২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সেল্টা ভিগোর চমক থামাল রিয়াল মাদ্রিদ


সেল্টা ভিগোর চমক থামাল রিয়াল মাদ্রিদ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ যেন আকাশে উড়ছিল সেল্টা ভিগো। স্প্যানিশ লা লিগার নতুন মৌসুমের শুরু থেকেই চমকের পর চমক দেখিয়ে চলছিল দলটি। বার্সিলোনাকে উড়িয়ে দেয়া সেল্টা পয়েন্ট তালিকারও শীর্ষে ছিল লম্বা সময়। অবশেষে দলটির চমক থামিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। লীগে সেল্টাকে প্রথম হারের স্বাদ দিয়েছে রাফায়েল বেনিতেজের দল। শনিবার রাতে সেল্টা ভিগোকে তাদেরই মাঠে ৩-১ গোলে পরাজিত করে অতিথি রিয়াল মাদ্রিদ।

পরশুর অন্য ম্যাচে মালাগা ২-০ গোলে ডিপোর্টিভো লা করুনাকে ও সেভিয়া ৫-০ গোলের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত করে গেটাফেকে। গ্রানাডা ও রিয়াল বেটিসের মধ্যকার ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়। সেভিয়ার দুর্দান্ত জয়ে দৃষ্টিনন্দন হ্যাটট্রিক করেন কেভিন গামেইরো। তিনি গোলগুলো করেন ম্যাচের ৩৫, ৪৫ ও ৫৯ মিনিটে। বিজয়ী দলের হয়ে অপর গোল দুটি করেন এভার বানেগা ও ইয়েভেন কোনোপ্লায়েঙ্কা। সেল্টাকে মাটিতে নামিয়ে লীগের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে রিয়াল। নয় ম্যাচে সর্বোচ্চ ২১ পয়েন্ট ভা-ারে তাদের। হারের পরও ১৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে সেল্টা ভিগো। রবিবারের ম্যাচের আগে সমান পয়েন্ট নিয়ে তিনে ছিল বার্সিলোনাকে। এইবারকে হারিয়ে থাকলে কাতালানরা তালিকার দুইয়ে উঠে আসবে।

সেল্টার মাঠে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলতে থাকে রিয়াল। গ্যারেথ বেল, করিম বেনজেমা, জেমস রড্রিগুয়েজের মতো তারকারা না থাকলেও জয় পেতে সমস্যা হয়নি গ্যালাক্টিকোদের। ম্যাচের অষ্টম মিনিটেই এগিয়ে যায় রিয়াল। এ সময় বামপ্রান্ত থেকে স্প্যানিশ মিডফিল্ডার লুকাস ভাসকেসের আড়াআড়ি পাস পেয়ে দারুণ শটে বল জালে জড়ান পর্তুগীজ তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। এবারের লীগে সি আর সেভেনের এটা সপ্তম গোল। শুরতেই পিছিয়ে পড়ার ধাক্কা দ্রুত সামলে আক্রমণে ওঠে স্বাগতিক সেল্টা। পরের মিনিটেই পাল্টা আক্রমণে সমতায় ফেরার সুযোগ ছিল তাদের। কিন্তু নোলিতোর প্রচেষ্টা কাজে লাগেনি। ১৬ মিনিটে সহজ সুযোগ হাতছাড়া করে স্বাগতিকরা। চিলির স্ট্রাইকার ফ্যাবিয়ান ওরেয়ানার শট ঝাঁপিয়ে পড়ে রিয়ালকে রক্ষা করেন গোলরক্ষক কেইলর নাভাস। সেল্টা না পারলেও ম্যাচের ২৩ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে জয় অনেকটা নিশ্চিত করে ফেলে রিয়াল। জেসে রড্রিগেজ ডানদিক দিয়ে ডি বক্সে ঢুকে পড়া ডানিলোকে বল বাড়ান। ব্রাজিলের এই ডিফেন্ডার অনেকটা ফাঁকায় থেকে জোরালো শটে গোল করেন। চলমান মৌসুমেই সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে যোগ দেয়া ডানিলোর রিয়ালের হয়ে এটা প্রথম গোল। ম্যাচের ৩১ মিনিটে আবারও নাভাসের নৈপুণ্যে বেঁচে যায় রিয়াল। ডেনমার্কের ডিফেন্ডার ড্যানিয়েল ভ্যাসের ফ্রিকিক ডানদিকে লাফিয়ে দলকে বাঁচান তিনি। বিরতির পর ৫৭ মিনিটে বড় ধাক্কা খায় সেল্টা। বল পায়ে ছুটতে থাকা রিয়াল অধিনায়ক সার্জিও রামোসকে টেনে ধরে ফেলে দেয়ায় পাবলো এরনান্ডেসকে হলুদ কার্ড দেখান রেফারি। এটা নিয়ে রেফারির সঙ্গে তর্কে জড়ালে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড পেয়ে মাঠ ছাড়েন আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার গুস্টাভো কাবরাল। এই ঘটনায় সেল্টার আরও দুই জনকে হলুদ কার্ড দেখান রেফারি। একজন কম হয়ে যাওয়ায় সেল্টার হার অনেকটা নিশ্চিত হয়ে যায়। ম্যাচের ৬৮ মিনিটে ভাগ্য সহায় হলে ব্যবধান বাড়তে পারত রিয়ালের। কিন্তু ইস্কোর শট পোস্টে লেগে প্রতিহত হয়। ৭১ মিনিটে ব্যবধান কমানোর আরেকটি দারুণ সুযোগ নষ্ট হয় স্বাগতিকদের। নোলিতোর শট নাভাসকে পরাস্ত করলেও গোললাইনে দাঁড়ানো মার্সেলো বল ক্লিয়ার করেন। ৮৫ মিনিটে অবশ্য হতাশ হতে হয়নি নোলিতোকে। ডি বক্সের ঠিক বাইরে ডানদিকে খানিকটা আড়াআড়ি দৌড়ে সামনে থাকা এক জনকে ফাঁকি দিয়ে আচমকা জোরালো শটে বল জালে জড়ান স্প্যানিশ এই স্ট্রাইকার। এবারের লীগে এটা তার সপ্তম গোল। এই গোলে সেল্টার আরেকটি চমকের সম্ভাবনা জেগে ওঠে। শেষ পর্যন্ত অবশ্য তেমন কিছু হয়নি। শেষ মুহূর্তে পাল্টা আক্রমণে ডি বক্সের মধ্য থেকে মার্সেলোর কোনাকুনি শটে ব্যবধান বাড়িয়ে পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে রিয়াল। দারুণ এই জয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন রিয়াল মাদ্রিদ কোচ রাফায়েল বেনিতেজ।