১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

জামায়াতের দুই সাবেক এমপিসহ ১৩ জন রিমান্ডে


কোর্ট রিপোর্টার ॥ জামায়াতে ইসলামীর সাবেক দুই সংসদ সদস্যসহ ১৩ জনকে ৩ দিন করে পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করেছে ঢাকা সিএমএম আদালত।

ঢাকা মহানগর হাকিম লুৎফর রহমান শিশির মঙ্গলবার বিস্ফোরক আইনের একটি মামলায় শুনানি শেষে এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে ডিবি পুলিশের ইন্সপেক্টর মোহাম্মাদ হাফিজুর রহমান এ আসামিদের ঢাকা সিএমএম আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

রিমান্ডকৃতরা হলেন, জামায়াতের নায়েবে আমির ও রাজশাহী-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান, খুলনা-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ার, জামায়াতের সহযোগী সংগঠন শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশীদ, কাফরুল থানা জামায়াতের আমির তসলিম লস্কর, জাহাঙ্গীর আলম, আবুল কালাম আজাদ, মনসুর রহমান, জাকির হোসাইন, আশরাফুল আলম ইকবাল, এ বি এম নুরুল্লাহ ওরফে মোহাম্মদ উল্লাহ, আবুল হাসেম, মোহাম্মদ সাব্বির ও মজিবুর রহমান ভুঁইয়া।

পুলিশের দাবি পল্লবী থানাধীন মিরপুর ১০ নম্বর সড়কের ১১ নম্বর লাইনের একটি বাসার তৃতীয় তলায় থাকেন জামায়াত নেতা হারুন অর রশিদ। তার বাসায় জামায়াত নেতা-কর্মীদের একটি গোপন বৈঠকের খবর পেয়ে গত ৭ সেপ্টেম্বর সেখানে অভিযান চালিয়ে লম্বাকৃতির ২০টি বোমা, লাঠি, পাইপ, চাঁদা আদায়ের রসিদসহ ১৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়

পুলিশের দাবি, কোরবানির ঈদের আগে বেতন-বোনাস পরিশোধ করা হবে না, পোশাকশ্রমিকদের এলাকায় এমন গুজব ছড়িয়ে তাদের ক্ষেপিয়ে তুলে শ্রমিক অসস্তোষ তৈরি করে সেই অস্থিরতার মধ্যে নাশকতা করার উদ্দেশ্য ছিল তাদের।

সাবেক সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান ৪৫টি, মিয়া গোলাম পরওয়ার ১২টি ও তসলিম লস্কর নয়টি পুরনো নাশকতা মামলার আসামি। ২০১১ সালের ২৮ অক্টোবর মিরপুর থেকে মজিবুর রহমান গ্রেফতার হয়েছিলেন। এরপর চারবার জামিন পেয়ে আবার কারা ফটক থেকে গ্রেফতার হন তিনি। ২০১৩ সালের আগস্টে তিনি জামিনে বের হন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: