মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১ আশ্বিন ১৪২৪, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

অবৈধ বিলবোর্ড উচ্ছেদ বন্ধ ॥ ম্লান হচ্ছে চট্টগ্রাম নগরীর সৌন্দর্য

প্রকাশিত : ৪ নভেম্বর ২০১৫

আহমেদ হুমায়ুন, চট্টগ্রাম অফিস ॥ ইট-পাথরের যান্ত্রিক নগর জীবনেও ছিল প্রকৃতির ছোঁয়া। চার দেয়াল থেকে বের হলেই নগরবাসী পেতেন প্রকৃতির নির্মল বাতাস। চোখ জুড়াত সড়কে ঘেঁষে থাকা পাহাড় দেখে। এটা চট্টগ্রাম নগরীর দুই-এক বছর আগের চিত্র। কিন্তু এখন আর সেই দৃশ্য চোখে পড়ে না। পাহাড় ছাপিয়ে, সড়কের সৌন্দর্য নষ্ট করে গড়ে ওঠা বড় বড় বিলবোর্ডে নগরীর সেই সৌন্দর্য বিলীন হয়ে গেছে। দিন দিন নগরীর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য নষ্ট হলেও এ ব্যাপারে উদাসীন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন।

বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন নির্বাচিত হওয়ার পর সৌন্দর্য ফিরিয়ে আনতে নগরীর সকল বিলবোর্ড উচ্ছেদ করার ঘোষণা দিলেও এখন এ ব্যাপারে তিনি নিশ্চুপ। শপথ গ্রহণ করার পর তাঁর নির্দেশে জুন-জুলাই মাসে টানা বিলবোর্ড উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হলেও গত ২৬ জুলাই মেয়র দায়িত্ব গ্রহণের পর আর কোন অভিযান পরিচালনা করা হয়নি। দায়িত্ব গ্রহণের পর বিগত তিন মাসে একটি বিলবোর্ডও উচ্ছেদ হয়নি।

মেয়রের নীরবতায় উল্টো নতুন করে বিলবোর্ড উঠতে শুরু করেছে। গত তিন মাসে নগরীর লাভ লেন, জামাল খান মোড়, ষোলশহর দুই নম্বর গেট ও টাইগারপাস এলাকায় উচ্ছেদের পর নতুন করে বিলবোর্ড উঠেছে। তবে গত জুন থেকে নতুন বিলবোর্ড অনুমোদন এবং পুরাতন বিলবোর্ডের নবায়ন বন্ধ রেখেছে সিটি কর্পোরেশন। জুন থেকে অনুমোদন ও নবায়ন বন্ধ থাকায় নগরীর সকল বিলবোর্ড অবৈধ হয়ে পড়েছে। সিটি কর্পোরেশন চাইলে এখন সকল বিলবোর্ড উচ্ছেদ করতে পারে। অবৈধ হওয়ার পরও এখন সিটি কর্পোরেশন কোন অভিযান পরিচালনা করছে না।

সিটি কর্পোরেশনের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আহমদুল হক বলেন, ‘অবৈধ বিলবোর্ড উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন সিটি ম্যাজিস্ট্রেট। তিনি এ বিষয়ে বলবেন। আমরা অবৈধ ও বৈধ বিলবোর্ডের তালিকা করে দিয়েছি।’ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনার দায়িত্বে থাকা সিটি ম্যাজিস্ট্রেট নাজিয়া শিরিন এ বিষয়ে কিছু বলতে রাজি হননি। এ বিষয়ে জানতে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তিনি মোবাইল রিসিভ করেননি।

প্রকাশিত : ৪ নভেম্বর ২০১৫

০৪/১১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ:
রোহিঙ্গা সমস্যার সৃষ্টি মিয়ানমারের ॥ সমাধান ওদের হাতে || বাবার ফেরার অপেক্ষায় পিতৃহারা অবোধ রোহিঙ্গা শিশুরা || বছরে রফতানি আয় বাড়ছে ৩ থেকে ৪ বিলিয়ন ডলার || চালের বাজারে স্বস্তি প্রতিদিন দাম কমছে || বিদ্যুতের পাইকারি দর ১১.৭৮ ভাগ বৃদ্ধির সুপারিশ || মিয়ানমারে গণহত্যা বন্ধ নির্ভর করছে নিরাপত্তা পরিষদের ওপর || রোহিঙ্গা শরণার্থীদের স্বাস্থ্য সেবায় ২৫ কোটি ডলার চেয়েছে বাংলাদেশ || আরও মোবাইল ব্যাংকিং কোম্পানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক || অপকৌশলে রোগীদের সঙ্গে প্রতারণা, বিপুল অর্থ আদায় || জেলে মাদক ও মোবাইল ফোন ব্যবহার ॥ সারাদেশে দুই শতাধিক কারারক্ষী গোয়েন্দা নজরদারিতে ||