২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

রাজধানীর হোটেল থেকে মহিলা পরিচ্ছন্ন কর্মীর লাশ উদ্ধার


স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর মতিঝিল ফকিরাপুলের একটি আবাসিক হোটেল থেকে এক মহিলা পরিচ্ছন্নকর্মীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার হয়েছে। এছাড়া সিদ্ধেশ্বরী এলাকায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার পুলিশ ও মেডিক্যাল সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, মতিঝিল ফকিরাপুল আল সাহারা আবাসিক হোটেলের ১২০ নং কক্ষের তালা ভেঙ্গে ফাতেমা আক্তার মনি (৪০) নামে এক নারীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার হয়েছে। শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে পুলিশ ওই কক্ষের তালা ভেঙ্গে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। নিহতের বাবার নাম শামসুল ইসলাম। গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ থানা এলাকায়। নিহতের ফুপাত ভাই ফয়েজ আলী জানান, স্বামীর সঙ্গে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার পর তিনি ফকিরাপুলের ওই হোটেলের পরিচ্ছন্নতা কর্মী হিসেবে কাজ করতেন। ওই এলাকায় তার বোনের বাসায় থাকতেন। মতিঝিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিএম ফরমান আলী জানান, মনি দীর্ঘদিন ধরে হোটেলটিতে পরিচ্ছন্নতা কর্মী হিসেবে কাজ করছিলেন। প্রতিদিনের ন্যায় শুক্রবার সকালে তিনি হোটেলে কাজ করতে যান। এরপর দীর্ঘ সময় ধরে তার কোন খোঁজ না পেয়ে দুপুরের দিকে হোটেল কর্তৃপক্ষ ১২০ নম্বর কক্ষটি ভেতর থেকে আটকানো দেখেন। পরে তারা অনেক ডাকাডাকির পরেও কোন সাড়াশব্দ পায়নি। পরে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পুলিশ এসে দরজা ভেঙ্গে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। তবে এটি আত্মহত্যা নাকি হত্যা। তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

সড়ক দুঘর্টনায় নিহত দুইজন ॥ রাজধানীর মতিঝিল শাপলা চত্বর এলাকায় একটি কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় মিজানুর রহমান নামের এক পথচারীর মৃত্যু হয়েছে। নিহতের বাবার নাম হযরত মোল্লা। তিনি মানিকনগর পুষ্করিনীর পাড় এলাকায় সপরিবারে থাকতেন। পুলিশ জানায়, মতিঝিল এলাকায় লেবারের কাজ করতেন মিজানুর রহমান। শুক্রবার সকালে কাজ করার জন্য মতিঝিল শাপলা চত্বর এলাকায় একটি কাভার্ড ভ্যান তাকে ধাক্কায় দেয়। এতে মিজানুর গুরুতর আহত হয়। পরে রাসেল নামের এক ব্যক্তি তাকে উদ্ধারের করে ঢামেক হাসপাতালে জরুরী বিভাগে আনেন। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক মিজানুরকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে বৃহস্পতিবার গভীররাতে রাজধানীর মধ্যবাড্ডার লিঙ্ক রোডে যাত্রীবাহী বাসের চাপায় হরিনাথ দাস (৪০) নামের এক পথচারীর মৃত্যু হয়েছে। নিহতের ভাতিজা সঞ্জয় চন্দ্র দাস জানান, হরিনাথ গুলশানে মুচির কাজ করেন। উত্তর বাড্ডা বড় বেরাইদ ভূঁইয়াপাড়া এলাকায় থাকতেন তিনি। বৃহস্পতিবার গভীররাতে কাজ শেষে বাসায় ফেরার পথে বাড্ডা থেকে তরঙ্গ প্লাস নামে একটি চলন্ত বাসে উঠছিলেন তিনি। এ সময় তিনি নিচে পড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হন। পরে আহত অবস্থায় তাকে ঢামেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বাড্ডা থানার ওসি আবদুল জলিল জানান, ঘাতক বাস ও চালককে আটক করা হয়েছে।

গর্ভপাত ঘটাতে গিয়ে ক্লিনিক মালিক গ্রেফতার ॥ রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী এলাকায় জয়া আহমদ নামক এক কিশোরীকে জোরপূর্বক গর্ভপাতের চেষ্টাকালে মুক্তি মেটার্নিটি হাসপাতালের পরিচালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: