মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১ আশ্বিন ১৪২৪, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

কালিয়াকৈরে বন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা

প্রকাশিত : ২৮ অক্টোবর ২০১৫

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাজীপুর, ২৭ অক্টোবর ॥ গাজীপুরে বন বিভাগের কালিয়াকৈর রেঞ্জের চন্দ্রা বনবিট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ৫ লাখ টাকা চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করা হয়েছে। উপজেলার চন্দ্রা পল্লীবিদ্যুত জোড়া পাম্প এলাকার মেসার্স রেশমা এন্টারপ্রাইজে মালিকের কাছে র‌্যাব-১ এর মেজর পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজিকালে তপন কুমার দে নামের এক ভুয়া মেজরকে আটকের ঘটনায় এ মামলা দায়ের করা হয়। রেশমা এন্টারপ্রাইজের মালিক জসিম উদ্দিন ইকবাল বাদী হয়ে ভুয়া মেজর তপন কুমার দে এবং তাকে প্ররোচনা দেয়ার জন্য চন্দ্রা বিট কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামের নামে কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

গ্রেফতারকৃত তপন কুমার দে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থানার মাধবসিং গ্রামের জগদিশ চন্দ্র দে’র ছেলে এবং কালিয়াকৈর উপজেলার বিশ্বাসপাড়া এলাকায় বসবাস করে ও রফিকুল ইসলাম জামালপুরের মাদারগঞ্জের জোড়াখালী গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে। সে কালিয়াকৈরের চন্দ্রা বিট অফিসের বিট কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন। মামলার বিবরণে জানা যায়, কালিয়াকৈরের চন্দ্রা বিট কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামের হুকুম ও যোগসাজশে তপন কুমার দে গত ২৩ অক্টোবর সন্ধ্যার দিকে উপজেলার চন্দ্রা জোড়াপাম্প এলাকার মেসার্স রেশমা এন্টারপ্রাইজে প্রবেশ করে নিজেকে র‌্যাব-১ এর মেজর আরিফ পরিচয় দেন। পরে সে ওই প্রতিষ্ঠানের মালিক জসিম উদ্দিন ইকবালের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে বলে জানায়। অভিযোগ থেকে মুক্তি পেতে হলে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না দিলে জসিম উদ্দিন ইকবালকে ক্রসফায়ার দিয়ে লাশ গুম করে ফেলা হবে বলে হুমকি দেয়। এ সময় র‌্যাবের মেজর পরিচয়দানকারী তপন কুমার রফিকুল ইসলামের মোবাইলে ফোন দিয়ে লাউড স্পিকারে শোনায় যে জসিমকে মারিয়া ফেল। তাদের ফোনের কথোপকথন শুনে জসিম উদ্দিন তাৎক্ষণিক বিষয়টি গাজীপুর ডিবি পুলিশকে অবহিত করেন।

ভোমরা স্থলবন্দরে শ্রমিক লাঞ্ছিত ॥ কর্মবিরতি

স্টাফ রিপোর্টার, সাতক্ষীরা ॥ ভোমরা স্থলবন্দরে বিজিবি কর্মকর্তাদের হাতে দুই শ্রমিক লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় আমদানি-রফতানি কার্যক্রম বন্ধ রেখে কর্মবিরতি পালন করছে শ্রমিক-কর্মচারী এ্যাসোসিয়েশন। মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটে। এদিকে, শ্রমিক কর্মচারী এ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে সিএ্যান্ডএফ এ্যাসোসিয়েশন একাত্মতা ঘোষণা করায় বন্দর এলাকায় পণ্য খালাসের অপেক্ষায় পণ্যবাহী ট্রাকের দীর্ঘ লাইন পড়েছে। ভোমরা স্থলবন্দর কর্মচারী এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল আলম মিলন কর্মবিরতির বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বন্দরে সেজুতি এন্টারপ্রাইজের পণ্য স্কেলিং করানোর সময় কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ৩৮ বিজিবি’ এক কর্মকর্তা এ্যাসোসিয়েশনের সদস্য আব্দুর সবুর ও গোলাম রসুলের ওপর চড়াও হয়ে তাদের লাঞ্ছিত করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে কর্মচারী এ্যাসোসিয়েশনের ডাকে তখনই আমদানি-রফতানি কার্যক্রম বন্ধ রেখে কর্মবিরতির ঘোষণা করা হয়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিজিবির উপ-অধিনায় মেজর মোজাম্মেল হক লাঞ্ছিত করার বিষয়টি অস্বীকার করেন জানান, পণ্য স্কেলিংয়ের সময় বিজিবির নোট নেয়ার নির্দেশনা ছিল।

প্রকাশিত : ২৮ অক্টোবর ২০১৫

২৮/১০/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: