১২ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ফেরার সুযোগ আসছে আল আমিনের...


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সম্প্রতি বাংলাদেশের পেস আক্রমণ দারুণ প্রভাব বিস্তার করতে সক্ষম হচ্ছে প্রতিপক্ষদের ওপর। সর্বশেষ কয়েকটা সিরিজে বাংলাদেশের পেসাররা উদ্ভাসিত নৈপুণ্য দেখিয়েছেন। কিন্তু জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে আসন্ন হোম সিরিজে পেসার সঙ্কটে পড়তে যাচ্ছে বাংলাদেশ দল। ওয়ানডে ও টি২০ অধিনায়ক এবং পেস বোলিংয়ের অন্যতম নির্ভরতা মাশরাফি বিন মর্তুজা সম্প্রতিই ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে সপ্তাহখানেক হাসপাতালে কাটিয়েছেন। তাই জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে পুরোপুরি ফিট হয়ে খেলতে নামা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় আছে। অন্য দুই নির্ভরযোগ্য পেসার রুবেল হোসেন ও তাসকিন আহমেদের ইনজুরি বড় দুশ্চিন্তার কারণ। সে জন্য বিকল্প চিন্তা করতেই হচ্ছে। ইতোমধ্যেই বাংলাদেশ ‘এ’ দলের সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে থাকা দল থেকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে পেসার আল-আমিন হোসেনকে। রুবেল-তাসকিন সময় মতো ফিট না হতে পারলে আবারও দলে ফেরার দারুণ সুযোগ এ তরুণের। আগামী ২ নবেম্বর বাংলাদেশ সফরে আসবে জিম্বাবুইয়ে ক্রিকেট দল। এবার সিরিজে আছে তিন ওয়ানডে ও দুই টি২০। বৃহস্পতিবার থেকে জাতীয় দলের অনুশীলন ক্যাম্প শুরু হবে। আজই ঘোষণা হতে পারে জাতীয় দল।

অস্ট্রেলিয়া শেষ মুহূর্তে সফর স্থগিত করে নিরাপত্তা শঙ্কার কথা জানিয়ে। চলতি মাসেই আসার কথা ছিল তাদের। অসিরা না আসাতে জিম্বাবুইয়েকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ২ নবেম্বর বাংলাদেশে আসার পর ৫ তারিখে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে তারা ফতুল্লায়। এর আগেই অবশ্য জাতীয় দল ঘোষণা করা হবে। কারণ ৭ নবেম্বর প্রথম ওয়ানডে। এ সিরিজটি পূর্ব নির্ধারিত ছিল না, তবে ‘এ’ দলের দক্ষিণ আফ্রিকা ও জিম্বাবুইয়ে সফর ছিল পূর্ব নির্ধারিত। আগামী ৩০ অক্টোবর বাংলাদেশ ‘এ’ দলের জিম্বাবুইয়ে সফর শুরু হবে আনুষ্ঠানিকভাবে। সে কারণে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে থাকা দল থেকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে ৬ ক্রিকেটারকে। ফিরেছেন সাব্বির রহমান রুম্মান, সৌম্য সরকার, আল আমিন হোসেন, জুবায়ের হোসেন, কামরুল ইসলাম রাব্বি ও লিটন কুমার দাস। জিম্বাবুইয়ে সফরে ‘এ’ দলের সঙ্গে যোগ দেয়ার জন্য যাবেন দেওয়ান সাব্বির, নুরুল হাসান সোহান, নাঈম ইসলাম, তাসামুল হক ও মুক্তার আলী। ঘরের মাটিতে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে ৩ ওয়ানডে ও ২ টি২০ ম্যাচের সিরিজে নিশ্চিতভাবেই পেস বিভাগ নিয়ে বড় দুশ্চিন্তায় পড়তে যাচ্ছে বাংলাদেশ। রুবেল, তাসকিন ইনজুরিতে এবং মাশরাফি সবেমাত্র অসুস্থতা কাটিয়ে উঠেছেন। রুবেল-তাসকিনের ফেরা নিয়ে আছে যথেষ্ট সংশয়। শেষ পর্যন্ত তারা জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে খেলতে না পারলে বিকল্প পেসার নিয়ে চিন্তা করতে হবে বাংলাদেশ দলকে। এ বিষয়ে জাতীয় দলের নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু রবিবার বলেন, ‘জাতীয় দলের বাইরে যেসব পেসাররা ঘরোয়া লীগে খেলছেন তাদের পারফর্মেন্স খুব বেশি ভাল নয়। তাই তাদের দিয়ে খেলানোও সম্ভব নয়।’ তবে, তিনি জানিয়েছেন মাশরাফির জন্য শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত অপেক্ষা করা হবে। এছাড়া তাসকিন কিছুদিনের মধ্যে ফিটনেস টেস্টে অংশ নেবে। তারপরই বোঝা যাবে তিনি কতটা ফিট। ওই রিপোর্টের ওপর ভিত্তি করেই নির্ভর করছে তাসকিনের জিম্বাবুইয়ে সিরিজে খেলা। আর সেজন্যই আপাতত ‘এ’ দলের সঙ্গে সফরে থাকা দুই পেসার আল আমিন ও কামরুলকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। আল আমিন সর্বশেষ জাতীয় দলে ছিলেন চলতি বছর শুরুর দিকে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে। কিন্তু শৃঙ্খলা ভঙ্গের অপরাধে তাকে মাঝপথেই দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। তারপর থেকেই দলের বাইরে এ তরুণ পেসার।

জাতীয় দল গত আগস্টের পর থেকেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ব্যস্ততা থেকে বাইরে। তবে অনেকেই চলমান লঙ্গারভার্সন আসর জাতীয় ক্রিকেট লীগে (এনসিএল) খেলেছেন। জাতীয় দলের কোচ চান্দ্রিকা হাতুরাসিংহে বর্তমানে ছুটিতে আছেন। তিনি বুধবার দেশে ফেরার কথা রয়েছে। হাতুরাসিংহে ফেরার পরদিন থেকেই জাতীয় দলের ক্যাম্প শুরু হবে। এর আগেই আজ জিম্বাবুইয়েকে মোকাবেলার জন্য জাতীয় দল ঘোষণা করতে পারে বিসিবি। হাতুরাসিংহে ফিরলে চূড়ান্ত দল ঘোষণার করা হবে। অবশ্য নির্বাচকদের হাতে এখন ট্রাম্প কার্ড হয়ে গেছেন তরুণ পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। ‘কাটার’ দেয়ার দারুণ ক্ষমতার জন্য তিনি বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: