১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

বঙ্গোপসাগরে গণডাকাতি ॥ ৪টি মাছধরা ট্রলার সহ ৩৭ জেলে অপহরণ


সংবাদদাতা,পাথরঘাটা,বরগুনা ॥ বরগুনার পাথরঘাটা থেকে ৭০ কিলোমিটার দুরে বঙ্গোপসাগরে ফেয়ারওয়ে বয়ার কাছে মাছ ধরার সময় পাথরঘাটার অর্ধ শতাধীক ট্রলারে ডাকাতি করে ৪ ট্রলারসহ ৩৭ জেলেকে অপহরণ করেছে সুন্দরবনের জলদস্যু মাষ্টার বাহিনী। সোমবার দিবাগত রাতে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ডাকাতির সময় দস্যুরা জেলেদেরকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে এলাপাথারী লঠিপেটা করলে শতাধীক জেলে আহত হয়। এর মধ্যে ৭১ জনকে পাথরঘাটায় স্বভাবিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। বরগুনা জেলা ট্রলার শ্রমিক ইউনিয়ন ও ট্রলার মালিক সমিতি পক্ষ থেকে খবরটি নিশ্চিত করেছেন ।দস্যুদের কবল থেকে ফিরে আসা জেলেরা জানান,মুক্তি পনে প্রত্যেক জেলের জন্য ২ লাখ টাকা করে দাবী করেছেন দস্যুরা। অপহৃত ট্রলারসহ জেলেদের সকলের বাড়ি পাথরঘাটা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে।

বরগুনা জেলা ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী জেলেদের বরাত দিয়ে জানান, পাথরঘাটার মাছধরা ট্রলারসহ বিভিন্ন এলাকার শতাধীক ট্রলার ফেয়ারওয়ে বয়ার কাছে ইলিশ শিকারের উদ্দেশ্যে বঙ্গোপসাগরে জাল ফেলে অবস্থান করছিল এসময় সুন্দরবনের জলদস্যু মাস্টার বাহিনীর পরিচয় দিয়ে ৪টি ট্রলার নিয়ে অস্ত্রের মুখে জেলেদেরকে জিম্মি করে ফেলে। এর পর প্রত্যেক ট্রলার থেকে মাছ ও মাঝিদের উঠিয়ে নিয়ে যায় এবং ট্রলারের মাছ ও যন্ত্রাংশ নেয়ার জন্য পাথরঘাটার ৩টি ট্রলার নিয়ে গেছে। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত তারা পাথরঘাটার ৩৭ জেলের নাম ঠিকানা জানতে পেরেছে। তিনি জানান জেলেদের ভাষ্যমতে যা শোনা যাচ্ছে তাতে শতাধীক ট্রলার ডাকাতি হয়েছে বলে ধারনা করছেন।অপহৃত ট্রলারের মালিক ছগির মেম্বর জানান, তাদের ৫৩টি ট্রলার থেকে দস্যুরা ট্রলারের যন্ত্রাংশসহ ২ কোটি টাকার মাছ ও রসদ সামগ্রী নিয়ে গেছে।

এব্যাপারে বরগুনার পাথরঘাটা কোষ্টগার্ড ষ্টেশন কমান্ডার লে. রউফ জানান, ডাকাতির ব্যাপারে আমরা তাৎক্ষনিক জেনেছি এবং আমরা ঘটনা স্থলে যাওয়ার আগেই জলদস্যুরা ঘটনাস্থাল ত্যাগ করেছে। তবে অপহৃত জেলে ও ট্রলার উদ্ধারের জন্য আমরা সুন্দরবনে র‌্যাবসহ ৮টি টিম কাজ করছি। বরিশাল র‌্যাব-৮ এর উপ-অধীনায়ক মেজর আদনান কবির জানান,আমরা জেলেদের উদ্ধারে তৎপর রয়েছি।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: