২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

হাঙ্গেরি সীমান্তে ‘বিশেষ ব্যবস্থা’ তুলে নেবে অস্ট্রিয়া


শরণার্থীর চাপ মোকাবেলায় সীমান্ত উন্মুক্ত করে হাঙ্গেরি থেকে পশ্চিম ইউরোপে যাওয়া সহজ করতে নেয়া ‘বিশেষ ব্যবস্থা’ তুলে নেয়ার পরিকল্পনা করেছে অস্ট্রিয়া। দেশটির চ্যান্সেলর ওয়ার্নার ফেইমান বলেছেন, ধাপে ধাপে জরুরী ব্যবস্থা তুলে নেয়া হবে। অস্ট্রিয়া ও জার্মানির সীমান্ত খুলে দেয়ার সিদ্ধান্তে হাঙ্গেরিতে আটকে পড়া ১২ হাজারেরও বেশি শরণার্থী শনিবার সকাল থেকে রবিবার রাতের মধ্যে জার্মানিতে পৌঁছতে সক্ষম হয়। খবর বিবিসি ও ইয়াহু নিউজের।

জার্মান চ্যান্সেলর এ্যাঞ্জেলা মেরকেলের সঙ্গে ‘নিবিড় আলোচনা’ ও হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর ওর্বানের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলার মাধ্যমে সিদ্ধান্তটি নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন ফেইমান। তিনি বলেন, আমরা সবসময়ই বলেছি, এটি একটি জরুরী পরিস্থিতি। এ পরিস্থিতিতে জরুরীভাবে মানবিকতার ভিত্তিতে কাজ করা দরকার ছিল। সঙ্কটজনক একটি পরিস্থিতিতে আমরা ১২ হাজারেরও বেশি লোককে সাহায্য করতে পেরেছি। এখন আমরা ধাপে ধাপে জরুরি ব্যবস্থা থেকে স্বাভাবিক ব্যবস্থায় ফিরে যাব, আইন নিশ্চিত করতে ও আইনের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকেই এটি করা হচ্ছে। সিরীয় শিশু আইলানের মৃতদেহ তুরস্কের সমুদ্র সৈকতে পড়ে থাকার ছবি প্রকাশ হওয়ার পর অস্ট্রিয়া তাদের সীমান্তে সাধারণ তল্লাশি বন্ধ করে দেয়। ইউরোপের রাজনৈতিক নেতারা যখন দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সবচেয়ে চরম অভিবাসী সঙ্কট মোকাবেলার উপায় নিয়ে ঐকমত্যে পৌঁছাতে হিমশিম খাচ্ছেন, তখন সেখানকার শরণার্থী সঙ্কটের চরম মানবিক দুর্দশার চিত্র চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেয় এই ছবি। অপরদিকে জার্মানি সতর্ক করে বলেছে, তাদের সহায়তা করার সদিচ্ছার উপর অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি করা উচিত হবে না। ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) ডাবলিন রুলস অনুযায়ী, বাইরে থেকে কেউ এসে ইউরোপে অভিবাসী হতে চাইলে প্রথমে ইইউভুক্ত যে দেশে তিনি নামবেন, সেখানেই নিবন্ধন করে তাকে আবেদন করতে হবে।