মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১০ আশ্বিন ১৪২৪, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

রেকর্ড ডেটের কার্যকারিতা নেই ৩ ফান্ডের লেনদেন বহাল থাকবে

প্রকাশিত : ২৬ অক্টোবর ২০১৫, ০৬:০১ পি. এম.

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ উচ্চ আদালতের স্থগিতাদেশের কারণে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৩ মেয়াদি মিউচুয়াল ফান্ড অবসায়নে কিংবা বে-মেয়াদি ফান্ডে রূপান্তরে ঘোষিত রেকর্ড ডেটের কার্যকারিতা নেই বলে জানিয়েছে ফান্ডগুলোর ট্রাস্টি ও সম্পদ ব্যবস্থাপকরা। ফলে রেকর্ড ডেটে ফান্ডগুলোর লেনদেন বন্ধের যে ঘোষণা আগে দেওয়া হয়েছিল সেটি আর বহাল থাকছে না। পূর্বঘোষিত রেকর্ড ডেটেও ফান্ডগুলোর লেনদেন হবে। শুধু তাই নয়, স্পট মার্কেটের পরিবর্তে ‘পাবলিক মার্কেট’ এ ফান্ডগুলোর লেনদেন চালু থাকবে। ফান্ডগুলো হলো - আইসিবি ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, এইমস ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড ও গ্রামীণ মিউচুয়াল ফান্ড-১। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগে আগস্ট মাসে এ তিনটি মেয়াদি ফান্ডের ট্রাস্ট্রি বোর্ড ফান্ডগুলো অবসায়ন কিংবা বে-মেয়াদি ফান্ডে রূপান্তরে রেকর্ড ডেট ঘোষণা করেছিল। আইসিবি ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের রেকর্ড ডেট ঘোষণা করা হয়েছিল ২৮ অক্টোবর এবং ইফেক্টিভ ডেট ঘোষণা করা হয়েছিল ২৯ অক্টোবর। এ ফান্ডটির সম্পদ ব্যবস্থাপনায় রয়েছে আইসিবি। অপরদিকে এইমস ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড ও গ্রামীণ মিউচুয়াল ফান্ড-১ এর রেকর্ড ডেট ঘোষণা করা হয়েছিল ২৯ অক্টোবর ও ইফেক্টিভ ডেট ঘোষণা করা হয়েছিল ১ নবেম্বর। এ দুটি ফান্ডের সম্পদ ব্যবস্থাপনায় রয়েছে এইমস বাংলাদেশ।

ঘোষিত রেকর্ড ডেট অনুযায়ী এ ফান্ডগুলোর লেনদেন বন্ধ থাকার কথা ছিল। আর ইফেক্টিভ ডেট থেকে ফান্ডের সম্পদ ও দায়ের সার্বিক নিয়ন্ত্রণ সম্পদ ব্যবস্থাপকের হাত থেকে ট্রাস্টির হাতে চলে যাওয়ার কথা ছিল। রেকর্ড ডেটে যাদের হাতে সংশ্লিষ্ট মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট থাকবে, তারা ইউনিটহোল্ডারদের সভায় অংশ নিতে পারতেন। তারা ট্রাস্টি কমিশনের কাছে বে-মেয়াদিতে রূপান্তরের প্রস্তাব কিংবা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ফান্ড অবসায়নের প্রক্রিয়া শুরুর প্রস্তাব করতে পারতেন।

তবে গত ১৩ সেপ্টেম্বর ফান্ডগুলোর অবসায়নে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) নির্দেশনার উপর ৬ মাসের জন্য স্থগিতাদেশ জারি করেন উচ্চ আদালত। মির্জা হোসেন হায়দার ও এ কে এম জহিরুল হকের দ্বৈত বেঞ্চ স্থগিতদেশ জারি ও ৬ সপ্তাহের মধ্যে বিএসইসি, আইসিবি ও এইমসকে রূলের জবাব দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন। ফান্ডগুলো যেভাবে চলছে সেভাবে চলমান রাখার নির্দেশনা চেয়ে আলী জামান নামে এক বিনিয়োগকারীর রিটের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত এ আদশ দেন। তবে আদালতের স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধে আপীল করেছে বিএসইসি। তবে আপীল নিষ্পত্তি না হওয়ায় উচ্চ আদালতের স্থগিতাদেশের বিষয়টি এখনও বহাল রয়েছে।

এমতাবস্থায় আদালত অবমাননা হবে বিধায় পূর্বঘোষিত রেকর্ড ডেটের কার্যকারিতা নেই বলে জানিয়েছে ফান্ডগুলোর ট্রাস্টি ও সম্পদ ব্যবস্থাপকরা।

উল্লেখ্য, মেয়াদি মিউচুয়াল ফান্ডের মেয়াদ ১০ বছর পূর্ণ হলে তা অবসায়নে ২০১০ সালের ২৯ জুন একটি নির্দেশনা জারি করে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। নির্দেশনা জারির সময়ে যেসব ফান্ডের মেয়াদ ১০ বছর পূর্ণ হয়ে গেছে তাদের ২০১১ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে অবসায়নের সময়সীমাও বেঁধে দেওয়া হয়েছিল নির্দেশনায়। আইসিবি পরিচালিত ৮ ফান্ডের মেয়াদ ১০ বছর পূর্ণ হলেও আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ফান্ডগুলোর মেয়াদ কয়েক দফা বৃদ্ধি করে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। সম্প্রতি বিএসইসি মেয়াদি ফান্ডকে বে-মেয়াদি ফান্ডে রূপান্তরের সুযোগ রেখে মিউচুয়াল ফান্ড বিধিমালা সংশোধন করে। এছাড়া যেসব ফান্ডের মেয়াদ ১০ বছর পূর্ণ হয়েছে সেসব ফান্ড অবসায়ন বা বে-মেয়াদি ফান্ডে রূপান্তরে সময়সীমাও বেঁধে দিয়েছে। এতে আইসিবি পরিচালিত আটটি মেয়াদি ফান্ডকে ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বরর মধ্যে এবং এইমস পরিচালিত এইমস ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড ও গ্রামীণ মিউচুয়াল ফান্ড ওয়ানকে ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে গুটিয়ে নেওয়া বা বে-মেয়াদি ফান্ডে রূপান্তরের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

প্রকাশিত : ২৬ অক্টোবর ২০১৫, ০৬:০১ পি. এম.

২৬/১০/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: