১৫ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বিএসইসির জনবল বাড়ছে


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) জনবল বাড়ছে। আরও ৩৪১ টি পদ সৃজনের প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছে জন প্রশাসন মন্ত্রণালয়। তবে এর জন্য অর্থমন্ত্রণালয়ের অর্থবিভাগ ও সচিব কমিটির অনুমোদন প্রয়োজন হবে। এ অনুমোদন পেলে পর্যায়ক্রমে প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ করতে পারবে বিএসইসি। মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বিএসইসি সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে সংস্থাটিতে জনবল রয়েছে ১৬৪জন। ১৬৪ জন জনবল দিয়ে সংস্থাটি এতোদিন ট্রেকহোল্ডার, মার্চেন্ট ব্যাংক, অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি, ক্রেডিট রেটিং এজেন্সি, কাস্টোডিয়ান সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান, ট্রাস্টি এবং তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোসহ প্রায় ১১৭০টি প্রতিষ্ঠানের দেখভাল করে আসছে। এর বাইরে তাদেরকে নতুন আইন, বিভিন্ন প্রজেক্টে কাজ করতে হয়। সংস্থাটির কাজের পরিধির তুলনায় জনবল খুবই নগণ্য।এ অবস্থায় বিএসইসিকে শক্তিশালী করে পুঁজিবাজারকে আরও স্বচ্ছ ও কার্যকর করতে জনবল বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

১৯৯৩ সালের ৪ জুন সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন নামে সংস্থাটির যাত্রা শুরু হয়। পরবর্তীতে ২০১২ সালে সংস্থাটির নামের পূর্বে যুক্ত হয় বাংলাদেশ শব্দটি। বর্তমানে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) নামে কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বিভিন্ন সময়ে সংস্থটিকে সরকার ১৬৪ জন জনবল দিয়েছে। নতুন ৩৪১ জন মিলে মোট জনবল হবে ৫০৫ জন। নতুন এই জনবল পেলে সংস্থাটির কাজের গতি আরও বাড়বে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

এ বিষয়ে সংস্থাটির একজন নীতিনির্ধারক বলেন, বর্তমানে বিএসইসিতে যে পরিমাণ লোকবল রয়েছে, কাজের তুলনায় অনেক কম। এটি একটি নিয়মিত প্রক্রিয়া। আমরা আশাবাদী আমাদের এ লোকবল আসলে কাজের গতি আরও বাড়বে। তিনি আরও বলেন, আমরা আমাদের পুঁজিবাজারকে একটি উচ্চতর জায়গায় নিয়ে যেতে চাই। ওই জায়গায় নিতে হলে আমাদের অনেক কাজ করতে হবে। নতুন লোকবল প্রয়োজন। নতুন লোকবল যুক্ত করার মাধ্যমে আমাদের স্বপ্ন আমরা পূরণ করা সম্ভব বলে জানান তিনি।

সূত্র মতে, বিএসইসির নতুন ৩৪১ জনবলের মধ্যে রয়েছে নির্বাহী পরিচালক পদে ২ জন। এর মধ্যে এমআইএসের জন্য ১ জন ও লিগ্যাল সার্ভিসে ১ জন। চিফ অ্যাকাউন্ট্যান্টে ১ জন।

পরিচালক পদে ১২ জন। এর মধ্যে পরিচালক সাধারণে ৯ জন, এমআইএসে ১ জন, লিগ্যাল সার্ভিসে ১ জন, জনসংযোগে ১ জন। অতিরিক্ত পরিচালক পদে ৩৬ জন। এর মধ্যে অতিরিক্ত পরিচালক সাধারণে ৩১ জন, এমআইএসে ২ জন, লিগ্যাল সার্ভিসে ২ জন, জনসংযোগে ১ জন।

যুগ্ম-পরিচালক পদে ৩৬ জন। এর মধ্যে যুগ্ম-পরিচালক সাধারণে ৩১ জন, এমআইএসে ২ জন, লিগ্যাল সার্ভিসে ২ জন, জনসংযোগে ১ জন। উপ-পরিচালক পদে ৫৭ জন। এর মধ্যে উপ-পরিচালক সাধারণে ৫০ জন, এমআইএসে ৪ জন, লিগ্যাল সার্ভিসে ২ জন, জনসংযোগে ১ জন। সহকারী পরিচালক পদে ৮৮ জন। এর মধ্যে সহকারী পরিচালক সাধারণে ৭৯ জন, এমআইএসে ৪ জন, লিগ্যাল সার্ভিসে ৪ জন, জনসংযোগে ১ জন। সিনিয়র লাইব্রেরিয়ান ১ জন, নির্বাহী প্রকৌশলীতে ১ জন, সহকারী প্রকৌশলীতে ২ জন। এর মধ্যে সহকারী প্রকৌশলী সিভিলে ১ জন ও ইলেকট্রিক্যালে ১ জন।

উপ-সহকারী প্রকৌশলীতে ৩ জন। এর মধ্যে উপ-সহকারী প্রকৌশলী সিভিলে ১ জন, মেকানিক্যালে ১ জন ও ইলেকট্রিক্যালে ১ জন। চিকিৎসা কর্মকর্তা ১ জন, মেডিক্যাল এসিস্ট্যান্টে ১ জন।

এছাড়া হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা ২ জন, সহকারী হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা ৪ জন, ব্যক্তিগত কর্মকর্তা ১৫ জন, জেনারেটর অপারেটর ২ জন, ইলেকট্রিশিয়ান ৩ জন, ডেসপাচ রাইডার ১ জন, অফিস সহায়ক ৫৫ জন, নিরাপত্তা প্রহরী ৮ জন, পরিচ্ছন্নতা কর্মী ৮ জন ও মালী ২ জন।