মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৫ আশ্বিন ১৪২৪, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

সাব্বিরের দিকে তাকিয়ে বরিশাল

প্রকাশিত : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫
সাব্বিরের দিকে তাকিয়ে বরিশাল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শুরুর সময়গুলো বেশ কঠিন গেছে। ব্যাট হাতে শুধু ব্যর্থতার বৃত্তেই ঘুরপাক খেয়েছেন। অথচ বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্যতম সেরা টি২০ ব্যাটসম্যান বিবেচনা করা হয় সাব্বির রহমান রুম্মানকে। কিন্তু তিনি সে নামের প্রমাণটা এবার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) টি২০ আসরে করে দেখাতে পারছিলেন না। প্রাথমিক পর্বে যে ব্যাটিং দেখিয়েছেন তা ছিল ভয়াবহ রকমের বাজে। তবে সঠিক সময়েই জ্বলে উঠেছেন এ আক্রমণাত্মাক ব্যাটসম্যান, দেখিয়েছেন নিজের সামর্থ্য। বড় এবং চাপের ম্যাচগুলোতে তিনি দলকে ভাল কিছু উপহার দিতে পারেন তা প্রয়োজনীয় সময়েই জ্বলে উঠে প্রমাণ দিয়েছেন। এলিমিনেটর এবং কোয়ালিফায়ার এ দুটি ‘ডু অর ডাই’ ম্যাচেই রানের ফোয়ারা ছুটিয়েছেন। দল সাব্বিরের ওপর আস্থা রেখেছিল সেটার প্রতিদান দিয়েছেন শেষ পর্যন্ত। আরেকবার তার ব্যাটের দিকে তাকিয়ে থাকবে বরিশাল বুলস। চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লড়াইয়ে আজকের ম্যাচে সাব্বিরের ব্যাটে কি আবার চার-ছক্কার ঝড় দেখা যাবে? আবারও জ্বলে উঠতে পারবেন তিনি? বুলসের জন্য খুব প্রয়োজন আরেকটি বার এ তরুণের ব্যাটে রান পাওয়াটা।

কিছু কিছু খেলোয়াড় থাকেন, যাদের ওপর কোনভাবেই ভরসা হারানো যায় না। প্রাথমিক পর্বে টানা ১০ ম্যাচে বুলসের মিডলঅর্ডার নির্ভর করেছিল সাব্বিরের ওপর। কিন্তু সেই নির্ভরতার প্রতিদান দিতে পারেননি। টানা ১০ ম্যাচের ৭ ইনিংস ব্যাট করে তিনি করতে পেরেছিলেন ১১, ১৫, ১০, ০, ৩, ১৭ ও ৪ রান। অর্থাৎ ৮.৫৭ গড়ে মাত্র ৬০! এবার বিপিএল মোক্ষম সময়েই আয়োজিত হচ্ছে। কারণ, আগামী বছর বাংলাদেশ জাতীয় দল প্রবেশ করবে টি২০ জগতে। ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে বাংলাদেশে এশিয়া কাপ আয়োজিত হবে প্রথমবারের মতো টি২০ ফরমেটে। এরপরই মর্যাদার বিশ্বকাপ টি২০ ভারতে। তাই বিপিএলে জাতীয় দলের নিয়মিত খেলোয়াড়দের জন্য একটা ভাল প্রস্তুতির টুর্নামেন্ট হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে। তবে জাতীয় দলের ব্যাটসম্যানরা ক্রমাগতভাবেই ছিলেন ব্যর্থ। সে তালিকায় সবচেয়ে বাজে অবস্থা ছিল সাব্বিরের। তবে বুলসে টি২০ ক্রিকেটের ভয়ঙ্করতম ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইল যোগ দেয়ার পরই যেন নিজেকে ফিরে পাওয়ার অনুপ্রেরণা পেয়ে গেলেন সাব্বির। বিশেষ করে প্রাথমিক পর্বে গেইলের ৪৭ বলে অপরাজিত ৯২ রানের ইনিংসটি ড্রেসিং রুমে বসে ভালভাবেই দেখেছেন। আর এলিমিনেটর ম্যাচে গেইলের সঙ্গে জুটি বাঁধতে হয়েছে বিপদে পড়া বুলসকে বাঁচানোর জন্য। ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে প্রথমবার সাবলীল এবং আপন চেহারায় আবির্ভূত হয়েছেন সাব্বির। এদিন ওয়ানডাউনে নেমে ৩৯ বলে ৩ চার ও ৩ ছক্কায় ৪১ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন।

বাংলাদেশের ওয়ানডে ও টি২০ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা বার বারই এ বিষয়টা নিয়ে প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছেন। জাতীয় দলের অপরিহার্য ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা নিয়ে। তবে মাশরাফি বরাবরই প্রত্যয় ও প্রত্যাশা জানিয়েছিলেন দুয়েকটি ইনিংস খেলতে পারলেই ছন্দ ফিরে পাবেন ব্যর্থ ব্যাটসম্যানরা। নিজেও সবার সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে কথা বলেছেন। কারণ এই ব্যর্থদের নিয়ে গড়া দলটিকেই এশিয়া কাপ ও টি২০ বিশ্বকাপে নেতৃত্ব দিতে হবে তার। মাশরাফি বরাবরই বলেছেন বিপিএলে ব্যাটসম্যানরা রান পেলে তা আসন্ন বড় দুটি টুর্নামেন্টের জন্য আত্মবিশ্বাস নিয়ে নামতে পারবে বাংলাদেশ দল। সাব্বিরের জন্য সেটাই হয়েছে। ডায়নামাইটসের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ের সময় বারবারই গেইল তাকে উইকেটে দাঁড়িয়ে পরামর্শ দিয়েছেন। মাশরাফি তো কথা বলেছিলেনই আগে। ওই ইনিংস খেলার পরই নিজেকে ফিরে পাওয়া সাব্বির বুলসকে আরেকটি ধ্বংসাত্মক ইনিংস উপহার দিয়েছেন। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে রংপুর রাইডার্সের বোলাররা তাকে দমিয়ে রাখতে পারেনি।

প্রকাশিত : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫

১৫/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: