মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১০ আশ্বিন ১৪২৪, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

মিসরে রুশ বিমান বিধ্বস্ত ২২৪ আরোহীর সবাই নিহত

প্রকাশিত : ১ নভেম্বর ২০১৫
  • ব্ল্যাক বক্স উদ্ধার ॥ রাশিয়ায় আজ জাতীয় শোক

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ ২২৪ আরোহীসহ শনিবার একটি রুশ বিমান মিসরের সিনাই উপদ্বীপে বিধ্বস্ত হয়েছে। এ ঘটনায় বিমানের সকল আরোহী নিহত হয়। নিহতদের মধ্যে ৭ জন ক্রু, ১৩৮ নারী যাত্রী এবং ১৭ শিশু রয়েছে। নিহত শিশুদের বয়স ২ থেকে ১৭ বছরের মধ্যে।

এয়ারবাস এ-৩২১ নামের বিমানটি উড্ডয়নের ২৩ মিনিট পর বিশ্বস্ত হয়। নিহতরা ২১৪ জন রুশ আর তিনজন ইউক্রেনের নাগরিক। এ ঘটনায় আজ রবিবার রাশিয়ায় জাতীয় শোক পালনের ঘোষণা দিয়েছেন সেদেশের প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিমানটির ব্লাক বক্স উদ্ধার করা হয়েছে। মিসরের উদ্ধারকারী দল সিনাইয়ের একশ’ কিলোমিটার দূরে আল আরিশ শহরের কাছে বিমানটির কিছু ধ্বংসাবশেষ খুঁজে পেয়েছে। ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলে অন্তত ৫০টি এ্যাম্বুলেন্স পাঠায় মিসর। মিসরের এক উদ্ধারকর্মী জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলে বহু মৃতদেহ ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। কোন কোন মৃতদেহ সিটের সঙ্গে বেল্ট দিয়ে বাঁধা আছে।

এদিকে এ ঘটনার দায় স্বীকার করেছে ইসলামী স্টেট আইএস সংশ্লিষ্ট জঙ্গীরা। বলা হয়েছে সিরিয়ায় আইএসের বিরুদ্ধে রুশ বিমান হামলার প্রতিশোধ নিতেই বিমানটিতে হামলা চালানো হয়। খলিফার ৈ সৈনিকরা সফলভাবে রুশ মিবানটি নামাতে সক্ষম হয়েছে।

অবশ্য আইএসের এই দাবি সত্য নয় বলে জানিয়েছে রুশ এবং মিসরীয় কর্তৃপক্ষ। রাশিয়ার পরিবহনমন্ত্রী ম্যাক্সিম সোকোলভ বলেছেন আইএসের এই দাবি সঠিক নয়। এ বিষয়ে তিনজন জঙ্গী বিশ্লেষক বলেছেন, সিনাইতে আইএসের যেসব সদস্য রয়েছে তাদের কাছে ভূমি থেকে বিমানে হামলা চালানোর মতো ক্ষেপণাস্ত্র নেই।

ঘটনাস্থলে থাকা মিসরীয় কর্মকর্তা টেলিফোনে গণমাধ্যমকে জানান, তল্লাশি ও উদ্ধারকারী দল বিমানের কোন অংশ থেকে মানুষের গলার আওয়াজ পেয়েছে।

বিমানটি দ্বিখ-িত হয়েছে। এটির পেছনের দিকের ছোট একটা অংশ পুড়ে গেছে এবং বড় অংশটি পাথরের ওপর বিধ্বস্ত হয়েছে। আমরা অন্তত ১০০ মৃতদেহ উদ্ধার করেছি। বাকিরা ভেতরে আছে। ওই বিমানে থাকা আরোহীদের সন্ধানে রাশিয়ার পুলকভো বিমানবন্দরে ভিড় জমাচ্ছেন স্বজনরা।

রুশ প্রেসিডেন্ট উদ্ধার তৎপরতার জন্য ঘটনাস্থলে একটি উদ্ধারকারী দল পাঠিয়েছেন। দলটির নেতৃত্বে রয়েছেন রুশ যোগাযোগমন্ত্রী ম্যাক্সিম সোকোলভ। দুর্ঘটনা বিষয়ে মিসরের বিমান চলাচল কর্মকর্তা আইমান আল মুকতাদিম বলেছেন, বিমানটি নিখোঁজ হওয়ার সামান্য আগে এটির যান্ত্রিক ত্রুটির বিষয়টি জানিয়ে বার্তা পাঠিয়েছিলেন পাইলট।

এয়ারবাস এ-৩২১ বিমানটি মিসরের লোহিত সাগরের জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র শারম আল শেখ থেকে রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গের দিকে যাত্রার পরপরই নিখোঁজ হয়ে যায়। মিসরের সিনাই উপদ্বীপ অঞ্চলটি রুশ পর্যটকদের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় স্থান। খবর বিবিসি, এএফপি, আলজাজিরা অনলাইনের।

শনিবার মিসরের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এক বিবৃতিতে প্রথমে এ দুর্ঘটনার খবর দেয়। বিবৃতিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী শরীফ ইসমাইল বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় মন্ত্রিপরিষদ পর্যায়ের একটি কমিটি গঠন করেছেন। রুশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ রোজাভিয়াতসিয়ার মুখপাত্র সের্গেই ইজভলোস্কি বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্সকে বলেন, ৭কে ৯২৬৮ ফ্লাইটটি মস্কো সময় সকাল ৬টা ৫১ মিনিটে উড্ডয়ন করে ১২টা ১০ মিনিটে পুলকভো বিমানবন্দরে অবতরণের কথা ছিল।

মিসরের রুশ দূতাবাস এক বিবৃতিতে দূতাবাসের ফেসবুক পাতায় বলেছে দুর্ভাগ্যজনকভাবে সেন্ট পিটার্সবার্গের উদ্দেশ্যে শারম আল শেখ ছেড়ে আসা কোগালিমাভিয়া ফ্লাইট ৯২৬৮-এর সকল আরোহীই মারা গেছে। আমরা তাদের পরিবার-পরিজনদের শোক জানাচ্ছি।

শনিবার সূর্যোদয়ের কিছু পরে উড্ডয়নের ২৫ মিনিটের মধ্যে বিমানটি সাইপ্রাসের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের সঙ্গে নির্ধারিত সংযোগ স্থাপনে ব্যর্থ হয়ে রাডারের বাইরে চলে যায় এবং কেন্দ্রীয় সিনাইয়ের বিরান পার্বত্য অঞ্চলে পতিত হয়। সেন্ট পিটার্সবার্গ নগরীর কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা তাস জানায়, বিমানের যাত্রীদের স্বজনদের সহায়তার জন্য পুলকভো বিমানবন্দরে একটি সহায়তা কেন্দ্র খোলা হয়েছে।

সিনাইয়ের কোন কোন অঞ্চলে ইসলামী জঙ্গীরা তৎপর রয়েছে। সাম্প্রতিক মাসগুলোতে তারা শত শত মিসরীয় সেনা ও পুলিশকে হত্যা করেছে এবং পশ্চিমা লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালিয়েছে।

গত মাস থেকে সিরিয়ার আসাদবিরোধী ইসলামিক স্টেটকে লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালিয়ে আসছে রাশিয়া।

প্রকাশিত : ১ নভেম্বর ২০১৫

০১/১১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: