২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

কক্সবাজারে মাদক বিক্রিতে টমটম ॥ পুলিশের আঁতাত


স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখকে ফাঁকি দিয়ে কক্সবাজার শহরের হোটেল-মোটেল জোনে টমটম (ইজি বাইক) যোগে মাদক বিক্রি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই এলাকায় ১৫টিরও বেশি টমটম সর্বক্ষণিক ব্যবহার করা হচ্ছে এ কাজে। আর এ অপরাধের সর্বক্ষণিক চারটি মোটরসাইকেলে আট চিহ্নিত সন্ত্রাসী মাঠে সর্বক্ষণিক সহযোগিতায় রয়েছে। এদের সঙ্গে আঁতাত রয়েছে সৈকতসহ হোটেল-মোটেল জোন এলাকায় আইনশৃঙ্খলার দায়িত্বে নিয়োজিত কয়েক পুলিশ সদস্যের। ওইসব দুর্নীতিবাজ পুলিশ সদস্যরা অর্থনৈতিক লাভবান হওয়ার আশায় জঘন্য এ অপরাধে সহযোগিতা করে আসছে বলে অভিযোগ রয়েছে। অপরাধীরা প্রকাশ্যে মাদক বিক্রির পাশাপাশি ছিনতাই, খুন, ডাকাতি ও চাঁদাবাজিসহ নানা অপরাধ সংঘটিত করছে বলেও প্রাপ্ত অভিযোগে প্রকাশ। স্থানীয় একাধিক ব্যবসায়ী ও টমটম চালকরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে শহরের কলাতলী হোটেল-মোটেল জোন ও সৈকতের বিভিন্ন এলাকা অপরাধীদের স্বর্গরাজ্য হিসেবে পরিচিত হয়ে উঠছে। অপরাধী চক্রটি পর্যটক ও পুলিশ খুন, মেরিন ড্রাইভ সড়কসহ সৈকতের বিভিন্ন পয়েন্টে ছিনতাই, চাঁদাবাজি, ইয়াবাসহ মানবদেহে ক্ষতিকারক বিভিন্ন প্রকার মাদকের ব্যবসা থেকে শুরু করে এমন কোন অপরাধ নেই, যা করছে না।

অভিযোগে জানা যায়, ওই অপরাধীরা প্রায় প্রতিদিনই নির্ভয়ে এ অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। আর শহরের লাইট হাউস পাড়ায় নির্দিষ্ট একটি জায়গায় কৌশলে বিদেশী মদ, বিয়ার ও ইয়াবাসহ বিভিন্ন প্রকার মাদকদ্রব্য রাখা হয়। অর্ডার মতোই টমটম চালকরা গ্রাহকদের হাতে পৌঁছে দেয় মাদক। প্রতিদিন এ ব্যবসায় লাভের মোটা অঙ্কের টাকা ভাগবাটোয়ারা করছে ওই সিন্ডিকেট সদস্যরা। যার একটি অংশ দেয়া হয় শহর পুলিশ ফাঁড়ি থেকে বদলি হয়ে আসা সৈকত এলাকায় দায়িত্বে নিয়োজিত বিতর্কিত এক পুলিশ কর্মকর্তাকে।

সূত্রমতে, স্থানীয় রাশেল নামের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসীর নেতৃত্বে হোটেল-মোটেল জোন ছাড়াও সৈকতের ডায়াবেটিক হাসপাতাল পয়েন্ট থেকে হিমছড়ি ট্যুরিস্ট স্পট পর্যন্ত মোটর সাইকেলযোগে চষে বেড়ানো শহরের বাহারছড়ার চিহ্নিত ছিনতাইকারী জয়নাল, হেলাল, আকবরসহ ৮-১০ জনের সিন্ডিকেট। বিশেষ করে দিনের অধিকাংশ সময় সুগন্ধা পয়েন্টের সৈকতে গড়ে ওঠা ঝুঁপড়ি মার্কেটগুলোতে অবস্থান করেই তাদের অপরাধ কর্মকাণ্ডের প্রস্তুতি নেয় বলেও অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে।

সাতক্ষীরায় মাদক বিক্রেতা গুলিবিদ্ধ ॥ ২ পুলিশ আহত

স্টাফ রিপোর্টার, সাতক্ষীরা থেকে জানান, শ্যামনগরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে মনসুর আলি নামের এক ইয়াবা বিক্রেতা গুলিবিদ্ধ হয়েছে। তাকে পুলিশ পাহারায় সাতক্ষীরা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন দুই পুলিশ সদস্য। সোমবার শেষরাতে শ্যামনগরের ইছাকুড় ইটভাঁটির কাছে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। গুলিবিদ্ধ মনসুর আলি শ্যামনগর উপজেলার চ-িপুর বাদোঘাটা গ্রামের হামিদ শেখের ছেলে।

জানা গেছে, পুলিশের একটি দল অভিযান চালালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা তাদের ওপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। পুলিশ এ সময় আত্মরক্ষার জন্য চার পাঁচ রাউন্ড গুলি করে। তিনি জানান, এতে এক ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হয়। অন্যরা পালিয়ে যায়। এ সময় তার কাছ থেকে ২৮ পিস ইয়াবা ও গাঁজা আটক করা হয়। পুলিশ জানায়, মনসুর আলির বিরুদ্ধে শ্যামনগর থানায় মাদক সংক্রান্ত ১৮টি মামলা রয়েছে। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন, এসআই আবদুল কাদের ও কনস্টেবল হাসানুজ্জামান।