২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

যেভাবে ফাইনালে বরিশাল বুলস


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিপিএলে এবার ৬ দল খেলেছে। সেই দলগুলোর মধ্যে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের পর বরিশাল বুলসও ‘সাদামাটা’ দলই ছিল। যতক্ষণ পর্যন্ত ক্রিস গেইল দলের সঙ্গে যোগ দেননি, অন্যদের চেয়ে শক্তির বিচারে কম শক্তির দলই ছিল বরিশাল। অথচ কী দুর্দান্তই না খেলল! শুরুতে যদিও ভাগ্যের সহায়তায় জয় মিলেছে টানা দুই ম্যাচে। রংপুরকে ১৩ রানে ও সিলেটকে ১ রানে হারিয়েছিল। গেইলকে ছাড়াই এ জয়গুলো পেয়ে সেই যে ছন্দে ফিরত বরিশাল, জিততেই থাকল। গেইল দলের সঙ্গে যোগ দেয়ার আগে ৬ ম্যাচ খেলল বরিশাল, ৫টিতেই জিতে নিল। দুর্বার দল হয়ে উঠল। পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষস্থানটি দখল করে নিল। আইকন ক্রিকেটার মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্ব গুণে জিততেই থাকল। আল আমিন হোসেন বল হাতে ঝলক দেখাতে থাকলেন। কেভন কুপারও নৈপুণ্য ছড়াতে থাকলেন। এভিন লুইসতো এবার বিপিএলের একমাত্র সেঞ্চুরিয়ানই। মোহাম্মদ সামি বল হাতে জ্বলে উঠছেন। শুধু সাব্বির রহমান রুম্মনই আলো ছড়াতে পারছিলেন না।

গেইল যোগ দেয়ার পর দলের শক্তি বাড়ল। কিন্তু টানা ২ ম্যাচে হার হলো বরিশালের। গেইল দুই ম্যাচেই ৮ রান করে করলেন। ব্যর্থ হলেন। মাহমুদুল্লাহ তখন বললেন, ‘গেইল, গেইলই।’ সঙ্গে যে কথা বললেন, তা দাঁড়ায়, ‘গেইল কেমন ব্যাটসম্যান তা সবারই জানা। যেদিন খেলবেন, সেদিন কোন দলই রেহাই পাবে না।’ টানা দুই ম্যাচ হারের পরই তা বোঝা গেল। চিটাগাং ভাইকিংসের বিপক্ষে অপরাজিত ৯২ রানের ঝড়ো ইনিংস খেললেন। তাতে বরিশালও জিতল। লীগের শেষ ম্যাচে খেলেননি গেইল। এরপরও জিতে বরিশাল। ১০ ম্যাচের মধ্যে ৭ জয় পায়। ১৪ পয়েন্ট হয়। তবে রানরেটে পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় স্থান পেল বরিশাল। আর তাই ফাইনালে উঠতে দুটি ম্যাচ খেলতে হলো। এলিমিনেটর ম্যাচে ঢাকার বিপক্ষে খেলেন গেইল। ৩১ রান করেন। দলও জিতে। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে না খেলেই গেইল চলে যান বিগব্যাশ খেলতে। আবারও গেইলকে ছাড়াই জিতে বরিশাল। ফাইনালে খেলাও নিশ্চিত করে নেয়। ব্যর্থ হতে থাকা সাব্বির যেন গেইল রূপে হাজির হন। তার ৭৯ রানের ঝড়ো ইনিংসে জিতে যায় বরিশাল। সাদামাটা দল থেকে দুর্বার হয়ে ওঠা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে আজ শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হবে বরিশাল। ম্যাচটিতে জিতলে প্রথমবারের মতো বিপিএলের শিরোপা হাতে নেবে মাহমুদুল্লাহ।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: