউনিস্ট পার্টি, ওয়ার্কার্স পার্টি, জাসদ, বাসদ, আওয়ামী যুবলীগ, ছাত্রলীগ, যুব ইউনিয়ন, ছাত্র ইউনিয়ন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট, ছাত্রমৈত্রী, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী, খেলাঘর আসর, প্রমা আবৃত্তি সংগঠনসহ বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অর্পণ করা হয় পুষ্পার্ঘ্য। সংগঠনগুলোর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। সভা থেকে একাত্তরের ঘাতক ও দালালদের বিচার এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় একটি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার শপথ গ্রহণ করা হয়।

রাজশাহী

পবা উপজেলা চত্বরে শহীদ মিনার উদ্বোধন শেষে প্রথমবারের মতো শ্রদ্ধা জানানো হলো শহীদ বুদ্ধিজীবীদের। সোমবার নবনির্মিত এ শহীদ মিনারের উদ্বোধন করেন রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন। এ সময় অন্যদের মধ্যে পবা উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এসএম আশরাফুল হক, ভাইস চেয়ারম্যান বেগম খায়রুন্নেসা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম হোসেন, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ইয়াসিন আলী উপস্থিত ছিলেন। এদিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) বিনম্র শ্রদ্ধায় শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে নানান কর্মসূচী পালন করেছে রাবি প্রশাসন ও ছাত্রলীগসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল, ছাত্র-শিক্ষক ও সাংস্কৃতিক-স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো। সোমবার দিবসের প্রথম প্রহরে মোমবাতি জ্বালিয়ে আলোর মিছিল নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বধ্যভূমি স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন রাবি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সকালে প্রশাসন ভবন, আবাসিক হল ও অন্যান্য ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে উত্তোলন করা হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও শহীদ স্মৃতি সংগ্রহশালার উদ্যোগে প্রভাতফেরি বের করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মুহম্মদ মিজানউদ্দিনসহ প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তারা শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

সিলেট

নগরীর চৌহাট্টার শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সোমবার ভোর থেকে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ শ্রদ্ধা জানান। পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ জেলা ও মহানগর ইউনিট, সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা দল সিলেট জেলা, জাসদ, ওয়ার্কার্স পার্টি, সিপিবি, ন্যাপ, সিটি কর্পোরেশন, শ্রমিক লীগ জেলা ও মহানগর শাখা, স্বেচ্ছাসেবক লীগ জেলা ও মহানগর, ছাত্রলীগ, যুবলীগ জেলা ও মহানগর, মহিলা আওয়ামী লীগ সিলেট জেলা ও মহানগর, সিলেট জেলা প্রেসক্লাব, সিলেট প্রেসক্লাব, ইমজা, বাংলাদেশ ফটোজার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশন সিলেট, সেক্টর কমান্ডার্স ফোরাম সিলেট, লিডিং ইউনির্ভাসিটি, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি, বাসদ, ছাত্র ইউনিয়ন, উদীচী, বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলা সিলেট জেলা ও মহানগর শাখাসহ বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন শ্রদ্ধা জানায়।

মুন্সীগঞ্জ

সকালে শহরের সরকারী হরগঙ্গা কলেজসংলগ্ন বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানায় জেলাবাসী। প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা, সাংস্কৃতিক কর্মী, সাংবাদিক, স্কুল-কলেজ, রাজনৈতিক ও অরাজনৈতিক সংগঠনসহ সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা নিবেদন করে। পরে বীর শহীদদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে নীরবতা পালন এবং বিশেষ দোয়া করা হয়। এতে অংশ নেনÑ জেলা প্রশাসক সাইফুল হাসান বাদল, পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ সাজ্জাদ, সরকারী হরগঙ্গা কলেজের অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কামান্ডার আনিস-উজ-জামান, প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ড. ইয়াজউদ্দিন আহমেদ রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজের অধ্যক্ষ মেজর রেজাউল করিম, এডিসি কুদ্দুস আলী সরকার, এডিএম একেএম শওকত আলম মজুমদার, এডিসি মোহাম্মদ ফজলে আজিম, এডিসি হারুনুর রশীদ, ইউএনও শারাবার তাহুরা, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি জামাল হোসেন, সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এমএ কাদের মোল্লা, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মতিউল ইসলাম হিরু, প্রেসক্লাবের সভাপতি মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল প্রমুখ।

যশোর

সকল যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসি কার্যকর করার দাবির মধ্য দিয়ে যশোরে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে যশোরের রায়পাড়া শংকরপুর বধ্যভূমি স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেছে সর্বস্তরের মানুষ। সকাল থেকে প্রশাসনসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠন এ স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করে। দিবসের শুরুতেই শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. আব্দুস সাত্তার, জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীর, পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান। এছাড়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা আওয়ামী লীগ, বিএনপি, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়ন (জেইউজে), শিল্পকলা একাডেমি, জাসদ, বাসদ, সিপিবি, ওয়ার্কার্স পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধা জানান।

দিনাজপুর

বাংলাদেশ শিশু একাডেমি দিনাজপুর জেলা শাখার উদ্যোগে আলোচনা সভা, দোয়া, মিলাদ মাহফিল ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি।

বক্তব্য রাখেনÑ জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক তৌহিদুল ইসলাম, জেলা সিনিয়র তথ্য অফিসার আবুল কালাম মোহাম্মদ শামসুদ্দীন, ইমদাদ সরকার, বিশ্বজিৎ ঘোষ কাঞ্চন প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন দিনাজপুর শিশু একাডেমির শিশুবিষয়ক কর্মকর্তা সাইফুল আলম। এছাড়া হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত হয়েছে। সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর রুহুল আমিন শহীদ বেদিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন।

বরিশাল

সোমবার সকালে দিবসের প্রথম প্রহরে শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে দিনভর নানান কর্মসূচী পালন করা হয়। সকাল সাতটায় সর্বপ্রথম সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদ শহীদ বেদিতে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন করে। এরপর জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট তালুকদার ইউনুস এমপির নেতৃত্বে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। শ্রদ্ধা জানান শেখ টিপু সুলতান এমপির নেতৃত্বে জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির নেতাকর্মী।

নীলফামারী

সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শহীদদের স্মরণে শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ডিমলা সদরের রামডাঙ্গা নামক স্থানে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সামছুল হকের কবর, বালাপাড়া ইউনিয়নের শহীদ মুক্তিযোদ্ধার গণকবর, পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়নের মধ্যছাতনাই, ঠাকুরগঞ্জ, আসাদগঞ্জে আসাদের কবর ও গয়াবাড়ী ইউনিয়নের শুটিবাড়ী বাজারে মুক্তিযোদ্ধার কবর জিয়ারত ও পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নীলফামারী-১ আসনের সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দিন সরকার, ডিমলা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা তবিবুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সামছুল হক, আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সহিদুল ইসলাম, দফতর সম্পাদক জহুরুল ইসলাম ভুইয়া, পশ্চিম ছাতনাই আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল গফুর, সম্পাদক অজিবুল ইসলাম দুলুসহ মুক্তিযোদ্ধা, সংশিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীগণ।

খাগড়াছড়ি

দিবসটি উপলক্ষে সকাল নয়টায় জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে কালো পাতাকা, জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন শেষে শোক র‌্যালি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পৌর টাউন হলের সামনে স্থাপিত বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ভাস্কর্যে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

সুনামগঞ্জ

সুনামগঞ্জ সরকারী কলেজ ক্যাম্পাসে র‌্যালি ও শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করা হয়। র‌্যালি ও শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদানে অংশ নেন ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক, অভিবাবক, গণমাধ্যমকর্মীসহ নানা শ্রেণী-পেশার মানুষ। পরে কলেজে শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বক্তব্য রাখেনÑ মাইনউদ্দিন আহমদ, রাইসুজ্জামান, দিপল ভট্টচার্জ, পুলক তালুকদার প্রমুখ।

সিরাজগঞ্জ

আলবদর প্রধান মুজাহিদের ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করে বেদনাবিধুর পরিবেশে সোমবার সিরাজগঞ্জে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত হয়েছে। একই সঙ্গে নানা আয়োজনে উৎসবমুখর পরিবেশে পালন করা হয়েছে সিরাজগঞ্জ মুক্ত দিবস। সোমবার সকালে এ উপলক্ষে শহরের প্রাণকেন্দ্র মুক্তির সোপানে শহীদদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন মুক্তিযোদ্ধাসহ সর্বস্তরের মানুষ। সকাল ১০টায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয় থেকে বর্ণাঢ্য বিজয় র‌্যালি বের হয়। পরে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের জেলা ইউনিট কমান্ডার শফিকুল ইসলাম শফির সভাপতিত্বে বক্তব্যে রাখেনÑ আওয়ামী লীগ নেতা আবু ইউসুফ সুর্য্য, জাসদ সভাপতি আব্দুল হাই তালুকদার, এ্যাডভোকেট বিমল কুমার দাস, ইসহাক আলী, মোস্তফা কামাল খান, সাবেক কমান্ডার সোহরাব আলী, ডেপুটি কমান্ডার জগলুল চৌধুরী, সদর উপজেলা ডেপুটি কমান্ডার আব্দুল মজিদ, আব্দুস সামাদ রতন ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান আব্দুল আলীম।

ভোলা

ভোলা সরকারী ফজিলাতুননেসা মহিলা কলেজ মিলনায়তনে অধ্যক্ষ ফখরুল আলম পাশার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক সেলিম রেজা। গেস্ট অব অনার ছিলেন জেলা পরিষদ প্রশাসক আবদুল মমিন টুলু। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেনÑ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার দোস্ত মাহমুদ, ডেপুটি কমান্ডার শফিকুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী তোফায়েল হোসেন প্রমুখ।

গাইবান্ধা

কলেজের বাংলা বিভাগের সামনে আলোকচিত্র প্রদর্শনী, কলেজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট গাইবান্ধা সরকারী কলেজ শাখা এ কর্মসূচীর আয়োজন করে। কলেজ শাখার সভাপতি পরমানন্দ দাসের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের জেলা সাধারণ সম্পাদক বজলুর রহমান, কলেজ শাখার সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম মিলন, রাহেলা আকতার, শাহীন মিয়া প্রমুখ।

পাবনা

আওয়ামী লীগ, জাসদ, ওয়াকার্স পার্টি, পাবনা প্রেসক্লাব, পাবনা রিপোটার্স ইউনিটিসহ বিভিন্ন সংগঠন শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালনে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ দুর্জয় পাবনায় শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মরণে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করে। এ উপলক্ষে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শোক র‌্যালি, শহীদ স্মরণে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন, নীরবতা পালনসহ আলোচনা সভার আয়োজন করে। আলোচনায় ভাইস চ্যান্সেলর ড. আল-নকীব চৌধুরীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেনÑ প্রক্টর আওয়াল কবির জয়, ছাত্র উপদেষ্টা ড. মোহাম্মদ হাবিবুল্লাহ, প্রকৌশল অনুষদের ডিন সাইফুল ইসলাম, মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড. আব্দুল আলীম, বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ডিন মোঃ কামরুজ্জামান, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন খায়রুল আলম প্রমুখ।

নাটোর

শোক র‌্যালি, শ্রদ্ধাঞ্জলি এবং আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে নাটোরে পালিত হয়েছে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস। সোমবার সকালে নাটোর প্রেসক্লাবের আয়োজনে সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুলের নেতুত্বে শোক র‌্যালি বের হয়। প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কানাইখালী মাঠ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। নাটোর প্রেসক্লাবের সভাপতি রেজাউল করিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল, স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক ডাঃ সারোয়ার বারী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুন্সি সাহাবুদ্দিন, নাটোর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক দুলাল সরকারসহ অন্যরা বক্তব্য রাখেন।

গোপালগঞ্জ

বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, জেলা ও পুলিশ প্রশাসন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং উদীচীসহ সাংস্কৃতিক সংগঠন স্থানীয় বধ্যভূমিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ক্যাফেটিরিয়ায় আলোচনা সভা হয়।

প্রকাশিত : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:৫২ এ. এম.

১৫/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: