মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

নারায়ণগঞ্জে শাস্ত্রীয় সঙ্গীতে মুগ্ধ দর্শক শ্রোতা

প্রকাশিত : ২ নভেম্বর ২০১৫
নারায়ণগঞ্জে শাস্ত্রীয় সঙ্গীতে মুগ্ধ  দর্শক শ্রোতা

সংস্কৃতি ডেস্ক ॥ নারায়ণগঞ্জের সুধীজন পাঠাগারে শুক্রবার হেমন্ত অধিবেশনের শাস্ত্রীয় সঙ্গীত সংগঠন লক্ষ্যাপার আয়োজন করেছিল। হেমন্তের সন্ধ্যায় শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের এই আসর বসে। সুধীজন পাঠাগারের কর্মাধ্যক্ষ ইমতিয়াজ ফারুক মঈন ও লক্ষ্যাপারের প্রধান উপদেষ্টা ও পাঠাগার পরিচালক কাশেম জামালের স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে তিন পর্বের অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন লক্ষ্যাপারের সংগঠক অসিত কুমার। অনুষ্ঠানের শুরুতেই ছিল সুর-আলাপন নামে একটি পর্ব। এর বিষয় ছিল শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের সঙ্গে লোক সঙ্গীতের সম্পর্ক। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. অসিত রায় লোক সঙ্গীতের সঙ্গে শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের গভীর সম্পর্কের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, প্রাকৃতিক প্রেরণা থেকেই মানুষের মাঝে সুর আসে। প্রকৃতির সান্নিধ্যেই মানুষ প্রথম আবেগের স্বতঃস্ফূর্ততায় গান গেয়ে ওঠে। এই সঙ্গীতই লোকসঙ্গীত হিসেবে পরিচিত হয়। আর ব্যাকরণের আগে যেমন ভাষার জন্ম, তেমনি এই লোকসঙ্গীতের ওপর ভর করেই বিকশিত হয় শাস্ত্রীয় সঙ্গীত। কথার ফাঁকে ফাঁকে ঝিঝিট, খাম্বাজ ও ভৈরবি রাগ পরিবেশন ও এই রাগগুলোর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট লোকসঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে সঙ্গীতের এ দুটি শাখার প্রগাঢ় আত্মীয়তা তুলে ধরেন শাস্ত্রীয় সঙ্গীত শিল্পী অধ্যাপক ড. অসিত রায় ও তার সুযোগ্য ছাত্র লোকসঙ্গীত শিল্পী কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক আরিফুর রহমান। তবলায় সঙ্গত করেন বিশিষ্ট বাদক সবুজ আহমেদ। ভাটিয়ালি, বাউল গানের সঙ্গে শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের সম্পর্কের দিকটি উন্মোচন করেন গুণী এই শিল্পীদ্বয়। দুই সঙ্গীত ধারার মিলনে হেমন্তের সন্ধ্যা গড়িয়ে কখন রাত নেমে আসে উপস্থিত দুই শতাধিক দর্শক তা ঠাহরই করতে পারেননি। শ্রোতাদের মুগ্ধতার ঘোরের মধ্যেই দুই শিল্পীকে লক্ষ্যাপারের ফুলেল শ্রদ্ধায় শেষ হয় প্রথম পর্ব। মাঝের বিরতির পর শেষ পর্বে মঞ্চে আসেন কলকাতার সরোদ শিল্পী ত্রৈলী দত্ত। ঠিক রাত সাড়ে ৮টায় ত্রৈলির সরোদ ও মীর নাকিবুল ইসলামের তবলার যুগলবন্দীতে সুরের আরেক মায়াজাল ছড়িয়ে পড়ে সুধীজন পাঠাগারের পাঠকক্ষটিতে। পরবর্তী দুই ঘণ্টা খেয়াল অঙ্গের পটদ্বীপ এবং হেমন্ত রাগ এবং ধুনের পিলু রাগে এই তরুণ সরোদিয়া বাদনে মুগ্ধ করে রাখেন সকলকে। দুই শিল্পীর জবাবি সঙ্গতের অনবদ্য মূর্ছনা দিয়েই আসর শেষ হয়। সবশেষে লক্ষ্যাপারের পরবর্তী আয়োজন সপ্তম বার্ষিক শাস্ত্রীয় সঙ্গীত অধিবেশনে সবাইকে আমন্ত্রণ জানান লক্ষ্যাপার সংগঠক অসিত কুমার।

প্রকাশিত : ২ নভেম্বর ২০১৫

০২/১১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: