মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

মধু শিকারি গ্রন্থের প্রকাশনা নাট্য প্রদর্শনী

প্রকাশিত : ১ নভেম্বর ২০১৫
মধু শিকারি গ্রন্থের প্রকাশনা নাট্য প্রদর্শনী
  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সুন্দরবনের ছোট্ট ছেলে শনু মধু খুব পছন্দ করে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে একবার সাইক্লোনে তছনছ হয়ে যায় সুন্দরবন। ঝড় গেলে আসে দুর্ভিক্ষ। ক্ষুধায় শনু এতই কাতর হয় যে মৌচাক থেকে মধু নিয়ে নেয় যদিও সেটি মৌসুম নয়। শনু তখনও বুঝতে পারেনি এটি তার জন্য কত বড় বিপদ বয়ে আনতে পারে। বনের রাজা দক্ষিণ রায় এবং দেবী বনবিবিও ক্রুদ্ধ হয়। ফলে শনুকে পোহাতে হয় অনেক কষ্ট। প্রকৃতির ছন্দে ব্যাঘাত ঘটানো এমন কাহিনীকে উপজীব্য করে রচিত গল্পগ্রন্থ হানি হান্টার। ইংরেজী ভাষায় বইটি লিখেছেন ভারতীয় লেখক কার্তিক নায়ার। পরবর্তীতে গ্রন্থটি প্রকাশিত হয় ফরাসি ভাষায়। এবার ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেড (ইউপিএল) থেকে প্রকাশিত হলো বইটির বাংলা সংস্করণ মধু শিকারি। শামীম আজাদের বাংলা অনুবাদে গ্রন্থটির বর্ণনার সঙ্গে চমৎকার অলঙ্করণ করেছেন জোয়েল জোলিভে।

শনিবার বিকেলে ফরাসি সাংস্কৃতিক কেন্দ্র আলিয়ঁস ফ্রঁসেজের লা গ্যালারিতে বইটির প্রকাশনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ঢাকাস্থ ফরাসি রাষ্ট্রদূত সোফি অবের। স্বাগত বক্তব্য দেন আলিয়ঁসের পরিচালক ব্রুনো প্লাস। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ইউপিএলের প্রকাশক মহিউদ্দীন আলমগীর। প্রকাশনা অনুষ্ঠান শেষে মঞ্চস্থ হয় বটতলা থিয়েটারের নাটক মধু শিকারি। প্রধান অতিথির বক্তব্যে আসাদুজ্জামান নূর বলেন, এই গ্রন্থটি প্রথমে প্রকাশিত হয়েছিল ইংরেজী ভাষায়। এরপর ফরাসি ভাষা হয়ে এবার প্রকাশিত হলো বাংলা ভাষায়। গল্পচ্ছলে পরিবেশ বাঁচানোর বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে গ্রন্থটিতে। বন-জঙ্গল রক্ষার ব্যাপারে মানুষের মধ্যে সচেতনতাবোধ জাগিয়ে তোলার চেষ্টা করা হয়েছে। আর পরিবেশ বাঁচলে সুস্থভাবে বাঁচবে মানুষ। সংস্কৃতিমন্ত্রীর বক্তৃতার সময় মঞ্চের সামনে বসে থাকা একঝাঁক শিশু তাঁকে ‘হ্যাপি বার্থডে’ বলে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানায়।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় সোফি অবের বলেন, চমৎকার এই গল্পগ্রন্থটি ইংরেজী ও ফরাসি ভাষার সীমা পেরিয়ে এবার প্রকাশিত হলো বাংলায়। এর মাধ্যমে বাংলাদেশ ও ফ্রান্সের মধ্যে সাংস্কৃতিক বিনিময়ের বন্ধনটি আরও জোরালো হলো। তিনি আরও বলেন, গ্রন্থটির মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সম্পর্কে জানা যায়। গুরুত্বসহকারে তুলে ধরা হয়েছে সুন্দরবনের পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্যকে। আমরা মানব সম্প্রদায়ও এই পরিবেশেরই অংশ। অথচ আমাদের দায়িত্বহীন আচরণের কারণে ক্রমশই নষ্ট হচ্ছে সুন্দরবনের পরিবেশ-প্রতিবেশ। বন রক্ষায় আমাদের আরও সচেতন হতে হবে।

রূপকথার আদলে লেখা মধু শিকারি গল্পগ্রন্থে প্রকৃতির প্রতি বিরূপ আচরণে সৃষ্ট সমস্যার চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। গল্পটির মাধ্যমে শিশুরা প্রকৃতিকে উপলব্ধির পাশাপাশি সম্মান জানাতে শিখবে। অলঙ্কারশিল্পী জোয়েল জোলিভে বর্ণনার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে দারুণ সব ছবি এঁকেছেন বইটিতে। গ্রন্থটির মূল্য ধরা হয়েছে ৮৭৫ টাকা।

নীপার চিত্রপ্রদর্শনী ক্রোমোটিক ডিলিউশান্স ॥ গুলশান এভিনিউয়ের বেঙ্গল আর্ট লাউঞ্জে শুরু হলো শিল্পী মাকসুদা ইকবাল নীপার চিত্রকর্ম প্রদর্শনী। শনিবার সন্ধ্যায় ক্রোমাটিক ডিলিউশান্স শীর্ষক ৩ সপ্তাহব্যাপী প্রদর্শনীর উদ্বোধন হয়। যৌথভাবে প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়োদন ও অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

রঙের বৈভবে বিশাল ক্যানভাসে কাজ করেন মাকসুদা ইকবাল নীপা। এই প্রদর্শনীতেও ঘটেনি তার ব্যতিক্রম। অবয়বের পরিবর্তে বর্ণে বর্ণে চিত্রিত হয়েছে নন-ফিগারেটিভ চিত্রকর্ম। দেশের বিমূর্ত চিত্রশিল্পের যাত্রায় এক ধাপ এগিয়ে যাওয়ার পথরেখার দিশা দেয় নীপার ছবিগুলো।

আগামী ২১ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে এই প্রদর্শনী। প্রতিদিন বেলা ১২টা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

বৈশাখে ছবি আঁকো জ্যেষ্ঠে প্রদর্শনী ॥ শিশুদের শিল্পচর্চায় নিবেদিত সংগঠন পটুয়া কামরুল হাসান আর্ট স্কুল। সেই ধারাবাহিকতায় প্রতি বছরের মতো এবারও ‘বৈশাখে ছবি আঁকো জ্যৈষ্ঠে প্রদর্শনী’ শীর্ষক ষষ্ঠ জাতীয় শিশু চিত্রকলা প্রতিযোগিতার আয়োজন করে চারুশিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি। শনিবার বিকেলে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের চিত্রশালা মিলনায়তনে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বিজয়ী খুদে চিত্রকরদের পুরস্কার প্রদান করা হয়। একইসঙ্গে অনুষ্ঠানে নির্বাচিত ৬০ শিশুর দুই দিনব্যাপী চিত্রকর্ম প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য কবি কাজী রোজী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী অধ্যাপক সমরজিৎ রায় চৌধুরী। সভাপতিত্ব করেন দৈনিক সকালের খবরের সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন মঞ্জু।

সমরজিৎ রায় চৌধুরী বলেন, শিশুদের আঁকা এসব ছবি দেখে আমি মুগ্ধ হয়েছি। এই শিশুদের মধ্য থেকেই আমরা আগামী দিনের সেরা শিল্পী খুঁজে পাবো। এই শিশুরা ভাল ভাল ছবি এঁকে পটুয়া কামরুল হাসানের নামের স্বার্থকতা বজায় রাখবে।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কবি কাজী রোজী বলেন, এদেশে অনেকেই আমাদের ঋণী করে গেছেন, তাদের মধ্যে অন্যতম পটুয়া কামরুল হাসান। শিশুদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ছবি আঁকার সঙ্গে শিশুদের বন্ধুত্ব গড়ে তুলতে হবে এবং দেশ গড়ার স্বপ্ন দেখতে হবে।

শিল্পকলায় শাস্ত্রীয় সঙ্গীতানুষ্ঠান ॥ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সঙ্গীত, নৃত্য ও আবৃত্তি বিভাগের ব্যবস্থাপনায় শনিবার সন্ধ্যায় একাডেমির সঙ্গীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে শাস্ত্রীয় সঙ্গীতানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ নেন সরকারী সঙ্গীত কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক শামীমা পারভীন। স্বাগত বক্তব্য দেন একাডেমির সঙ্গীত, নৃত্য ও আবৃত্তি বিভাগের পরিচালক মোঃ সোহরাব উদ্দীন।

আলোচনা শেষে ধ্রুপদী সঙ্গীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী রাজেশ সাহা ও সুপ্রিয়া দাশ। যন্ত্রসঙ্গীতের সুর মূর্ছনা ছড়িয়ে দেন শাহনাজ জামান ও নিশিথ দে। শাস্ত্রীয় ঘরানার নৃত্য পরিবেশন করেন নৃত্যশিল্পী বেনজীন সালাম ও লুবনা চৌধুরী।

চার স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্রের প্রদর্শনী ॥ সাম্প্রতিক আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবসমূহে প্রশংসিত ও সমাদৃত হয়েছে এমন চারটি স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্র উপভোগ করলেন দর্শকরা। শনিবার সন্ধ্যায় সুফিয়া কামাল জাতীয় গণগ্রন্থাগারের সেমিনার হলে সবার জন্য উন্মুক্ত এ প্রদর্শনীর আয়োজন করে বাংলাদেশ প্রামাণ্যচিত্র পর্ষদ। দেখানো হয় যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের চারজন পরিচালকের নির্মিত চারটি প্রামাণ্যচিত্র। এগুলো হলো কমিক বুক হেভেন, সেলিম বাবা, স্কেটিসস্তান : টু লিভ এ্যান্ড স্কেট কাবুল ও দ্য কিন্ডা সূত্র।

প্রকাশিত : ১ নভেম্বর ২০১৫

০১/১১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: