২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

চাঞ্চল্যকর রাজন হত্যা মামলার রায় ৮ নবেম্বর


স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ আগামী ৮ নবেম্বর সিলেটের চাঞ্চল্যকর শিশু রাজন হত্যা মামলার রায়ের তারিখ ধার্য করেছে আদালত। মঙ্গলবার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক আকবর হোসেন মৃধা রায়ের তারিখ ঘোষণা করেন। রাজন হত্যা মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের শেষদিন ছিল মঙ্গলবার। এর আগে গত রবি ও সোমবার উভয় পক্ষের আইনজীবী আদালতে তাদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। মঙ্গলবার ৩য় দিনের মতো যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আদালতের বিচারক আকবর হোসেন মৃধা রায়ের তারিখ ঘোষণা করেন।

এর আগে ওই মামলায় ৩৬ সাক্ষী তাদের সাক্ষ্য প্রদান করেন। মামলার প্রধান আসামি কামরুল ইসলামের আবেদনের প্রেক্ষিতে তার আইনজীবী ১১ সাক্ষীকে পুনরায় জেরা করেন। মহানগর দায়রা জজ আদালতের পিপি মফুর আলী জানান, যুক্তিতর্ক শেষে আদালত রায়ের তারিখ ঘোষণা করেছে। আমরা আশাবাদী মামলার সকল আসামিকে সর্বোচ্চ শাস্তি দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ৮ জুলাই কুমারগাঁওয়ে চোর অপবাদ দিয়ে খুঁটিতে বেঁধে নির্মমভাবে পিটিয়ে খুন করা হয় শিশু রাজনকে। এর পর নির্যাতনের ভিডিওচিত্র ফেসবুকে আপলোড করা হলে সারাদেশে ক্ষোভের সঞ্চার হয়। রাজন সিলেট সদর উপজেলার টুকের বাজার ইউনিয়নের বাদেয়ালি গ্রামের আজিজুর রহমানের ছেলে।

এদিকে ছেলের হত্যা মামলার রায়ের তারিখ ঘোষণা হওয়ার পরপরই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন শিশু সামিউল আলম রাজনের বাবা শেখ আজিজুর রহমান। তার কান্নায় মুহূর্তেই ভারি হয়ে ওঠে আদালত চত্বর। স্বজনসহ উপস্থিত অনেককেই এসময় তাকে শান্তনা দিতে দেখা যায়। দুপুর আড়াইটায় মহানগর দায়রা জজ আকবর হোসেন মৃধা রায়ের তারিখ নির্ধারণ করেন। আইনজীবীদের মুখে রায়ের তারিখ শোনার পরই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন শেখ আজিজুর রহমান। আদালতের বারান্দায় বসে পড়ে হাউমাউ করে কান্না শুরু করেন তিনি। রাজনের বাবার কান্না দেখে উপস্থিত অনেককেই এসময় চোখ মুছতে দেখা যায়।

রায়ের তারিখ ঘোষণার পর আবেগতাড়িত শেখ আজিজুর রহমান কান্নাজড়িত কণ্ঠে ছেলের হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেন।