২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জামায়াত, জেএমবি আনসারুল্লাহ ও হরকত এক সুতোয় গাঁথা ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


বিশেষ প্রতিনিধি ॥ একের পর এক লেখক-ব্লগার-প্রকাশক হত্যাকে ‘বিচ্ছিন্ন ঘটনা’ হিসেবে বর্ণনা করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির কোন অবনতি ঘটেনি। তিনি বলেন, এ জাতীয় ঘটনায় মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত শক্তির হাত রয়েছে। তারা দেশকে অস্থিতিশীল করতে এ জাতীয় ঘটনা ঘটিয়ে চলেছে। রবিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভাল, অবশ্যই ভাল। এগুলো (খুন) উদ্দেশ্যমূলকভাবে হচ্ছে, আগেও বলেছি। এ ঘটনায় তদন্ত চলছে। আশা করি খুব শীঘ্রই অপরাধীরা ধরা পড়বে।

মুক্তমনা লেখক-ব্লগারদের হত্যার ধারাবাহিকতায় শনিবার দুই প্রকাশনা সংস্থার কার্যালয়ে ঢুকে এক প্রকাশককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। মারাত্মক আহত হন আরেক প্রকাশকসহ তিনজন। প্রকাশকদের ওপর হামলার ঘটনার তদন্তে ও হামলাকারীদের গ্রেফতারের বিষয়ে কোন অগ্রগতির কথা জানাননি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এর আগে গত আগস্ট পর্যন্ত আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে ধারাবাহিক দুই সরকারের আমলে প্রায় আড়াই বছরে লেখক-ব্লগার ও গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠকসহ ছয়জনকে চাপাতিসহ ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভাল থাকলে এমন ঘটনা বার বার কেন ঘটছে- জানতে চাইলে কামাল বলেন, এ ধরনের বিচ্ছিন্ন ঘটনা সারা পৃথিবীতে ঘটছে। এ যুগে কোন্ জায়গায় কোন্ দেশে হয় না- সেটা আমাকে বলবেন? অস্ট্রেলিয়াতে হচ্ছে, আমেরিকায় হচ্ছে, ফ্রান্সে হচ্ছে। ধরাও পড়ছে, আমাদেরটাও ধরা পড়বে ইনশা আল্লাহ।

এসব হত্যাকা-ের পেছনে ‘মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত শক্তির হাত’ রয়েছে ঈঙ্গিত করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যা আনসারুল্লাহ বাংলাটিম, সেটাই জেএমবি, সেটাই হরকাতুল জিহাদ। সবই এক সুতায় গাঁথা। সবই স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি। সবই পূর্বাবস্থার জামায়াত-শিবির, বর্তমানে তারা নতুন কায়দায় অন্য কিছুর মাধ্যমে ধ্বংসাত্মক চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে।

এ বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি বইমেলা থেকে ফেরার পথে টিএসসি এলাকায় মুক্তমনা লেখক-ব্লগার অভিজিত রায়কে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এর দশ মাস পর শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর শাহবাগে আজিজ সুপার মার্কেটে অভিজিতের বন্ধু ও তার বইয়ের প্রকাশক জাগৃতি প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী ফয়সাল আরেফিন দীপনকে হত্যা করা হয় একই কায়দায়। কাছাকাছি সময়ে লালমাটিয়ায় অভিজিতের বইয়ের আরেক প্রকাশক শুদ্ধস্বরের কর্ণধার আহমেদুর রশীদ চৌধুরী টুটুলসহ তিনজনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়। এর আগেও গত দুই বছরে অন্তত পাঁচ ব্লগারকে একই কায়দায় বেপরোয়াভাবে হত্যা করা হয়।

শনিবারের দুই ঘটনায় দায় স্বীকার করা হয়েছে আনসার আল ইসলাম নামের একটি টুইটার এ্যাকাউন্ট থেকে বার্তা পাঠিয়ে, যারা নিজেদের আল কায়েদার ভারতীয় উপমহাদেশ শাখা (একিউআইএস) দাবি করেছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন, একটা ঘটনা ঘটেছে, সবাই কাজ করছে। কে কী উদ্দেশ্যে করেছে, আমরা ঠিকই ধরে ফেলব। পুলিশ ও গোয়েন্দারা কাজ করছে। এখনও রিপোর্ট পাইনি, পেলে আপনাদের জানাব। মন্ত্রী বলেন, প্রকাশক হত্যার ঘটনাস্থল আজিজ মার্কেট শনিবার বন্ধ ছিল এবং খুনীরা সেই সুযোগ কাজে লাগিয়েছে। তবে ব্যবসায়ীরা বলছেন, আজিজ মার্কেটের সাপ্তাহিক ছুটি মঙ্গলবার। শনিবার ঘটনার সময় মার্কেট খোলাই ছিল।

মন্ত্রী বলেন, লালমাটিয়াতেও একই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। তবে সেখানে আইউইটনেস ছিল। এটার অগ্রগতি দ্রুত হবে।

অন্য হত্যাকা-ের সাম্প্রতিক তদন্ত প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, সন্দেহভাজনদের আমরা শনাক্ত করেছি, ধরেছি। বাকিদের ধরার চেষ্টা করছি। সম্প্রতি ঢাকায় ইতালির নাগরিক তাভেলা ও রংপুরে জাপানের নাগরিক কুনিও হোশিকে গুলি করে হত্যা করে অজ্ঞাত বন্দুকধারীরা। নিরাপত্তার জন্য বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার মালিকদের নিজ উদ্যোগে সিসি ক্যামেরা (ক্লোজ সার্কিট) স্থাপনের আহ্বান জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: