মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

বিদেশি হত্যায় বিএনপির সংশ্লিষ্টতা নেই- রিপন

প্রকাশিত : ২৮ অক্টোবর ২০১৫, ০৬:৩০ পি. এম.

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিদেশি হত্যায় বিএনপির কোন সংশ্লিষ্ঠতা নেই বলে জানিয়েছেন দলটির মুখপাত্র ও আন ্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন। বুধবার বিকেলে দলের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান। এদিকে বিকেলে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় কৃষক দল আয়োজিত দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, কেউ ব্যক্তিগতভাবে কাউকে হত্যা করলে বিএনপি তার দায় নেবে না।

রিপন বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ঢাকা মহানগর বিএনপি নেতা এম এ কাইয়ুমকে দুই বিদেশি হত্যাকান্ডে জড়িত এবং কথিত ‘বড়ভাই’ আখ্যা দেয়ায় আমরা তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এ ঘটনায় যাদের গ্রেফতারার করা হয়েছে বিএনপির সঙ্গে তাদের কোনো প্রকার সংশ্লিষ্টতা নেই। কিন্তু বিএনপি ও দলের নেতাদের জড়িয়ে অপপ্রচার করা হচ্ছে।

রিপন বলেন, বিদেশি হত্যার ঘটনার পর থেকেই সরকারের কয়েকজন মন্ত্রী-এমপি রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের প্রতি ইঙ্গিত দিয়ে আসছিল। সরকারের এরকম মনোভবের কারণে প্রকৃত খুনিরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে চলে যাবে। তাই রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে দমন করার উদ্দেশে যাতে বিএনপিকে জড়ানো না হয় এজন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

রিপন বলেন, সরকার সমর্থক একটি পত্রিকায় তাজিয়া মিছিল থেকে হামলার বিষয়ে নানা পরিকল্পনা নিয়ে রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। প্রতিবেদনটি ২১ অক্টোবর প্রকাশিত হলেও ঘটনা ঘটেছে ২৪ অক্টোবর। যেহেতু গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে। তাই আইনশৃংখলা বাহিনী তৎপর থাকলে এ ঘটনা এড়ানো যেতো।

রিপন বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সম্প্রতি দুই বিদেশি হত্যার ঘটনায় রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা প্রমাণের লক্ষ্যে উদ্দেশ্যপ্রোণোদিতভাবে বিএনপির দু’জন নেতার নাম উল্লেখ করেছেন। একটি বেসরকারী টেলিভিশনকে তিনি বলেছেন বিএনপি নেতা কাইয়ুমই সেই ‘বড় ভাই’। তিনি বলেন, বিএনপি আগেই ধারণা করেছিল এই ঘটনায় বিএনপিকে জড়ানো হবে। তাই বিদেশি হত্যাকান্ড নিয়ে বিএনপি যে আশঙ্কা করেছিল সেটাই প্রমাণিত হয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিএনপি হত্যা-খুনের রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। এ দল শুধু গণতান্ত্রিক পন্থায় প্রতিবাদ করে থাকে। কোনো চোরাগলি বা ষড়যন্ত্রের পথ দিয়ে ক্ষমতার যাওয়ার নীতিকে বিএনপি ঘৃণা করে। এ ছাড়া রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে দলটি রাজনৈতিকভাবেই মোকাবিলা করতে চায়। তাই নিরপেক্ষ তদন্তে বিদেশি হত্যায় বিএনপির সম্পৃক্ততা থাকার কোনো কারণই নেই। তাই এ নিয়ে সরকারকে ব্লেম গেম বন্ধে করতে হবে। বিএনপি অতীতেও ক্ষমতায় ছিল, ভবিষ্যতেও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জনগণের ভোটের মাধ্যমে আবার ক্ষমতায় আসবে।

আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, বিএনপি নেতা কাইয়ুম ও সোহেলকে জড়িয়ে যে আজগুবি ও কাল্পনিক অসত্য কথা বলা হচ্ছে তাতে সত্যের লেশমাত্র নেই। যে চারজনকে বিদেশি হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের বিএনপির সঙ্গে সম্পর্ক নেই। অথচ দুই বিদেশি হত্যার ঘটনায় বিএনপিকে আন্তর্জাতিক মহলে সন্ত্রাসী সংগঠন বানানোর অপচেষ্টা করা হচ্ছে। সরকারকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, বিরোধীদলকে সন্ত্রাসী সাজানোর নাটক বন্ধ করুন। তা নাহলে দেশের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হবে। দেশে বিনিয়োগ ক্ষতিগ্রস্থ হবে, মানুষ আতঙ্কিত হবে।

সংবাদে সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সহ-দফতর সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন, শামীমুর রহমান শামীম প্রমুখ।

প্রকাশিত : ২৮ অক্টোবর ২০১৫, ০৬:৩০ পি. এম.

২৮/১০/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

জাতীয়



শীর্ষ সংবাদ: