২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

তাভেলা হত্যায় ভাগ্নে রাসেলের স্বীকারোক্তি


কোর্ট রিপোর্টার ॥ ইতালীয় নাগরিক সিজার তাভেলা হত্যা মামলায় মিনহাজুল আরেফীন রাসেল ওরফে ভাগ্নে রাসেল ওরফে কালা রাসেলও ঢাকা মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন। ঐ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট শাহরিয়ার মাহমুদ আদনানের কাছে রবিবার তিনি এই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেন। এর আগে গত ২৬ অক্টোবর শুটার রুবেল একই বিচারকের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন। ওইদিন তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনে ঢাকা মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মাহবুবুর রহমান ভাগ্নে রাসেল, চাকতি রাসেল ও শাখাওয়াত হোসেন শরীফের ৮ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

ভাগ্নে রাসেল ৮ দিন রিমান্ডের ৫ দিন শেষ হওয়ার পরই আদালতে স্বীকারোক্তি প্রদান করতে রাজি হওয়ায় রবিবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের ইন্সপেক্টট জেহাদ হোসেন তাকে আদালতে হাজির করেন। অপর ২ আসামি চাকতি রাসেল ও শাখাওয়াত এখানও রিমান্ডে রয়েছেন। এর আগে গত ২৫ অক্টোবর রাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৪ জনকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ।

পুলিশের দাবি সরকারকে চাপে ফেলতে কথিত বড় ভাইয়ের নির্দেশে আসামিরা এ হত্যাকা- ঘটায়। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে আসামি শাখাওয়াতের মোটরসাইকেল নিয়ে রুবেল, ভাগ্নে রাসেল ও চাকতি রাসেল হত্যাকা-ে আংশ নেয়। কথিত বড় ভাই একটি পেশাদার রাজনৈতিক দলের নেতা। বড় ভাই তাদের বলেছে, বিদেশী নাগরিক হত্যা করতে পারলে সরকার চাপে পড়বে। চাকতি রাসেল ও ভাগ্নে রাসেল ইয়াবাসহ বিভিন্ন নেশায় আসক্ত ও বিভিন্ন মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি। রুবেল ঠা-া মাথার খুনি। শাখাওয়াত হোসেন ইয়াবা ও অবৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ী।

উল্লেখ্য, গত ২৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশান-২ এর ৯০ নম্বর সড়কে জগিং করার সময় দুবৃর্ত্তদের গুলিতে নিহত হন ইতালীয় নাগরিক ও নেদারল্যান্ডসভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংস্থা আইসিসিওবিডির কর্মকর্তা সিজার তাভেলা।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: