১২ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

চিকিৎসার নামে কিশোরীকে ধর্ষণ করেছে কবিরাজ


স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর লালবাগে চিকিৎসার নামে এক কবিরাজ কর্তৃক এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। পরে ওই কিশোরীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে আজিমপুরের শাহ সাহেব গলির মালেক ফকিরের কবিরাজঘরের গোপন কক্ষে এ ঘটনা ঘটে।

ধর্ষিত কিশোরীর ফুপু জোবায়েদা জানান, তার ভাইঝি (১৬) পূর্ব রামপুরায় থেকে একটি গার্মেন্টে চাকরি করে। কয়েকদিন ধরে সে পেটের পীড়ায় ভুগছিল। মঙ্গলবার সকালে ভাইঝি পেটের ব্যথার কারণে তার লালবাগ থানার শহীদনগরের ৫ নম্বর গলির ১১ নম্বর বাসায় আসে। বিকেলে চিকিৎসার জন্য আজিমপুরের শাহ সাহেব গলির মালেক ফকিরের বাসায় নিয়ে যান। এ সময় মালেক ফকির চিকিৎসার কথা বলে ভাইঝিকে অন্য একটি রুমে নিয়ে যায়। মালেক ফকিরের স্টাফ রাসেল তার ভাইঝির হাত-পা বেঁধে ফেলে। এ সময় কবিরাজ মালেক ফকির তার স্টাফ রাসেলকে সেখান থেকে বের করে দেয়। তিনি জানান, ভাইঝি কবিরাজের কক্ষ থেকে বের হতে দেরি হওয়ায় তার সন্দেহ হয়। তিনি জানান, অনেকক্ষণ পরও তার ভাইঝি না ফিরলে পাশের রুমে গিয়ে তাকে উলঙ্গ অবস্থায় দেখেন। এ সময় মালেক ফকির ও তার সহযোগী পালিয়ে যায়। পরে তিনি ভাইঝিকে গুরুতর আহতাবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন। ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মোজাম্মেল হক জানান, সংশ্লিষ্ট থানায় ঘটনাটি জানানো হয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: