১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

দামুড়হুদায় কালের বিবর্তনে হারিয়ে যেতে বসেছে ঐতিহ্যবাহী লাঠিখেলা


দামুড়হুদায় কালের বিবর্তনে হারিয়ে যেতে বসেছে ঐতিহ্যবাহী লাঠিখেলা

সংবাদদাতা, দামুড়হুদা, চুয়াডাঙ্গা ॥ কালের বিবর্তনে হারিয়ে যেতে বসেছে বাঙালী জাতির অস্তিত্ব আর ইতিহাস-সংস্কৃতির সাথে মিশে থাকা ঐতিহ্যবাহী লাঠিখেলা। তবে ঈদ, পহেলা বৈশাখ, পৌষ-পার্বন সহ বাঙালির প্রাণের নানা উৎসবে দেখা মেলে লাঠিখেলার। খেলা দেখতে উপচেপড়া ভিড় জমে নানা বয়সী মানুষের।

আগের মতো লাঠিখেলার দেখা না মিললেও ঐতিহ্য আর সংস্কৃতির ধারক হিসেবে চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার কয়েকটি এলাকার লাঠিয়াল দল এখনও ধরে রেখেছেন গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী এই খেলাটি। প্রয়োজনীয় পৃষ্ঠপোষকতার মাধ্যমে লাঠিখেলাকে টিকিয়ে রাখার দাবি সবার।

সভ্যতার প্রান্তিকে জীবনের প্রয়োজনেই বাঁশের লাঠি হাতে তুলে নিয়েছিলো মানুষ। কখনো প্রতিপক্ষকে আঘাত করতে, কখনোবা হিংস্র জীব-জন্তুকে প্রতিরোধ করতে লাঠি চালানোর নানামাত্রিক কৃতকৌশল আবিস্কার করেছিলো মানুষ। কালক্রমে সেই বাঁশের লাঠিই লাঠিয়াল নামে বাংলার ঐতিহ্যবাহী পেশাজীবীর সৃষ্টি হয়েছিলো। কালের বিবর্তনে সমাজ জীবন থেকে সেই লাঠিয়াল বাহিনীর বিলোপ ঘটলেও রূপান্তরঘটিয়ে লোক ও ধর্মীয় ঐতিহ্যে স্থান কওে নেয় লাঠিখেলা।

দামুড়হুদার এক লাঠিয়াল দলের নেতা শুক্রবার জানান ‘আগের মতো লাঠিখেলা হয় না। আমরা মনেরটানে নিজেরা লাঠিখেলা দেখিয়ে আনন্দপাই। আয়োজকরা অনেক সময় খুশি হয়ে আমাদের বিভিন্ন পুরস্কার দেন। এর বাইওে আসলে আমরা কোনো ধরনের সাহায্য সহযোগিতা পাই না’।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: