২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

কথা হবে না ॥ আসাদের ভাগ্য নিয়ে


সিরীয় গৃহযুদ্ধের অবসান ঘটানোর লক্ষ্যে শুক্রবার এক নতুন আন্তর্জাতিক আলোচনা শুরু হচ্ছে। তবে এতে সেদেশের প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের ভবিষ্যত নিয়ে এখনকার মতো কোন কথা হবে না বলে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া একমত হয়েছে। কয়েক সপ্তাহ ধরে জোর কূটনৈতিক তৎপরতার পর ওই আলোচনা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। খবর বিবিসি ও ওয়াশিংটন পোস্ট অনলাইনের।

ওই আলোচনার প্রাক্কালে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন এফ কেরি ও তার রুশ প্রতিপক্ষ সের্গেই লাভরভ প্রায় প্রত্যাহিক সংলাপেই একমত হন যে, সিরিয়ায় রাজনৈতিক পরিবর্তন অবশ্যই কোথায় গিয়ে শেষ হবে, তা নিয়ে তাদের চলমান মতানৈক্যের কারণে আলোচনার প্রক্রিয়া শুরু হতে না দেয়া উচিত হবে। আসাদকে অবশ্যই ক্ষমতা ছাড়তে হবে বলে যুক্তরাষ্ট্র জিদাজিদি করছে, আর রাশিয়া এর বিপরীত অবস্থান গ্রহণ করেছে।

আসাদ-সমর্থক ইরান এবং ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যের মার্কিন মিত্ররাসহ অন্তত ডজনখানেক দেশ ভিয়েনায় অনুষ্ঠেয় ওই আলোচনায় যোগ দেবে। কেরি বুধবার এক ভাষণে বলেন, এটিই কয়েক বছরের মধ্যে এক রাজনৈতিক প্রক্রিয়া শুরু করার সবচেয়ে সম্ভাবনাময় সুযোগ। ওয়াশিংটন ও মস্কোর প্রতি ইঙ্গিত করে কেরি বলেন, আমরা একমত যে, বর্তমান অবস্থা সমর্থনযোগ্য নয় এবং সঙ্ঘাতের অবসান ঘটানোর কোন উপায় আমাদের অবশ্যই খুঁজে বের করতে হবে। তিনি বুধবার ওয়াশিংটন ডিসির গবেষণা সংস্থা কার্নেগি এনডাওমেন্ট ফর ইন্টারন্যাশনাল পিসে এক ভাষণ দিচ্ছিলেন। তিনি বলেন, আমরা একমত যে, ইসলামিক স্টেট বা অন্য কোন সন্ত্রাসী দলের জয় অবশ্যই রোধ করতে হবে। আমরা একমত যে, রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠাগুলোকে এবং এক অখ-, ধর্মনিরপেক্ষ সিরিয়াকে রক্ষা করা অপরিহার্য। কেরি আরও বলেন, আমরা একমত যে, উদ্বাস্তু ও শরণার্থীদের প্রত্যাবর্তনের পরিবেশ আমাদের অবশ্যই সৃষ্টি করতে হবে। নতুন সংবিধান ও সব সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তাসহ স্বচ্ছ, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে নিজেদের নেতৃত্ব বাছাই করার অধিকার সিরীয় জনগণের রয়েছে। আসন্ন আলোচনায় অংশগ্রহণকারীদের খুব কমই এটি সফল হওয়ার বড় সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করে। এর আগে তিন বছরেরও বেশি সময়ে কয়েকটি আন্তর্জাতিক বৈঠক নিষ্ফল অবস্থায় শেষ হয়।

মধ্যপ্রাচ্যের এক মার্কিন মিত্র দেশের এক উর্ধতন কর্মকর্তা বলেন, এ আলোচনায় বাস্তবে কোন ফল অর্জিত হবে কিনা, তা নিয়ে আমি সন্দেহ পোষণ করছি। রুশ-মার্কিন মতৈক্যের ক্ষেত্রগুলোর যে বর্ণনা কেরি দিয়েছেন, তার কথা উল্লেখ করে কর্মকর্তা বলেন, আমরা পূর্ববর্তী আলোচনায়ও তা নিয়ে সবাই একমত হয়েছিলাম। তিনি বলেন, যখন আমরা আসাদের ভবিষ্যত কি হবে, এমন সুনির্দিষ্ট বিষয়ে কথা বলতে চাই, তখনই সব মতৈক্য ভেঙে পড়ে।

১১৮ সিরীয় লক্ষ্যবস্তুর ওপর রুশ হামলা

এএফপি জানায়, রুশ জঙ্গীবিমান গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ডসংখ্যক ১১৮টি সন্ত্রাসী লক্ষ্যবস্তুর ওপর আঘাত হানে। মস্কোতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বুধবার একথা জানায়।

মন্ত্রণালয় জানায়, রুশ জেটগুলো ইদলিব, হোমস, হামা, আলেপ্পো, দামেস্ক ও লাতাকিয়ায় ৭১ বার চক্কর দিয়ে ১১৮টি লক্ষ্যবস্তুর ওপর হামলা চালায়। ক্রেমলিন ৩০ সেপ্টেম্বর বিমান অভিযান শুরু করার পর একদিনের হিসাবে এবারই সর্বোচ্চসংখ্যক লক্ষ্য বস্তুতে আঘাত হানা হলো। মন্ত্রণালয় জানায়, বিমান হামলায় হোমস প্রদেশের তালবিসেহ শহরের কাছে আল কায়েদা সম্পৃক্ত আল-নুসরা ফ্রন্টের একটি কমান্ড পোস্ট ধ্বংস হয়। অন্যান্য লক্ষ্যবস্তুর মধ্যে ছিল আলেপ্পোর একটি ঘাঁটি। সন্ত্রাসীদের অস্ত্র সরবরাহের পথ নিয়ন্ত্রণ করতে ঘাঁটিটি ব্যবহার করা হতো। গাড়িতে বসানো বিমান বিধ্বংসী কামানসহ ঘাঁটিটি ধ্বংস করা হয়। ইদলিব প্রদেশের জঙ্গী বিমানগুলো গোলাবারুদ ভরা একটি গুপ্ত সরবরাহ ঘাঁটিতে আঘাত হানে।