২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সংসদে বিদ্যুত প্রতিমন্ত্রী জ্বালানি তেলের মূল্য পুনর্নির্ধারণ এখন সম্ভব নয়


সংসদ রিপোর্টার ॥ জ্বালানি তেলের মূল্য কমলেও দ্রব্যমূল্য, পরিবহন খাতসহ সকল সেক্টরে মূল্য হ্রাসের জন্য উল্লেখযোগ্য প্রভাব পড়তে দেখা যায় না। আর আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের মূল্য কমে গেলেও যেকোন মুহূর্তে তা বৃদ্ধি পেতে পারে। সেই বিবেচনায় তাৎক্ষণিকভাবে মূল্য পুনর্নির্ধারণ করা হয় না। দায় মেটাতেই জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে।

রবিবার স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারদলীয় সংসদ সদস্য এ কে এম রহমতউল্লাহর প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন বিদ্যুত ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, অতীতে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের মূল্য বৃদ্ধি পেলেও জনগণের কথা চিন্তা করে সরকার স্থানীয় বাজারে সে অনুপাতে মূল্য বৃদ্ধি করেনি, ফলে স্থানীয় বাজারে এর বিরূপ প্রভাব পড়েনি। সরকার প্রয়োজনীয় ভর্তুকি দিয়েই পরিস্থিতি মোকাবেলা করেছে। তিনি জানান, বর্তমানে জ্বালানি তেল খাতে বিপিসি তথা সরকারের প্রায় ২৯ হাজার কোটি টাকার দায় আছে। সে দায় মেটানোর বিষয়টিও বিবেচনায় রাখা বাঞ্ছনীয়।

তেলের আমদানির চেয়ে বিক্রয় মূল্য বেশি ॥ মোস্তাফিজুর রহমানের অপর এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানান, আন্তর্জাতিক বাজার হতে আমদানিকৃত জ্বালানি তেল দেশের অভ্যন্তরে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। সংসদে দেয়া তথ্যানুযায়ী, ডিজেল প্রতিলিটার ৫০ টাকা ৬৭ পয়সায় আমদানি করে বিক্রি হচ্ছে ৬৮ টাকায়, কেরোসিন প্রতিলিটার ৫১ টাকা ৪ পয়সায় কিনে বিক্রি হচ্ছে ৬৮ টাকায়, অকটেন ৬৮ টাকা ৬৯ পয়সায় কিনে বিক্রি করা হচ্ছে ৯৯ টাকায়, ফার্নেস অয়েল ৩৮ টাকা ৪৪ পয়সায় কিনে বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়, জেট এ-১ ৫০ টাকা ৬১ পয়সায় আমদানি করে বিক্রি হচ্ছে ৬৭ টাকায়।

৫ বছরে জ্বালানি তেলে ভর্তুকি ২০ হাজার কোটি টাকা ॥ সরকারী দলের সংসদ সদস্য এম আবদুল লতিফের অপর এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, বর্তমান সরকার জ্বালানি তেলে ভর্তুকি প্রদান করে থাকে। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ভর্তুকি বাবদ সরকার বিপিসিকে ৬০০ কোটি টাকা প্রদান করেছে। সরকারের ভর্তুকি বললেও বিপিসি ঋণ হিসেবে তা গ্রহণ করেছে। বর্তমান সরকার বিগত ৫ বছরে ১ লাখ ২০ হাজার ৭ কোটি ১১ টাকা ভর্তুকি দিয়েছে।