১৫ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

খুলনার চরেরহাটে যুদ্ধের সময় গণহত্যার ঘটনা প্রকাশ


স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ খুলনা মহানগরীর চরেরহাট এলাকায় বিস্মৃত গণহত্যার ঘটনা প্রকাশ করা হয়েছে। একাত্তরের ৮ মে পাক সেনারা চরেরহাট মাছ কোম্পানির ঘাটে দুটি লঞ্চ থামিয়ে তিন শতাধিক নারী-পুরুষ ও শিশু যাত্রীকে নামিয়ে লাইন দিয়ে দাঁড় করিয়ে নৃসংশভাবে হত্যা করে। বিস্মৃত এ গণহত্যার ঘটনাসংবলিত একটি স্মৃতিফলক শনিবার বিকেলে প্রধান অতিথি হিসেবে উদ্বোধন করেছেন ১৯৭১ : গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর ট্রাস্টের সভাপতি বিশিষ্ট ইতিহাসবিদ প্রফেসর ড. মুনতাসীর মামুন। স্মৃতিফলক উন্মোচন শেষে পুষ্পমাল্য দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

১৯৭১ : গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর উদ্যোগে সারাদেশের বধ্যভূমি, রাজাকার বাহিনীর অত্যাচারের স্থানসমূহ চিহ্নিতকরণের অংশ হিসেবে বিস্মৃত গণহত্যার এই স্মৃতিফলকটি স্থাপন করা হয়। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন খালিশপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ শেখ সুলতান আহমেদ। বক্তব্য রাখেন ১৯৭১ : গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ শেখ বাহারুল আলম, সিটি কর্পোরেশনের স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর এস এম খুরশিদ আহম্মেদ টোনা, অধ্যক্ষ ড. আবুল কালাম আজাদ, খালিশপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ শহীদুল ইসলাম, অধ্যাপক শংকর কুমার মল্লিক। এ সময় স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিসহ বিপুল সংখ্যক নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে ড. মুনতাসীর মামুন বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের সময়ে সারাদেশে অসংখ্য গণহত্যার ঘটনা ঘটেছে। অনেকেই সে সম্পর্কে জানেন না। সে সকল ঘটনা বর্তমান প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণে তরুণদেরই এগিয়ে আসতে হবে।