মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

বিস্মিত ভেট্টোরি

প্রকাশিত : ২৪ অক্টোবর ২০১৫
  • ২০১০ সালে বাংলাদেশ সফরেও ফিক্সিং নিয়ে তৎকালীন অধিনায়ক ভেট্টোরির সঙ্গে কথা বলেন ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক্রিস কেয়ার্নসের ফিক্সিংয়ের সূত্র ক্রমশ ডালপালা বিস্তার করছে। এখন সেটি কেবল কেয়ার্নসের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। প্রসঙ্গক্রমে এমন কিছু নাম জড়িয়ে যা দেখে গোটা ক্রিকেটবিশ্বই বিস্মিত। লন্ডনের ক্রাউন কোর্টে কেয়ার্নস-কেসের শুনানি চলছে। একে একে তার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিচ্ছেন এক সময়ের সতীর্থ লু ভিনসেন্ট থেকে শুরু করে বর্তমান কিউই অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককুলামও। খেলোয়াড়ী জীবনে এই সকল সতীর্থের সঙ্গে নাকি প্রকাশ্যেই ফিক্সিং নিয়ে কথা বলতেন কেয়ার্নস! নতুন খবর, কেয়ার্নসের ফিক্সিংয়ের বিষয়ে ভেট্টোরির সঙ্গে আলাপ করেছিলেন ম্যাককুলাম। যেটি নিউজিল্যান্ড দলের ২০১০ সালের বাংলাদেশ সফরের সময়। যদিও কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ নিয়ে ওই আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল না। তারা কথা বলেছেন, বহুল আলোচিত ইন্ডিয়ান ক্রিকেট লীগ (আইসিএল) ও ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল) কেয়ার্নসের ফিক্সিং-কলঙ্ক নিয়ে।

বিতর্ক তৈরি হয়েছে সময়কাল নিয়ে। কেয়ার্নসের ফিক্সিংয়ের বিষয়ে জানার পরও তৎকালীন অধিনায়ক সেটি আইসিসির দুর্নীতি দমন কমিশনকে (আকসু) না জানিয়ে চেপে গেছেন বলে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। ভদ্রলোকের খেলা ক্রিকেটে ভদ্রতার প্রতীক ধরা হয় যাদের ভেট্টোরি তাদেরই অন্যতম। সেই তিনি কিভাবে এমনটা পারলেন? নিজে ফিক্সিংয়ে জড়াননি, কিন্তু জেনেও কেন চেপে গেছেন? এখন নতুন করে সেই প্রশ্নই উঠছে। এ নিয়ে ভেট্টোরির অবশ্য বিরক্তির শেষ নেই। বিশ্বকাপ খেলে অবসরে যাওয়া কিউই লিজেন্ড ক্ষুব্ধ ‘সত্যি বলতে আমি কেয়ার্নসে সম্মান করতাম। সে আমার বন্ধুই ছিল। রীতিমতো তাকে গুরু মানতাম। তাই তার স্খলনের কথা শুনে অবাক হয়েছিলাম। প্রচ- রাগও হয়েছিল। পুরো দল মিলে আমরা যে কষ্ট করেছি সেটিকে সে কলঙ্কিত করেছে। আর ব্রেন্ডন (ম্যাককুলাম) এমন পরিস্থিতিতে ফেলল... , যা আমি বিশ্বাস করতে পারছি না!’ বলেন ২০১০ সালের বাংলাদেশ সফরে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়কের দায়িত্বে থাকা ভেট্টোরি।

ম্যাককুলাম ওই ঘটনা আকসুর কাছে জানিয়েছিলেন ২০১১ সালে। তার এক বছর আগেই সেটি জানতে পেরেছিলেন ভেট্টোরি। নিজের স্বার্থেই নাকি তিনি সেটি চেপে গিয়েছিলেন। ‘যেহেতু অনৈতিক প্রস্তাবটি আমাকে করা হয়নি। তাই আমি রিপোর্ট করার প্রয়োজন মনে করিনি। মনেই হয়নি এটি আমার দায়িত্ব।’ আরও যোগ করেন ভেট্টোরি। তবে সময়টা ঠিক ২০০৮ না ২০১০ সেটি নাকি মনে করতে পারছেন না! কিউই অলরাউন্ডার কেয়ার্নসের বিরুদ্ধে অনেক আগেই ফিক্সিংয়ের অভিযোগ তোলেন সাবেক আইপিএল চেয়ারম্যান লোলিত মোদি। ২০১২ সালে উল্টো মোদির বিরুদ্ধে মানহানির মামলা ঠুকে দেন কেয়ার্নস। পরে ক্রাউন কোর্টের তদন্তে বেরিয়ে আসে কেয়ার্নস মোদির বিরুদ্ধে মিথ্যা সাক্ষী দিয়েছিলেন!

প্রকাশিত : ২৪ অক্টোবর ২০১৫

২৪/১০/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: