২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

এবার সুন্দরবনের পশুর নদীতে কয়লাবোঝাই কার্গোডুবি ॥ মাস্টার আটক


স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট ও নিজস্ব সংবাদদাতা মংলা ॥ সুন্দরবন সংলগ্ন বাগেরহাটের পশুর নদীতে ৫১০ টন কয়লা নিয়ে একটি কার্গো জাহাজ ডুবে গেছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে মংলার জয়মনির ঘোল এলাকায় পশুর নদীতে কার্গো জাহাজটি ডুবে যায়। এ ঘটনায় সুন্দরবন বনবিভাগের পক্ষ হতে মামলা দায়ের এবং একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কার্গো জাহাজটির মাস্টার মোঃ ভুলু গাজীকে পুলিশ আট করেছে। তবে বুধবার বিকেল পর্যন্ত কার্গো জাহাজটি উদ্ধারে অভিযান শুরু হয়নি।

জাহাজটির মাস্টার মোঃ ভুলু গাজী (৪০) জানান, এমভি জিআর রাজ নামে কার্গোটি ৫১০ টন কয়লা নিয়ে মংলা বন্দরের হারবাড়িয়া থেকে খুলনা যাচ্ছিল। সুন্দরবন সংলগ্ন পশুর নদীতে পৌঁছে কার্গো জাহাজটির তলা ফেটে যায়। তাৎক্ষণিক জাহাজটিকে তীরে আনার চেষ্টা করা হয়। ধীরে ধীরে তাতে পানি উঠতে শুরু করে। জাহাজটি ডুবে যাচ্ছে বুঝতে পেরে মাস্টার ও নাবিকরা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে সাঁতরে তীরে উঠে আসেন। এক পর্যায়ে সাইলো (খাদ্য গুদাম) সংলগ্ন পশুর নদীর জয়মনির ঘোল এলাকায় জাহাজটি ডুবে যায়।

মংলা বন্দরের হারবার কন্ট্রোলরুমের মোঃ বারী জানান, ২৫ হাজার ২৭০ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে মাল্টার পতাকাবাহী জাহাজ এমভি গ্যালভেসটন গত ২৬ অক্টোবর চট্টগ্রাম হয়ে মংলা বন্দরে আসে। কার্গো করে ওই কয়লা পাঠানো হচ্ছিল। কার্গোটিতে কর্মরত ১০ নাবিককে উদ্ধার করে নৌ-পুলিশ ফাঁড়িতে রাখা হয়েছে।

পূর্ব সুন্দরবন বিভাগীয় কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম দুপুরে জানান, ঘটনা তদন্তে বনবিভাগের পক্ষ হতে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা আগামী দুই কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেবেন।

মংলা থানার অফিসার ইনচার্জ লুৎফর রহমান জানান, প্রাথমিকভাবে এক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে দাবি করে বুধবার দুপুরে পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের ফরেস্টার মিজানুর রহমান বাদী হয়ে মংলা থানায় মামলা করেছে। মামলায় ঢাকার সেফ ব্রাদার্স নামে কোম্পানিটির ডুবে যাওয়া এমভি জিআর রাজ কার্গো জাহাজের মালিক দিল খানকে ও মাস্টার মোঃ ভুলু গাজীকে আসামি করা হয়েছে।

জাহাজের মালিক দিল খানের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, বেসরকারি একটি উদ্ধারকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে মংলায় কার্গোটি উদ্ধারের ব্যাপারে যোগাযোগ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে উদ্ধারকারী প্রতিষ্ঠানটি তাদের সকল সরঞ্জাম নিয়ে মংলায় পৌঁছাবার কথা রয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: