২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

উৎপাদনমূখী শিল্প খাতে ঋণ দিতে ৩০ কোটি ডলারের তহবিল


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ উৎপাদনমুখী শিল্প খাতের উদ্যোক্তাদের ঋণের যোগান দিতে ৩০ কোটি ডলারের একটি তহবিলও গঠন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে মাত্র ৫-৬ শতাংশ সুদে বৈদেশিক মুদ্রায় দীর্ঘ মেয়াদী ঋণ বিতরণ করা হবে। মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে বৈদেশিক মুদ্রায় লেনদেনে নিয়োজিত সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এতে বলা হয়েছে, চলতি বছরে ৩০ জুন বিশ্বব্যাংকের বিশ্ব ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশনের (আইডিএ) সঙ্গে একটি অর্থনৈতিব চুক্তি করেছে বাংলাদেশ সরকার। ওই চুক্তির আওতায় ফিন্যান্সিয়াল সেক্টর সাপোর্ট প্রজেক্ট (এফএসএসপি) শীর্ষক একটি প্রকল্প বাস্তবায়ণ করা হবে। এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে বিভিন্ন সংস্কার ও কর্মসূচির মাধ্যমে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন করা। এ তহবিল থেকে ঋণ দিতে আগ্রহী ব্যাংকগুলো প্রকল্প পরিচালক হওয়ার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকে আবেদন করতে হবে।

এই কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য বিশ্বব্যাংকের শর্তানুযায়ী একটি অপারেশনস ম্যানুয়াল প্রস্তুত করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ওই ম্যানুয়ালে বলা হয়েছে, ওই প্রকল্প বাস্তবায়নে ২৯ কোটি ২৫ লাখ ডলারের একটি ঘুর্নায়মান তহবিল গঠন করা হয়েছে। এতে বিশ্বব্যাংক থেকে যোগান দেয়া হয়েছে ২৫ কোটি ৪০ লাখ ডলার এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ থেকে দেয়া হচ্ছে ৩ কোটি ৮৫ লাখ ডলার। এই তহবিল থেকে উদ্যোক্তারা ৫ থেকে ৬ শতাংশ সুদে ৫ বছর, ৭ বছর ও ১০ বছর মেয়াদে বৈদেশিক মুদ্রায় ঋণ নিতে পারবেন। তবে স্বল্প মেয়াদে কোন ঋণ দেয়া হবে না। ঋণের গ্রেস পিরিয়ড থাকবে এক বছর। এক বছর পর থেকে কিস্তি পরিশোধ করতে হবে। মূল ঋণের সঙ্গে সুদের অংকও যোগ করে কিস্তি আদায় করা হবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ক্যামেল রেটিংয়ে যেসব ব্যাংক এক নম্বর তালিকায় রয়েছে তারা এই তহবিল থেকে ৫ বছরে মেয়াদে ৩ শতাংশ, ৭ বছর মেয়াদে সোয়া ৩ শতাংশ এবং ১০ বছর মেয়াদে সাড়ে ৩ শতাংশের সঙ্গে লাইবর রেট যোগ করে সুদের হার নির্ধারিত হবে। বর্তমানে লাইবর রেট হচ্ছে র্শণ্য দশমিক ৪১ শতাংশ। ফলে ওই সুদের হারের সঙ্গে শূণ্য দশমিক ৪১ শতাংশ যোগ হবে। যেসব ব্যাংকের রেটিং দুই, তারা ওই তহবিল থেকে ৫ বছর মেয়াদে সোয়া ৩ শতাংশ, ৭ বছর মেয়াদে সাড়ে ৩ শতাংশ এবং ১০ বছর মেয়াদে পৌনে ৪ শতাংশ সুদে এর পাবেন। এর সঙ্গে যোগ হবে লাইবর রেট। একইভাবে যেসব ব্যাংকের রেটিং তিন, তারা ওই তহবিল থেকে ঋণ পাবেন ৫ বছর মেয়াদে সাড়ে ৩ শতাংশ, ৭ বছর মেয়াদে পৌনে ৪ শতাংশ এবং ১০ বছর মেয়াদে ৪ শতাংশ সুদে। এর সঙ্গে যোগ হবে লাইবর রেট। ব্যাংক এই সুদের হারের সঙ্গে ১ থেকে ৩ শতাংশ যোগ করতে পারবে। এর মধ্যে ব্যাংকের প্রফিট রেট ১ শতাংশ, পরিচালন ব্যয় ১ শতাংশ এবং অন্যান্য ঝুকি খাতে ১ শতাংশ। ব্যাংক ইচ্ছে করলে এই হার আরো কমাতে পারবে। তবে ওই ঋণের ক্ষেত্রে কিছু শর্ত রয়েছে। এর মধ্যে ঋণের টাকায় কোন জমি কেনা যাবে না। একই সঙ্গে ব্যবহার করা যাবে না চলতি মূলধন হিসাবে। অর্থাৎ ঋণের টাকায় শিল্পের কাচামাল আমদানি, শ্রমিকদের ভাতা প্রধানসহ চলতি ব্যয় মেটানো যাবে না। এই অর্থে শিল্পের যন্ত্রপাতি আমদানি ও অবকাঠামো নির্মাণ করা যাবে। সচল শিল্প বিএমআরই করণ বা শিল্পের নতুন ইউনিট স্থাপনে ব্যবহার করা যাবে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: