২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সকল হত্যাকা-ের বিচার না হলে আইনের শাসন প্রশ্নবিদ্ধ হবে


স্টাফ রিপোর্টার ॥ দীপন সহ সকল মুক্তমনা লেখক, ব্লগারদের হত্যাকা-ের বিচার না হলে দেশে আইনের শাসন প্রশ্নবিদ্ধ হবে। এ ব্যাপারে সরকারকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার দাবি জানিয়েছে ১৪ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক ওয়ার্কার্স পার্টি। সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক প্রতিবাদ সমাবেশে ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দ এ দাবি জানান।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপনসহ সকল মুক্তমনা লেখক-ব্লগারদের হত্যাকা-ের সাথে জামাতের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কার্য নসাৎ করার জন্য জামাত-শিবির এই হত্যাকা- সংঘটিত করতে পারে। এ ব্যাপারে গোয়েন্দা সংস্থাকে তদন্ত করতে হবে।

পার্টির মহানগর সভাপতি আবুল হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পার্টির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান মল্লিক, পলিটব্যুরো সদস্য নুর আহমদ বকুল, কেন্দ্রীয় নেতা আমিরুল হক আমিন, মোস্তফা আলমগীর রতন, জাকির হোসেন রাজু, সাব্বাহ আলী খান কলিন্স, মহানগর সাধারণ সম্পাদক কিশোর রায়, মহানগর নেতা শাহানা ফেরদৌসী লাকী, মুর্শিদা আখতার নাহার, ছাত্র মৈত্রী সভাপতি আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের বর্তমান স্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিস্থিতিকে অস্থিতিশীল করার লক্ষ্যে মার্কিন সা¤্রাজ্যবাদ মদদপুষ্ট এবং জামাতসৃষ্ট জঙ্গিবাদী গোষ্ঠী একের পর এক হত্যাকা- সংঘটিত করছে। নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, গতকাল রাত ৯টা ৯ মিনিটে অজ্ঞাত মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা ও সাবেক ছাত্রনেতা কমরেড বাপ্পাদিত্য বসুকে পরবর্তী টার্গেট হিসেবে হত্যার হুমকি দিয়েছে। নেতৃবৃন্দ এর তীব্র প্রতিবাদ জানান এবং হুমকিদাতাদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান।

নেতৃবৃন্দ বলেন, মার্কিন সা¤্রাজ্যবাদ সারা দুনিয়াতে ধর্মীয় জঙ্গিবাদী গোষ্ঠীকে অর্থ ও সামরিক প্রশিক্ষণ দিয়ে দেশে দেশে এই সহিংসতা সৃষ্টি করছে। এই সহিংসতা থেকে মার্কিন সা¤্রাজ্যবাদ নিজেও রক্ষা পাবে না। যার আলামত মার্কিন সমাজে লক্ষ করা যাচ্ছে। মার্কিন সা¤্রাজ্যবাদী এর ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে দুনিয়ার শান্তিকামী গণতান্ত্রিক ও দেশপ্রমিক শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, জামাত-শিবির সহিংস রাজনীতির মাধ্যমে একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করতে চায়। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ এই যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন। কোন ষড়যন্ত্র করে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায় কার্যকর করা থেকে বিরত রাখতে পারবে না।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: