১৫ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

‘রাত ১২টার পরে’ আঁখি আলমগীর


‘রাত ১২টার পরে’ আঁখি আলমগীর

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দেশের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী আঁখি আলমগীর। এরই মধ্যে সঙ্গীতাঙ্গনে অসংখ্য জনপ্রিয় গান উপহার দিয়েছেন। নতুন নতুন আধুনিক গান স্টেজ শোর পাশাপাশি প্লেব্যাকে ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। এবার নতুন একটি চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দিলেন তিনি। পরিচালক দেওয়ান নাজমুল পরিচালিত ‘রাত ১২টার পরে’ নামের একটি চলচ্চিত্র প্লেব্যাক করলেন কণ্ঠশিল্পী আঁখি আলমগীর। দুই নবীন পরিচালক আলাউদ্দিন হক ও রবিন ইসলামের সঙ্গীত পরিচালনায় এই চলচ্চিত্রের দুটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন আঁখি আলমগীর। ‘কুহু কুহু ডাকে’ ও ‘কাঞ্চা মনে এই রঙ রাঙালী’ শীর্ষক গান দুটির গীতিকার চলচ্চিত্রের পরিচালক দেওয়ান নাজমুল নিজেই। ‘কাঞ্চা মনে এই রঙ রাঙালী’ দ্বৈত গানে আঁখির আলমগীরের সহশিল্পী ছিলেন সঙ্গীত পরিচালক রবিন ইসলাম। আরেকটি গান তার একক কণ্ঠে। নতুন চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক প্রসঙ্গে আঁখি আলমগীর বলেন, দুটো গানই পাহাড়ী ঢংয়ের। একটি মেলোডি সং অন্যটি কিছুটা আইটেম ধাঁচের। দুটি গান ঠিক দু’রকম। চলচ্চিত্রের নায়িকা পাহাড়ী মেয়ে আর তার লিপেই যাচ্ছে আমার গাওয়া গান। স্বাভাবিকভাবেই গানের কথাগুলো পাহাড়ী ভাষায়। গানের কথা, সুর ও সঙ্গীতায়োজনে অনেক বৈচিত্র্য রয়েছে। গানদুটো গেয়ে আমার খুব ভাল লেগেছে। আশা করছি দর্শকদেরও ভাল লাগবে। আঁখি আলমগীর আরও জানান, ‘রাত ১২টার পরে’ আমার সর্বশেষ প্লেব্যাক। আপাতত নতুন কোন চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করছি না। তবে কথাবার্তা চলছে। আশা করি অচিরেই আবার প্লেব্যাক করব। পরিচালক দেওয়ান নাজমুল বলেন, ‘রাত ১২টার পরে’ শতভাগ হরর চলচ্চিত্র। প্রেক্ষাপট পাহাড়ী এলাকা হওয়াতে গানগুলো পাহাড়ী ভাষায় লিখতে হয়েছে। বলতে গেলে আমার গল্পে ভাষাগত জটিলতা আছে। তাই কণ্ঠশিল্পী নিয়ে বেশ টেনশনে ছিলাম। কিন্তু আঁখি আলমগীর তার পুরোটাই উৎরে গেছেন। অনেকদিন পর বাংলাদেশে একজন শিল্পী পেলাম যার কাছে ভাষাগত কোন জটিলতা নেই। সাবলীলভাবেই গানের কথাগুলো সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে পেরেছেন। আগামী মাসে চলচ্চিত্রটির শূটিং শুরু হচ্ছে বলে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান স্বপ্নতরু সূত্রে জানা গেছে। এদিকে সঙ্গীতে বিশেষ অবদানের জন্য আগামী ২৯ অক্টোবর কলকাতা মৈত্রী সম্মাননা ২০১৫ পেতে যাচ্ছেন আঁখি আলমগীর। কলকাতার বিরলা একাডেমি আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষামন্ত্রী, পর্যটনমন্ত্রী ও রাজ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে তিনি এ সম্মাননা গ্রহণ করতে যাচ্ছেন।