২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৯ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

নেত্রকোনায় আরও এক হিন্দু ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা ॥ বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার


নিজস্ব সংবাদদাতা, নেত্রকোনা, ২৬ অক্টোবর ॥ নেত্রকোনায় আরও এক হিন্দু ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। তার নাম ভজন দাস (২৮)। তিনি কলমাকান্দা উপজেলার খারনৈ ইউনিয়নের বিষ্ণপুর-বাঘারপাড় গ্রামের সুনীল দাসের ছেলে। সোমবার সকালে কলমাকান্দা সদরের পশ্চিমবাজারে অবস্থিত মল্লিক অটোরাইস মিলের পেছনের একটি ডোবা থেকে তার বস্তাবন্দী ও গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ ফজর আলী (৩৫) ও ফাইজুল (৩০) নামে দু’জনকে আটক করেছে। জানা গেছে, ভজন দাস কলমাকান্দা সদরের পশ্চিম বাজারে মাছের আড়তের ব্যবসা করতেন। গত বুধবার রাতে পার্শ্ববর্তী গুজাগুলিয়া বাজার থেকে দুর্গাপূজা দেখে বাসায় ফেরার সময় তিনি নিখোঁজ হন। কোন হদিস না পেয়ে শনিবার তার বাবা সুনীল দাস স্থানীয় থানায় জিডি করেন। সোমবার সকালে এলাকাবাসী পশ্চিমবাজারের মল্লিক অটোরাইস মিলের পিছনের ডোবায় বস্তাবন্দী লাশের সন্ধান পেয়ে পুলিশে খবর দেন। পরে কলমাকান্দা থানা পুলিশ বস্তাবন্দী গলিত লাশ এবং এর প্রায় ৫০ গজ দূর থেকে তার বিচ্ছিন্ন মাথা উদ্ধার করে। পরে পরনের শার্ট ও প্যান্ট দেখে সুনীল দাস এটিকে তার ছেলে ভজনের লাশ বলে শনাক্ত করেন। নিহত ভজন দাসের স্ত্রী বর্তমানে অন্তঃসত্ত্বা।

কলমাকান্দা থানার ওসি বশির আহমেদ জানান, ধারণা করা হচ্ছেÑ চার-পাঁচদিন আগে ওই যুবককে হত্যা করা হয়। নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা মর্গে পাঠানো হয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান প্রামাণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি জানান, হত্যাকা-ে জড়িত সন্দেহে ফজর আলী (৩৫) ও ফাইজুল (৩০) নামে যে দু’জনকে আটক করা হয়েছেÑ তারা এক সময় নিহত ভজন দাসের ব্যবসায়িক অংশীদার ছিলেন। কিছুদিন আগে অভ্যন্তরীণ বিরোধের কারণে তারা টাকা-পয়সা নিয়ে আলাদা হয়ে যান। হত্যায় জড়িত সন্দেহে আরও কয়েকজনকে খোঁজা হচ্ছে বলেও জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

প্রসঙ্গত এর আগে গত শুক্রবার পার্শ্ববর্তী দুর্গাপুর উপজেলা সদরের মধ্যবাজারে অরুণ কুমার সাহা (৭৪) নামে এক কোটিপতি হিন্দু ব্যবসায়ী ও তার স্ত্রী হেনা রানী সাহাকে (৬৫) নিজ ঘরে নৃশংসভাবে জবাই করে হত্যা করা হয়।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: