মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৯ আশ্বিন ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

লন্ডনে অ্যামনেস্টি কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদ করবে গণজাগরণ মঞ্চ

প্রকাশিত : ২৯ অক্টোবর ২০১৫, ০৬:০২ পি. এম.

স্টাফ রিপোর্টার ॥ "মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী এবং জামায়াতের সেক্রেটারী জেনারেল আলী আহসান মুহাম্মদ মুজাহিদকে বিচার প্রক্রিয়া থেকে মুক্তি দিয়ে ১৯৭১ সালের স্বাধীনতাকামীদের অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বিচার চাওয়ার প্রতিবাদে দুই দিনের কর্মসূচী ঘোষণা করেছে গণজাগরণ মঞ্চ।

যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ বিচারের দাবিতে গড়ে ওঠা মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার জনকণ্ঠ’কে জানান, আজ শুক্রবার বিকাল চারটায় শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরে বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দেয়া হয়েছে।

আগামী ২ নভেম্বর সোমবার স্থানীয় সময় বিকাল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত ওয়েস্ট লন্ডনে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল’র মূল কার্যালয়ের সামনে গণজাগরণ মঞ্চ, যুক্তরাজ্যের প্রতিবাদ সমাবেশ। কর্মসূচী সফল করতে সকল শ্রেণী পেশার মানুষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ইমরান।

ইমরান বলেন, ‘অবিশ্বাস্য মনে হলেও মহান মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জনের ৪৪ বছর পর এসে ঠিক এই ভাষায়ই মহাকাব্যিক মুক্তিযুদ্ধের বীর যোদ্ধাদের আক্রমণ করেছে মানবাধিকারের নামে দানবাধিকার রক্ষায় ব্যস্থ আন্তর্জাতিক সংগঠন অ্যামনেস্টি!’

তিনি বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের সময়কালে মানবতাবিরোধী অপরাধের সাথে জড়িতদের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে বিচারের শুরু থেকেই দাতাদের ঋণের উপর নির্ভর করে চলা এই সংগঠনটি সেইসব কুখ্যাত যুদ্ধাপরাধীর বাঁচানোর জন্য উঠে পড়ে লাগে এবং তার অংশ হিসেবে নানা সময় মিথ্যা, বানোয়াট, ধৃষ্টতাপূর্ণ ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বক্তব্য দিয়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালকে বিতর্কিত করার অপচেষ্টা করে আসছে। মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বাঁচানোর জন্য তাদের ধারাবাহিক কার্যক্রমে এটা স্পষ্ট হয়ে যায় আদতে তারা কোনো মানবাধিকার রক্ষার সংগঠন নয়, প্রভাবশালী কুখ্যাত দানবদের বাঁচানোর এজেন্ডাপ্রাপ্ত একটি দানবাধিকার সংগঠন মাত্র।’

ইমরান এইচ সরকার আরো বলেন, ‘বিচারপ্রক্রিয়ার এই পর্যায়ে এসে যখন দুই কুখ্যাত মানবতাবিরোধী অপরাধী সালাউদ্দিন কাদের এবং আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের বিচারিক প্রক্রিয়া শেষ হয়ে রায় কার্যকরের দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ ঠিক তখন এই আন্তর্জাতিক সংগঠনটি ঘোমটা ছাড়াই নেমেছে এদের বাঁচানোর মিশন নিয়ে। এই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে তারা বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়েও অত্যন্ত আপত্তিকর বক্তব্য দেয়ার ধৃষ্টতা দেখিয়েছে। গণজাগরণ মঞ্চ এমনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল এর এই ঔদ্ধত্যপূর্ণ ও ন্যাক্কারজনক বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘মহান মুক্তিযুদ্ধ আমাদের সবচেয়ে গৌরবময় অর্জন। মুক্তিযোদ্ধারা আমাদের জাতীয় গর্ব। অসহবংঃু ওহঃবৎহধঃরড়হধষ এর এই বক্তব্যের প্রতিবাদ করা প্রত্যেক বাংলাদেশীর নৈতিক দায়িত্ব। সকলের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি, আসুন ঐক্যবদ্ধভাবে এর প্রতিবাদ জানাই। রুখে দেই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বানচালের সকল দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র। আসুন প্রতিবাদে একাত্ম হই। আমাদের সম্মিলিত বজ্রকণ্ঠে অসহবংঃু ওহঃবৎহধঃরড়হধষ জানুক। ত্রিশ লাখ শহীদের রক্তে পাওয়া বাংলাদেশে যেমন যুদ্ধাপরাধী ও তাদের রক্ষাকর্তাদের কোনো ঠাঁই হবেনা তেমনি সহ্য করা হবেনা মুক্তিযুদ্ধের গৌরবময় ইতিহাসকে কলঙ্কিত করার কোনো অপচেষ্টা।

প্রকাশিত : ২৯ অক্টোবর ২০১৫, ০৬:০২ পি. এম.

২৯/১০/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

জাতীয়



শীর্ষ সংবাদ: