মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৯ আশ্বিন ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

গুরুতর অসুস্থ লাকী আখন্দ

প্রকাশিত : ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দেশ বরেণ্য সঙ্গীতশিল্পী লাকী আখন্দ গুরুতর অসুস্থ হয়ে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (পিজি) চিকিৎসাধীন। বর্তমানে তাকে সিসিইউতে রাখা হয়েছে। এখানে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. ওসমান এবং ডা. মেহশাকের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন তিনি। জানা গেছে, যতদ্রুত সম্ভব উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ভারতে অথবা ব্যাঙ্ককে নিয়ে যাওয়া হতে পারে। সোমবার লাকীর মেয়ে মাম মিনতি এ প্রসঙ্গে বলেন, গত ১ সেপ্টেম্বর বাবাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। তার ফুসফুসে পানি জমেছে। তাছাড়া তার কাশির অবস্থাও খুব নাজুক। এ কারণে চিকিৎসকরা দেশের বাইরে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। মিনতী আরও বলেন, শুধু শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা নয়, বাবার শরীরে আরও কিছু সমস্যা দেখা দিয়েছে। শুনেছি ছোটবেলা থেকেই বাবার এই শ্বাসকষ্টের সমস্যা। বয়স বাড়ার পরেও এই সমস্যা কমেনি বরং বেড়েছে। গত ১ সেপ্টেম্বর হঠাৎ করেই তাঁর এই শ্বাসকষ্টের সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করে। এরপর তাঁকে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। বাবার এখন আরও উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন। তাই সবার পরামর্শে দ্রুত তাঁকে দেশের বাইরে নিয়ে যাওয়ার সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। যত দ্রুত নিতে পারব ততই মঙ্গল। দেশবাসী সকলের কাছে বাবার দ্রুত সুস্থতার জন্য দোয়া চাই। প্রসঙ্গত, লাকী আখন্দ সঙ্গীত জীবনে অসংখ্য কালজয়ী গান সুর করেছেন, গেয়েছেনও। এ তালিকায় উল্লেখযোগ্য হ্যাপী আখন্দের ‘আবার এলো যে সন্ধ্যা’, কুমার বিশ্বজিতের ‘যেখানে সীমান্ত তোমার’, সামিনা চৌধুরীর ‘কবিতা পড়ার প্রহর এসেছে’, ফেরদৌস ওয়াহিদের ‘মামনিয়া’, ‘আগে যদি জানতাম’ ‘আজ এই বৃষ্টির কান্না দেখে’, ‘কে বাঁশি বাজায় রে’ নিজের গাওয়া ‘এই নীল মণিহার’, ‘আমায় ডেকো না’ প্রভৃতি। এ ছাড়া, তাঁর সুর করা গান গেয়ে দেশের অনেক শিল্পী জনপ্রিয় হয়েছেন। বাংলা গানের গুণী এই শিল্পীর জন্ম ১৯৬৫ সালের ১৮ জুন ঢাকার পাতলা খান লেন এলাকায়। দেশীয় সঙ্গীতের আরেক বরপুত্র হ্যাপী আখন্দ তার সহোদর।

প্রকাশিত : ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫

০৮/০৯/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: