২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

হতাশ ক্রুইফ সন্তুষ্ট পল


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ঘরের মাটিতে খেলা। প্রতিপক্ষ ছিল অনেক শক্তিধর। তারপরও চেনা মঞ্চের দ্বৈরথে হারের ব্যবধানটা হতে পারত স্বল্পমাত্রার। কিন্তু ব্যবধান একটু বেশি হওয়াতেই এটা মনাতে কষ্ট হচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ লোডভিক ডি ক্রুইফের। নিজের দলের ফুটবলারদের এমন খেলায় রীতিমতো ক্ষুব্ধ ও হতাশ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন এই ডাচ্ কোচ। স্বাগতিক বাংলাদেশ প্রথম গোলটিই হজম করে নিজেদের রক্ষণের ভুলে। লেফট ব্যাক আতিকুর রহমান মিশু পেনাল্টি বক্সে বল বিপদমুক্ত করতে গিয়ে ‘অনিচ্ছাকৃত’ হ্যান্ডবল করে ফেলেন। তার এমন ভুলে রাগান্বিত ক্রুইফ, ‘আমি খুবই হতাশ ও ক্ষুব্ধ। বাংলাদেশ দল এখন যে পর্যায়ে পৌঁছেছে এমন অবস্থায় ডিফেন্ডার মিশুর ভুলটা কিছুতেই মেনে নেয়া যায় না।’ ক্রুইফ আরও বলেন, ‘আমরা অনেক সুযোগ পেয়েছি গোল করার। কিন্তু একটিও কাজে লাগাতে পারিনি। দ্বিতীয় গোলটার জন্য আমি ডিফেন্ডারদের ভুলটাকেই দায়ী করব। তারা যখন বলটা ক্লিয়ার করেছে সেটি যে দূরত্বে গিয়ে পড়েছে সেটি ১৭ গজের বেশি হবে না। বলটা যদি আরও ১০-১৫ গজ দূরে গিয়ে পড়ত তাহলে গোলটা হতো না। এমন পর্যায়ে ডিফেন্সের ভুল মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়!’ এই ম্যাচে ডিফেন্ডার মুন্না, মিশু, ইয়াসিন এরা কেউই ৯০ মিনিট দম ধরে রাখতে পারেননি বলে অভিমত ব্যক্ত করেন ক্রুইফ। দ্বিতীয়ার্ধেও মাঝামাঝিতেই তারা বেশ ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলেন। নাসিরকে তুলে নেয়ার পর সেটি আরও প্রবল হয়ে উঠে। ফলাফলÑ আরও দুই গোল হজম। জর্দানের চারটি গোলের কোনটিই খুব ভাল হয়েছে বলে মনে করেন না ক্রুইফ। এর জন্য শিষ্যদের নেতিবাচক মানসিকতাকেও দায়ী করেন তিনি, ‘তারা বড় ঘাসে ধীরগতির ফুটবল খেলতে চায়। ভাল ফুটবল খেলতে হলে এমন মানসিকতা পরিহার করতে হবে। অন্তত ৫ গোলের সুযোগ হাতছাড়া হয়েছে আমাদের। এ ম্যাচে এত বড় ব্যবধান মেনে নেয়া যায় না। ফলটা হতে পারত ড্র, ১-০ অথবা ২-০।’ উল্লেখ্য, গতকাল জর্দান ম্যাচ পর্যন্তই ক্রুইফের সঙ্গে চুক্তি ছিল বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফের)। জর্দানের বেলজিয়ান কোচ পল পুট বলেন, ‘আমার ছেলেদের খেলার মান এবং খেলার ফল নিয়ে আমি সন্তুষ্ট। বাংলাদেশও ভাল খেলার চেষ্টা করেছে। বল নিয়ন্ত্রণে আমরাই এগিয়ে ছিলাম। খেলেই জয় পেয়েছি। এই বড় জয়ে আমি সন্তষ্ট।’

শ্রীলঙ্কার অন্তর্বর্তী কোচ জয়ারতেœ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শ্রীলঙ্কা জাতীয় দলের অন্তর্বর্তী কোচ হিসেবে জেরম জয়ারতেœকে নিয়োগ দিয়েছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)। মারভান আতাপাত্তু পদত্যাগ করার চারদিনের মাথায় দায়িত্ব পেলেন প্রথমশ্রেণীর ম্যাচ খেলা সাবেক এই ক্রিকেটার। সুদর্শন চেহারার অধিকারী ৪৯ বছর বয়সী জয়ারতেœ ৯০-এর দশকে প্রথমশ্রেণীর ক্রিকেট খেলেছেন। ঘরের মাটিতে পাকিস্তান ও ভারতের কাছে টানা দুটি টেস্ট সিরিজে হারে শ্রীলঙ্কা। লঙ্কানদের ইতিহাসে নিজ মাটিতে টানা দুটি সিরিজ হারের দ্বিতীয় ঘটনা এটি। মুখে কিছু বলেননি, তবে মূলত ব্যর্থতা মেনে নিয়েই পদত্যাগ করেন প্রধান কোচ আতাপাত্তু। সহকারী ও অন্তর্বর্তী হিসেবে কাজ করা সাবেক এই তারকা গত বছর সেপ্টেম্বরে জাতীয় দলের প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগ পান। তার অধীনে বড় সাফল্য বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত টি২০ বিশ্বকাপের শিরোপ জয়। গত পাঁচ বছরে সপ্তম কোচ হিসেবে আতাপাত্তু দায়িত্ব নিয়েছিলেন। যে তালিকায় রয়েছে ট্রেভর বেইলিস, স্টুয়ার্ট ল, রুমেশ রতœায়েকে, জিওফ মার্শ ও গ্রাহাম ফোর্ডের মতো পরিচিত মুখ। আগামী মাসে ঘরের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলবে লঙ্কানরা। ওই সিরিজ দিয়েই অন্তর্বর্তী কোচ জয়ারতেœর যাত্রা শুরু হবে।

গুয়াম চমক চলছেই

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বকাপ বাছাই ফুটবলে এশিয়া অঞ্চলের খেলায় গুয়ামের চমক চলছেই। ‘ডি’ গ্রুপে দলটি এখন পর্যন্ত দ্বিতীয় স্থানে অবস্থান করছে। মঙ্গলবার বিকেলে ওমানের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে গুয়াম।

এর ফলে বাছাইপর্বে ঘরের মাঠে এখন পর্যন্ত অপরাজিত থাকল দলটি। ওমান আগের দুই ম্যাচেই জয় পেয়েছিল। এই প্রথমবার তাদের রুখে দিয়েছে চমক দেখাল গুয়াম। বর্তমানে তিন ম্যাচ শেষে ৭ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে ওমান। চার ম্যাচে সমান পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে গুয়াম। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগ পর্যন্ত এই গ্রুপে ৪ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে ছিল ইরান।

গুয়াম তাদের প্রথম ম্যাচে ১-০ গোলে হারায় তুর্কেমিনিস্তানকে। এর পরের ম্যাচে ভারতকে হারায় ২-১ গোলে। তৃতীয় ম্যাচে ইরানের মাঠে যেয়ে ৬ গোলে হেরে আসলেও চতুর্থ ম্যাচে রুখে দিয়েছে ওমানকে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: