২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

খালেদা ফের আগুন নিয়ে নামছেন, বোমাবাজি করছেন ॥ মতিয়া


বিশেষ প্রতিনিধি ॥ আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত ধর্মকে ব্যবহার করে মানুষ খুন করে। খালেদা জিয়া আবারও আগুন নিয়ে নামছেন, আবারও বোমাবাজি করছেন। এটা তো পরিষ্কার, কারা এ সমস্ত হত্যাকা- করছে। এ সকল অপশক্তির বিরুদ্ধে আমাদের গণজাগরণ সৃষ্টি করতে হবে। জনতার সমুদ্রে এদের চিরতরে বঙ্গোপসাগরে ভাসিয়ে দিতে হবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউর আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাখতে গিয়ে তিনি এ সব কথা বলেন। জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে রাজধানীর সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যানে ২ নবেম্বর আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভা সফল করতে এ বিশেষ বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়।

পদ্মা সেতুতে দুর্নীতির অভিযোগ উত্থাপনকারী বিশ্বব্যাংকসহ অন্যদের ‘কান ধরে ওঠবস’ করা উচিত মন্তব্য করে মতিয়া চৌধুরী বলেন, বিশ্বব্যাংক বলেছিল পদ্মা সেতুতে দুর্নীতি হয়েছে। কিন্তু কানাডার কোর্টে প্রমাণিত হয়েছে দুর্নীতি হয়নি। এরপর শুধু তারা না, যারা বলেছে পদ্মা সেতুতে দুর্নীতি হয়েছে, তাদের সবাইকে কান ধরে ওঠবস করা উচিত।

এ প্রসঙ্গে তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, পদ্মা সেতু নিয়ে যাদের দুর্নীতিবাজ বলেছিল, কোর্টে নির্দোষ প্রমাণ হওয়ার আগে তাদের জীবনের দিনগুলো কীভাবে কেটেছে? অনেকে তো আত্মহত্যার পর্যায়ে চলে গিয়েছিল। তারা যখন রাস্তা দিয়ে বের হয়, ছেলে-মেয়ে সামনে ফিসফিস শব্দ করতো। এরা চোর, এরা দুর্নীতিবাজ। এ জীবন মানুষের জন্য কত দুর্বিষহ। যারা ভদ্রলোক, যাদের মানসম্মানের জ্ঞান আছে- একমাত্র তারাই উপলব্ধি করতে পারে। বিশ্বব্যাংক যাদের বিনা অপরাধে চোর বলেছে, দুর্নীতিবাজ বলেছে- আজকে তাদের কাছে কীসের কৈফিয়ত? আপনার (বিশ্বব্যাংক) সিগারেটের আগুনে আমার শার্ট পুড়ে গেল, এখন বলেন ‘সরি’ (দুঃখিত)। কাজেই এ সমস্ত সংস্থার সাবধানে কথা বলা উচিত।

বিএনপি-জামায়াতের কঠোর সমালোচনা করে মতিয়া চৌধুরী বলেন, বিএনপি-জামায়াত ধর্মের কথা বলে। আমরা জানি আমাদের ধর্ম কিতাবে আছে- শবে বরাতের পবিত্র রাত, এ রাত ইবাদতের রাত। এ রাতে বৃক্ষরাজি গাছপালাও ইবাদত করে। সেই রাতে যারা কুমিল্লার দাউদকান্দিতে বাসে পেট্রোলবোমা মেরে ঘুমন্ত মানুষ হত্যা করেছে, তারাই পবিত্র আশুরার দিন একই কাজ করেছে। এদের কাছে ধর্ম, ধর্ম না। ধর্মকে ব্যবহার করে এরা মানুষ খুন করে। ২ নবেম্বরের জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ওই জনসমুদ্রের উত্তাল তরঙ্গে অপশক্তিরা চিরতরে ভেসে যাবে।

আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেন, বাংলাদেশে আইএসের কোন অস্তিত্ব নেই। তারপরও জোর করে বাংলাদেশের ওপর আইএস চাপিয়ে দেয়া হচ্ছে। পশ্চিমা বন্ধুদের বলবো- বাংলাদেশে যদি জঙ্গী খুঁজতে চান, তাহলে বিএনপি জামায়াতের মধ্যে খুুঁজুন। বিএনপি-জামায়াতের বিভিন্ন সংস্করণের নাম হলো হরকাতুল জিহাদ, জেএমবি। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া লন্ডনে গিয়েছেন চিকিৎসার জন্য। কিন্তু সবাই আশঙ্কা করছে তিনি সেখানে গেছেন কোন দুরভিসন্ধির জন্য। কারণ ইতোপূর্বে তিনি কখনও লন্ডনে চিকিৎসা করেননি। আর তিনি লন্ডনে যাওয়ার পরেই দেশে শুরু হলো নতুন করে ষড়যন্ত্র। ত্রাণমন্ত্রী ও নগরের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম বলেন, আজকে দেশের এই অবস্থার জন্য খালেদা জিয়াই দায়ী। আমি স্বপ্ন দেখি, খালেদা জিয়া আর দেশে ফিরবেন না। তিনি দেশে বসে মানুষ মারেন, বিদেশে বসেও মানুষ মারেন। তারা মানুষ হত্যা ছাড়া আর কোন কথা নেই। ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ আজিজের সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- নগর নেতা আওলাদ হোসেন, শেখ বজলুর রহমান, মুকুল চৌধুরী, শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: