মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

টাঙ্গাইল ছয় সড়কের কাজ সম্পন্ন

প্রকাশিত : ২ নভেম্বর ২০১৫
  • এগিয়ে যাচ্ছে তিন সেতু

নিজস্ব সংবাদদাতা, টাঙ্গাইল, ১ নবেম্বর ॥ টাঙ্গাইল এলজিইডি সম্প্রতি গুরুত্বপূর্ণ ছয়টি রাস্তার উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করেছে। আর তিনটি ব্রিজের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলেছে। ব্রিজ ও রাস্তার কাজে ব্যয় ধরা হয়েছে ৭৪ কোটি ২২ লাখ ২২ হাজার ৫৪১ টাকা। এলজিইডির এসব কাজের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো নাগরপুর উপজেলার নাগরপুর-মির্জাপুর ভায়া মোকনা সড়কে ধলেশ্বরী নদীর ওপর ৫২০ দশমিক ৬০ মিটার পিসি গার্ডার ব্রিজ নির্মাণ। এই ব্রিজ নির্মাণে চুক্তিমূল্য ধরা হয়েছে ৫৫ কোটি ৪৭ লাখ ১৫ হাজার ৮০৭ টাকা এবং রাস্তার জন্য ৯ কোটি টাকা।

সংশ্লিষ্টরা জানান, এ ব্রিজ নির্মিত হলে নাগরপুরসহ চরাঞ্চলের মানুষ খুব সহজেই সারুটিয়া-ধামরাই হয়ে ঢাকা যেতে পারবেন। এতে তাদের অন্তত ৫০ কিমি রাস্তা কমে যাবে। সময়ও কমবে অর্ধেক। এখন তাদের ঢাকা যেতে হচ্ছে টাঙ্গাইল হয়ে। একইসঙ্গে গড়ে উঠবে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প এবং কৃষিজাত পণ্য সহজেই বাজারজাত করা সম্ভব হবে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ধলেশ্বরী নদীর ওপর নির্মিতব্য ব্রিজের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলেছে। ইতোমধ্যে ৪০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। ব্রিজটি নির্মাণ করছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মীর আক্তার হোসেন লি.। এ প্রতিষ্ঠানের প্রজেক্ট ম্যানেজার আবু সাদাত সায়েম জানান, গত বছর ৩০ জুন এই ব্রিজ নির্মাণ শুরু হয়েছে। আর সিডিউল অনুযায়ী কাজ শেষ করার কথা রয়েছে ২০১৬ সালের ৩০ জুন। এছাড়া মির্জাপুর উপজেলার মির্জাপুর-পাথরঘাটা রাস্তায় বংশাই নদীর ওপর নির্মিত হচ্ছে ৮ কোটি ২৫ লাখ ৮১ হাজার ৬৩৩ টাকা চুক্তিমূল্যের ৩০০ মিটার দীর্ঘ পিসি গার্ডার ব্রিজ। একই উপজেলার বটতলা-কুড়াতলী লতিফপুর রাস্তায় বংশাই নদীর ওপর নির্মিত হচ্ছে ৩২০ মিটার দীর্ঘ আরও একটি ব্রিজ। এই ব্রিজের চুক্তিমূল্য ধরা হয়েছে ৬ কোটি ১৩ লাখ ৪ হাজার ৪৮৪ টাকা। টাঙ্গাইল এলজিইডি কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে বিভিন্ন উপজেলায় মোট ছয়টি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করেছে। এসব রাস্তার কাজে চুক্তিমূল্য ছিল মোট ৯ কোটি ৮৯ লাখ ২৭ হাজার ৭৫৯ টাকা। রাস্তাগুলোর মধ্যে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার টাঙ্গাইল-আয়নাপুর সড়কের পুনর্বাসন কাজ করা হয় ৯ দশমিক ২৯০ কিমি, টাঙ্গাইল-চারাবাড়ী-তোরাবগঞ্জ-শাহজানী সড়ক মেরামত করা হয় ৫ দশমিক ৫০০ কিমি, রসুলপুর হাইস্কুল-বড় বাসালিয়া হাট খোলামোড়া রাস্তার উন্নয়ন কাজ করা হয় ১ দশমিক ২০০ কিলোমিটার এবং একই উপজেলার আশেকপুর-গোসাই জোয়াইর রাস্তার এক কিমি পর্যন্ত পাকা করা হয়েছে। এছাড়া সখীপুর উপজেলার সখীপুর-সাগরদিঘী ভায়া বড়চওনা সড়কের পুনর্বাসন কাজ করা হয় ১৪ দশমিক ৬৬০ কিলোমিটার এবং মির্জাপুর উপজেলার দেওহাটা-ধানতারা জিসি সড়কের ২ দশমিক ৭৮০ কিমি রাস্তা মেরামত করা হয়। এ বিষয়ে টাঙ্গাইল এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান বলেন, কাজগুলো খুব মানসম্মতভাবে করা হয়েছে। আগামী ৫/৭ বছরের মধ্যে এসব রাস্তার ইট-খোয়া তথা বিটুমিন উঠে গেলে চাকরি ছেড়ে দেব। টিম স্পিরিটের মাধ্যমে কাজকে নিজের মনে করে উন্নয়ন কাজের সর্বোচ্চ গুণগতমান বজায় রেখে রাস্তা, ব্রিজ/কালভার্টসহ সরকারী কাজগুলো বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে।

প্রকাশিত : ২ নভেম্বর ২০১৫

০২/১১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: