মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৬ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

জিম্বাবুইয়েকে নিয়েই ভাবছেন মাশরাফিরা

প্রকাশিত : ১ নভেম্বর ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সামনে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে সিরিজ। তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও দুই ম্যাচের টি২০ সিরিজ আছে। এরপরই বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল-টি২০)। স্বাভাবিকভাবেই জিম্বাবুইয়ে দলকে নিয়ে ভাবার সঙ্গে বিপিএল নিয়েও ক্রিকেটারদের মধ্যে অনুশীলনে আলোচনা হওয়ার কথা। তা নাকি একেবারেই হচ্ছে না। শুধু জিম্বাবুইয়েকে নিয়েই ভাবছেন মাশরাফিরা।

এমনই জানালেন অলরাউন্ডার নাসির হোসেন। বললেন, ‘বিপিএল নিয়ে আমাদের মধ্যে সেভাবে কোনো কথা হচ্ছে না। সবাই ফোকাসড আছে জিম্বাবুইয়ের জন্য। এখানে ভালো খেললে এই আত্মবিশ্বাসটা বিপিএলে কাজে আসবে। বিশ্বকাপের জন্যও আত্মবিশ্বাসটা বাড়িয়ে নেয়ার সুযোগ এটা।’

পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে দুর্বল দল জিম্বাবুইয়ে। তা সবারই জানা। নাসিরও তাই বলছেন। তবে বড় দলের সঙ্গে খেলাতেই বেশি মনোযোগী যেন নাসির। তাহলে যে বেশি শেখা যায়। নাসির বলেছেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে যেটা অনুভব করি, বড় বড় দলের সঙ্গে খেলাটা আমরা উপভোগ করি। বড় দলগুলোর সঙ্গে খেললে অনেক কিছু শেখার থাকে। সে সময় পারফর্ম করলে অনেক বেশি ফোকাস হয়। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলা হচ্ছে না, ওরা আসছে না। এতে তো আমাদের করার কিছুই নেই। সেটা মেনে নিতে হবে।’

জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে সিরিজ নিয়ে বলতে গিয়ে জানিয়েছেন, ‘জিম্বাবুইয়ে সিরিজ নিয়ে বলব, আমরা অনুশীলন করছি। প্রস্তুতি খুব ভালো হচ্ছে। ছোট সিরিজ বলে কোন কথা নেই। খেলোয়াড়দের জন্য প্রতিটি ম্যাচই অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ছোট-বড় কোন কথা নেই। আর যে ভাল সে ভাল দলের সঙ্গেও ভাল খেলতে পারে, খারাপ দলের সঙ্গেও ভাল খেলতে পারে। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি ভারত-পাকিস্তান-দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে জিম্বাবুয়ে একটু দুর্বল দল। তারপরও খেলা হচ্ছে একদিনের, সেদিন যারা ভাল খেলবে তারাই জিতবে।’

এবার জাতীয় লীগে তারকা ক্রিকেটাররা খেলেছেন। ভাল নৈপুণ্যও দেখিয়েছেন। তা জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে কাজেও দেবে। নাসিরই যেমন মনে করছেন, ‘জাতীয় লীগে জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা সেভাবে খেলতে পারে না। আমরা এবার অনেক সুযোগ পেয়েছি। চার/পাঁচটা করে ম্যাচ খেলেছি। প্রত্যেকটা ম্যাচ খেলোয়াড়দের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল। অনেকে লীগে রান পেয়েছে একশ-দেড়শ-দুইশ করেছে। এই আত্মবিশ্বাস ভবিষ্যতে আমাদের খুব কাজে লাগবে। চেষ্টা করেছি যতক্ষণ সম্ভব উইকেটে থাকার এবং ব্যাটিং করার। হয়তো বেশি সময় উইকেটে থাকতে পারিনি। তারপরও চেষ্টা করেছি ব্যাটিং অনুশীলনটা সেরে নেয়ার। উইকেট খুব ভাল ছিল সব ম্যাচেই।’

জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে সিরিজের পর বিপিএল হবে। এরপরই টি২০ বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুত হওয়া শুরু করে দিতে হবে। বিশ্বকাপের আগে এশিয়া কাপও আছে। নাসির তাই এখন থেকেই প্রস্তুত হচ্ছেন। অল্প বল খেলে বেশি রান করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। নিজেই বলেছেন, ‘সামনে টি২০ বিশ্বকাপ। আমি চেষ্টা করছি স্কোরিং শট বাড়ানোর জন্য। চেষ্টা করছি প্রতি বলে রান করার জন্য। চেষ্টা করছি দ্রুত রান করার জন্য। অল্প বলে বেশি রান করার জন্য।’

প্রকাশিত : ১ নভেম্বর ২০১৫

০১/১১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: