মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৯ আশ্বিন ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

মহাখালীর সাততলা বস্তিতে ৩০৪টি পানির সংযোগ দিয়েছে ঢাকা ওয়াসা

প্রকাশিত : ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫
  • এরপর স্যুয়ারেজ লাইন স্থাপন করা হবে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নগরীর মহাখালী সাততলা বস্তির বাসিন্দাদের মধ্যে সোমবার ৩০৪টি পানির সংযোগ দিয়েছে ঢাকা ওয়াসা। বস্তিবাসীদের বৈধ পানির সংযোগ ও স্যুয়ারেজ সেবা দেয়ার প্রকল্পের দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ বাস্তবায়ন হলো। এর আগে এই প্রকল্পের আওতায় কড়াইল বস্তিতে ৪৫৬টি বৈধ পানি সংযোগের মাধ্যমে ১৫ হাজার ৬৪০ পরিবারকে সেবা দেয়া হয়েছে। প্রকল্পের আওতায় ৩শ’ বস্তিতে ৯৭৭টি সংযোগের মাধ্যমে মোট ৬৩ হাজার ৬১৮টি পরিবারকে পানি সরবরাহ সেবা দেয়া হবে। পানি সংযোগের কাজ শেষ হওয়ার পরই স্যুয়ারেজ লাইন স্থাপনের কাজ শুরু করবে ওয়াসা।

সোমবার বাংলাদেশে ইউনিসেফের ওয়াটার, স্যানিটেশন ও হাইজিন বিভাগের প্রধান মি. চার্লি হেরাসিয়া সার্গসিয়েন ও ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী তাকসিম এ খান সাততলা বস্তিতে উপস্থিত থেকে পানির বৈধ সংযোগগুলো আনুষ্ঠানিভাবে বস্তিবাসীদের মধ্যে হস্তান্তর করেন।

দুস্থ স্বাস্থ্যকেন্দ্রের (ডিএসকে) নির্বাহী পরিচালক ড. দিবালোক সিংহের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানেÑ এনজিও ফোরাম ফর ড্রিংকিং ওয়াটার সাপ্লাই এ্যান্ড স্যানিটেশনের নির্বাহী পরিচালক এসএমএ রশিদ, আইপিএইচ স্কুল এ্যান্ড কলেজ গবর্নিং বডির সভাপতি একেএম জসিমউদ্দিন, স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ নাসির, সাততলা বস্তির কমিউনিটি প্রতিনিধি সেলিনা আলী ও নগর সেবা এবং নগর দরিদ্র বস্তিবাসী উন্নয়ন সংস্থার (এনডিবাস) প্রতিনিধিসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বলা হয়, ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে রাজধানীর সকল বস্তিকে বৈধ পানি সেবার আওতায় আনার লক্ষ্যে গৃহীত কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় মহাখালী সাততলা বস্তিতে পানির বৈধ সংযোগ দেয়া হয়েছে। ঢাকা ওয়াসা গত বছর দুস্থ স্বাস্থ্যকেন্দ্র (ডিএসকে), নগর সেবা, এনডিবাস এবং বাংলাদেশ এ্যাসোসিয়েশন ফর সোশ্যাল এ্যাডভান্সমেন্টের (বিএএসএ) সঙ্গে এক চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল। এই চুক্তির আওতায় ঢাকা ওয়াসা ইউনিসেফের আর্থিক সহযোগিতায় মহাখালীর সাততলা বস্তিতে প্রায় ৭ হাজার পরিবারকে পানির বৈধ সংযোগের আওতায় আনা হয়েছে। বাংলাদেশে ইউনিসেফের ওয়াটার, স্যানিটেশন ও হাইজিন বিভাগের প্রধান মি. চার্লি হেরাসিয়া সার্গসিয়েন প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, এটা আমার জন্য অত্যন্ত আনন্দের যে, প্রথম যখন এই বস্তিতে এসেছিলাম তখন মাত্র কিছু পরিবার বৈধ পানি সেবার আওতায় ছিল; আর আজ সাততলা বস্তিবাসীর প্রায় সবাই বৈধ পানি সংযোগের আওতায় এলো।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খান বলেন, ঢাকা ওয়াসা চলতি বছরের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে রাজধানীর সব বস্তিতে পানির বৈধ সংযোগ প্রদানে অঙ্গীকারাবদ্ধ। এ লক্ষ্যমাত্রা সবার সমন্বিত প্রচেষ্টায় বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। ঢাকা ওয়াসা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় বর্তমানে চাহিদার চেয়েও উদ্বৃত্ত পানি উৎপাদনে সক্ষম হয়েছে। এটি হচ্ছে ঢাকা ওয়াসার ইতিহাসে একটি মাইলফলক। এছাড়া ‘ঘুরে দাঁড়াও ঢাকা ওয়াসা’ কর্মসূচীর মাধ্যমে ঢাকা ওয়াসা বর্তমানে একটি পরিবেশবান্ধব, টেকসই এবং গণমুখী পানি ব্যবস্থাপনার দিকে এগোচ্ছে।

ওয়াসা সূত্র জানিয়েছে, ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে রাজধানীর সকল বস্তিতে বৈধ পানির সংযোগ প্রদানের লক্ষ্যে ঢাকা ওয়াসা অঙ্গীকারাবদ্ধ। এ জন্য প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে রাজধানীর বস্তিবাসীর জন্য পানি ও স্যুয়ারেজ সেবা দেয়ার কাজ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে কয়েকটি বস্তিতে বৈধ পানির সংযোগ ও স্যুয়ারেজ লাইন স্থাপনের কাজ শুরু করা হয়েছে। কড়াইল বস্তিতে ৪৫৬টি বৈধ পানির সংযোগ স্থাপন করা হয়েছে। এখন সেখানে সুয়্যারেজ লাইন স্থাপনের জন্য কাজ শুরু করা হবে। আগে এ সব বস্তিতে পানির সংযোগ ছিল অবৈধ। সংযোগগুলো বৈধ হওয়ায় সরকারের রাজস্বও আসছে। ঢাকা ওয়াসার এমডি বলেন, নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠীকে বৈধ পানি সরবরাহ সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে সহায়তার জন্য তিনি উন্নয়ন সহযোগী প্রতিষ্ঠানসমূহসহ স্থানীয় বিভিন্ন এনজিওকেও এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। বস্তিবাসীদের জন্য ঢাকা ওয়াসা যে উপায়ে কাজ করে যাচ্ছে তা তৃতীয় বিশ্বের জন্য একটি ‘রোল মডেল’ বলে তিনি উল্লেখ করেন।

প্রকাশিত : ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫

০৮/০৯/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: