২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

হল্যান্ডকে লজ্জা দিল তুরস্ক, ইতালির জয়


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগামী বছর ফ্রান্সে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে হল্যান্ডের না থাকাটা প্রায় নিশ্চিত! চলমান বাছাইপর্বে ব্যর্থতার মধ্যে থাকা ডাচ্রা আবারও হারের স্বাদ পেয়েছে। রবিবার রাতে ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে স্বাগতিক তুরস্কের কাছে ৩-০ গোলে হার মেনেছে অতিথি হল্যান্ড।

এই গ্রুপ থেকে দুই ম্যাচ হাতে রেখেই মূলপর্বে খেলা নিশ্চিত করেছে আইসল্যান্ড ও চেক প্রজাতন্ত্র। কাজাখস্তানের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে গ্রুপের শীর্ষস্থান ধরে রেখে ২০১৬ সালের মূলযজ্ঞে খেলা নিশ্চিত করেছে আইসল্যান্ড। চমক দেখিয়ে এবারই প্রথম তারা চূড়ান্ত পর্বে খেলতে যাচ্ছে। লাটভিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়ে ‘এ’ গ্রুপ থেকে চূড়ান্ত পর্বে নাম লিখিয়েছে চেক প্রজাতন্ত্রও। এই গ্রুপে আটটি করে ম্যাচ শেষে আইসল্যান্ড ও চেক প্রজাতন্ত্র দু’দলের ভা-ারেই জমা ১৯ পয়েন্ট করে। তবে গোল গড়ে শীর্ষে আইসল্যান্ড। নিয়ামানুযায়ী প্রতি গ্রুপ থেকে সেরা দুই দল মূলপর্বে জায়গা পাবে। তৃতীয় হওয়া দলেরও সুযোগ থাকবে মূলপর্বে খেলার। তবে তা নির্ভর করবে কিন্তুর উপর। সরাসরি সুযোগ তো হল্যান্ড হারিয়েছেই, এখন গ্রুপে তৃতীয় হওয়া নিয়েও শঙ্কা। কেনন বর্তমানে ‘এ’ গ্রুপে ১২ পয়েন্ট নিয়ে তিনে তুরস্ক, আর ১০ পয়েন্ট নিয়ে চারে ডাচ্রা। শেষ দুই ম্যাচের ফলাফলের উপর তাই নির্ভর করছে হল্যান্ডের ভাগ্য। তবে তাদের পারফর্মেন্সের যে ধারা তাতে বাদ পড়ার সম্ভাবনাই বেশি। অন্যদিকে ‘এইচ’ গ্রুপে আবারও কোন মতে জয় পেয়েছে ইতালি। ড্যানিয়েল ডি রোসির পেনাল্টি গোলে চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা ১-০ ব্যবধানে পরাজিত করে বুলগেরিয়াকে। গ্রুপের আরেক ম্যাচে নরওয়ে ২-০ গোলে ক্রোয়েশিয়াকে হারায়। মাল্টা ও আজারবাইজানের মধ্যকার ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র হয়। এই জয়ে ‘এইচ’ গ্রুপ থেকে আট ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে সবার শীর্ষে ইতালি। ফলে মূলপর্বে খেলা অনেকটাই নিশ্চিত আজ্জুরিদের। ১৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নরওয়ে। এক পয়েন্ট কম নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে ক্রোয়েশিয়া। এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে ইতালির জার্সি গায়ে ১৫০তম ম্যাচ খেলার গৌরব অর্জন করেছেন গোলরক্ষক ও অধিনায়ক জিয়ানলুইজি বুফন। পালের্মোর রেনসো বারবেরা স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে যায় স্বাগতিক ইতালি। পঞ্চম মিনিটে বুলগেরিয়ার ডিফেন্ডার ভ্যাসেলিন মিনেভ নিজেদের ডি বক্সে স্বাগতিক মিডফিল্ডার এ্যান্টানিও ক্যানড্রেভকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় ইতালি। পরের মিনিটে স্পট কিক থেকে গোল করেন ড্যানিয়েল ডি রোসি। প্রথমার্ধের বাকি সময়ের বেশিরভাগই ইতালির নিয়ন্ত্রণে ছিল খেলা। বেশ কয়েকটি ভাল আক্রমণও করে তারা, কিন্তু সাফল্য মেলেনি। মাঝে মধ্যে পাল্টা আক্রমণে যায় বুলগেরিয়াও, কিন্তু গোলের দেখা পায়নি তারাও।

বিরতির পর প্রথম মিনিটেই ব্যবধান বাড়ানোর ভাল সুযোগ পায় স্বাগতিকরা। কিন্তু ফাঁকায় দাঁড়িয়েও লক্ষ্যভেদে ব্যর্থ হন মিডফিল্ডার মার্কো পারোলো। ৫৫ মিনিটে একটি ফাউলকে কেন্দ্র করে কেন্দ্র করে গোলদাতা ডি রোসি ও বুলগেরিয়ার স্ট্রাইকার ইলিয়ান মিটসান্সকি বিবাদে জড়িয়ে পড়লে দু’জনকেই লালকার্ড দেখান রেফারি। একজন করে কম নিয়ে দু’দলই নিজেদের রক্ষণে বাড়তি মনোযোগ দেয়। মাঝে মধ্যে তারা আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে উঠলেও ম্যাচে আর কোন গোল হয়নি। নিজেদের মাটিতে আইসল্যান্ডের কাছে ১-০ গোলে হেরে ধূসর হয়ে গিয়েছিল হল্যান্ডের ইউরো বাছাইপর্ব পেরোনোর স্বপ্ন। পরের ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানো দূরের কথা, আবারও হারের স্বাদ পেয়ে দিশেহারা হয়ে গেছে ১৯৮৮ সালের শিরোপাজয়ীরা। পরশু তুরস্কের কাছে তিন গোলে হারের লজ্জায় ডুবেছে টোটাল ফুটবলের জনকরা। তুরস্কের আতাতুর্ক অলিম্পিক স্টেডিয়ামে প্রথমার্ধেই ২-০ গোলে এগিয়ে গিয়েছিল স্বাগতিকরা। ৮ ও ২৬ মিনিটে গোল দুটি করেন তুরস্কের দুই মিডফিল্ডার ওগুজান ওজাকুপ ও আরডা টুরান। ৮৫ মিনিটে ম্যাচের তৃতীয় গোলটি করেন বুরাক ইলমাজ। কাগজে-কলমে অবশ্য এখনরও শেষ হয়ে যায়নি হল্যান্ডের বাছাইপর্ব পেরোনোর আশা। কিন্তু সে জন্য নিজেদের পরবর্তী দুটি ম্যাচ তো জিততে হবেই, পাশাপাশি অনেক জটিল হিসাব-নিকাশের খাতাও খুলে বসতে হবে ডাচ্দের। আগামী বছর ফ্রান্সে অনুষ্ঠিত ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথমবারের মতো ২৪ দল অংশ নেয়ার সুযোগ পাবে। এই আসরে স্বাগতিক হিসেবে সরাসরি খেলবে ফ্রান্স। বাছাইপর্বের নয় গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন, রানার্সআপ ও সেরা তৃতীয় দল পাবে ফ্রান্সের টিকেট। বাকি চার জায়গার জন্য গ্রুপ পর্বে তৃতীয় হওয়া আট দল প্লে অফে মুখোমুখি হবে। এ কারণে গ্রুপে তৃতীয় স্থান দখল করতে পারলেও কিছুটা আশা থাকবে হল্যান্ডের। কিন্তু সেই সম্ভাবনাও এখন সংশয়ের মুখে।