২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

দাউদ ও হাফিজকে আটক করতে প্রয়োজনে অভিযান


দাউদ ইব্রাহিম ও হাফিজ সাঈদকে আটক করতে প্রয়োজনে অভিযান চালাতে পারে ভারত। রবিবার একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাতকারে এমনই মন্তব্য করলেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী রাজ্যবর্ধন রাঠৌর। খবর আনন্দবাজার পত্রিকা।

প্রশ্ন করা হয়েছিল ১৯৯৩ সালের মুম্বাই বিস্ফোরণে মূল অভিযুক্ত দাউদ ইব্রাহিমকে নিয়ে কী ভাবছে সরকার এবং পাক জঙ্গীগোষ্ঠীর মদদদাতা জামাত-উদ-দাওয়া প্রধান হাফিজ সাঈদকে নিয়েই বা কী ভাবছে সরকার। উত্তরে রাজ্যবর্ধন বলেন, ভারতের শত্রুরা যেখানেই থাকুক না কেন, ভারত তাদের ব্যাপারে হাত গুটিয়ে বসে আছে- এমনটা মনে করার কোন কারণ নেই। দাউদ ও হাফিজ দু’জনেরই পাকিস্তানে আশ্রয় নেয়ার প্রসঙ্গ উঠলে রাজ্যবর্ধন বলেন, এদের ওপর সব রকম দাওয়াই প্রয়োগ করা হবে। যখন হবে, খবর তো পাবেন। অভিযানের প্রসঙ্গ উঠলে সাবেক কর্নেল রাজ্যবর্ধন বলেন, অভিযান হতেই পারে, তবে তা নিয়ে প্রচার হবে না। অভিযানের পর খবর সামনে আসতেও পারে, না-ও আসতে পারে। সবই নির্ভর করছে সরকারের ওপর। ক্যামেরার সামনেই মন্ত্রী বুঝিয়ে দেন দু’রকম সেনা অভিযানের কথা। জানান, ছদ্ম অভিযান চালানো হলে সে কথা প্রকাশ্যে না-ও আসতে পারে, কিন্তু সরকারের নির্দেশে কোন বিশেষ অভিযান চালানো হলে তা হয়ত পরে সংবাদমাধ্যমকে জানানো হতে পারে। রাজ্যবর্ধনের কথায়, সবই নির্ভর করছে সরকারের ওপর।

মালয়েশিয়া উপকূলে নৌকাডুবিতে মৃত বেড়ে ৬১

মালয়েশিয়ার পশ্চিম উপকূলের মালাক্কা প্রণালীতে প্রায় ১০০ জন অবৈধ ইন্দোনেশীয় অভিবাসীবাহী কাঠের নৌকাডুবিতে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬১ জনে দাঁড়িয়েছে। নৌকাটি মালয়েশিয়ার সেলাঙ্গর প্রদেশের সাবাক বার্নাম থেকে ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রার দিকে যাওয়ার পথে এই দুর্ঘটনা ঘটে। খবর ওয়েবসাইটের

বৃহস্পতিবার ডুবে যাওয়া নৌকাটির হতভাগ্য এসব যাত্রীর লাশ সাগর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মালয়েশিয়ার উপকূলীয় সংস্থার তল্লাশি ও উদ্ধার বিভাগের পরিচালক রবার্ট তেহ্। অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই নৌকাটির মাত্র ২০ জন আরোহী রক্ষা পেয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। নিহতদের অধিকাংশই পুরুষ হলেও এদের মধ্যে এক ছোট শিশুও রয়েছে বলে জানিয়েছেন তেহ্। ‘আজ আর কোন লাশ খুঁজে পাওয়া না গেলে আগামীকাল তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযান বন্ধ করে দেয়া হতে পারে,’ বলেন তেহ্।