১৫ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

গরুর ভাল্ভে বাঁচল শিশু


গরুর ভাল্ভে  বাঁচল শিশু

আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। মানতে না চাইলেও খারাপ কিছু যে ঘটতে চলেছে তা বুঝতে পারছিলেন এলেন প্রিটচার্ড। ভূগোলের সাবেক শিক্ষিকা এলেনের ছোট্ট ছেলে নোয়া বিরল জিনঘটিত রোগে আক্রান্ত। কিন্তু হার মানেননি ইংল্যান্ডের লিভারপুল শহরের এ্যাল্ডার হে চিল্ড্রেনস হসপিটালের একদল চিকিৎসক। গরুর হৃদযন্ত্রের অংশ শিশুটির হৃদযন্ত্রের সঙ্গে জোড়া লাগিয়ে চিকিৎসকরা বাঁচালেন আট মাস বয়সী নোয়াকে। বর্তমানে ওই হাসপাতালেই ভর্তি আছে সে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, নোয়া বিরল জিনঘটিত সমস্যা ‘হোল্ট ওরাম সিনড্রমে’ আক্রান্ত। সাধারণত লাখে এক জনের বিরল এই হৃদযন্ত্রের সমস্যাটি হয়ে থাকে। এই রোগে আক্রান্তদের হাতের হাড়ের গঠন অস্বাভাবিক হয়। সেই সঙ্গে হৃদযন্ত্রেরও সমস্যা দেখা দেয়। শেষ চেষ্টা হিসেবে নতুন একটি উপায়ের কথা মাথায় আসে লিভারপুলের ওই হাসপাতালের শল্যচিকিৎসকদের। শিশুটির হৃদযন্ত্রের সঙ্গে গরুর হৃদযন্ত্রের অংশবিশেষ জোড়া লাগান তারা।

শল্যচিকিৎসকরা জানিয়েছেন, মানুষের হৃদযন্ত্রের সঙ্গে গরুর হৃদযন্ত্রের অনেকাংশে মিল থাকায় অপারেশনটি করতে সুবিধা হয়েছে। তবে নোয়ার হাতের অপারেশন হওয়া এখনও বাকি। শিশুটির মা জানিয়েছেন, তার ছেলের হৃদযন্ত্রের অবস্থা এখন স্থিতিশীল এবং সে দ্রুত সেরে উঠছে। অসম্ভবকে সম্ভব করা চিকিৎসকদের একজন বলেন, আমাদের বিশ্বাস ছিল শিশুটির যন্ত্রণা সাময়িক, আয়ু এত স্বল্প নয়। তাই আমরা রোগ নিরাময়ের এই পন্থাকে বেছে নিয়েছি। Ñআনন্দবাজার পত্রিকা অনলাইন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: