১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ৭ ফাল্গুন ১৪২৪, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 

মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ওপর হামলার নিন্দা ইইউ ও যুক্তরাষ্ট্রের

প্রকাশিত : ২ নভেম্বর ২০১৫

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ প্রকাশক হত্যার প্রেক্ষিতে মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ওপর আবারও হামলার ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিত করার জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তারা। রবিবার পৃথক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানানো হয়।

ঢাকায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি পিয়েরে মায়াদ্যু এক বিবৃতিতে বলেন, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও যার যার বিশ্বাসকে সম্মান দেখানোর বিষয়টি নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে এই মর্মান্তিক ঘটনা সরকারের জন্য একটি বার্তা। পিয়েরে মায়াদ্যু তার বিবৃতিতে জাগৃতি প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী দীপনের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান এবং শুদ্ধস্বরের আহমেদুর রশীদ ও তার সঙ্গে একই ঘটনায় আহত ব্লগার তারেক রহিম ও রণদীপম বসুর প্রতি সংহতি প্রকাশ করেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উদ্যোগ এবং জনগণের ঐক্যের মাধ্যমে বাংলাদেশে এ ধরনের উগ্রপন্থী কর্মকা- প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি। এছাড়া মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

এদিকে ঢাকার মার্কিন দূতাবাস থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে প্রকাশকদের ওপর হামলায় নিন্দা জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা রক্ষায় বাংলাদেশ সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের পাশে থাকবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এর আগেও চলতি বছর লেখক-ব্লগার নিলয় চক্রবর্তী, ওয়াশিকুর রহমান, অনন্ত বিজয় দাশ ও অভিজিত রায়ের হত্যার পরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জঙ্গী ও সন্ত্রাসবাদ দমনে গুরুত্বারোপ করেছিল। নিহত ও আহত প্রকাশকদের পরিবারের প্রতি দেশটির পক্ষ থেকে সমবেদনা জানানো হয়।

এছাড়া প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপনকে হত্যা ও আহমেদুর রশীদ চৌধুরীসহ তিনজনের ওপর হামলার প্রেক্ষিতে শনিবার বিবৃতি দেন ঢাকায় নিযুক্ত জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি রবার্ট ওয়াটকিনস ও ঢাকার ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট গিবসন। রবার্ট উইটকিনস এক বিবৃৃতিতে বলেন, এ ধরনের হামলা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। তিনি সরকারের প্রতি মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিতের জন্য আহ্বান জানান। এছাড়া এক টুইট বার্তায় ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট গিবসন এ হামলার প্রেক্ষিতে নিন্দা প্রকাশ করেন।

শনিবার রাজধানীর লালমাটিয়ায় অভিজিত রায়ের বইয়ের এক প্রকাশক শুদ্ধস্বরের কর্ণধার আহমেদুর রশীদ চৌধুরী টুটুলসহ তিনজনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়। একই দিন শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটের তৃতীয় তলায় জাগৃতি প্রকাশনীর কার্যালয়ে ফয়সাল আরেফিন দীপনের রক্তাক্ত লাশ পাওয়া যায়। টুটুল ও দীপন দুজনেই লেখক অভিজিত রায়ের বই প্রকাশ করেছেন। গত ফেব্রুয়ারিতে বইমেলা চলার সময় ঢাকার শাহবাগে একই কায়দায় কুপিয়ে হত্যা করা হয় অভিজিতকে।

প্রকাশিত : ২ নভেম্বর ২০১৫

০২/১১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: