মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

সংক্ষিপ্ত সংবাদ

প্রকাশিত : ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫
  • টেস্ট ছাড়লেন ওয়াটসন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অস্ট্রেলিয়ার অবসরের মিছিলে যোগ দিলেন শেন ওয়াটসন। ইনজুরি-ফর্মহীনতায় আচমকাই টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন তারকা অলরাউন্ডার। এর আগে ইংল্যান্ড সফরে এ্যাশেজ ভরাডুবির দায় মাথায় নিয়ে অবসর নেন অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক। ওপেনার ক্রিস রজার্সও তাঁর সঙ্গী হন। ও হ্যাঁ, এ্যাশেজ শুরুর আগেই ‘বিদায়’ বলেন পেসার রায়ান হ্যারিস! রঙিন পোশাকের ওয়ানডে ও টি২০ ক্যারিয়ার দীর্ঘ করতেই সাদা পোশাকের ইতি টানলেন ৩৪ বছর বয়সী কুইন্সল্যান্ড প্রতিভা। একই সঙ্গে ইংলিশ কাউন্টি দল হ্যাম্পশায়ারে প্রত্যাবর্তনেরও সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। যার অর্থ, ওয়াটসনকে আসন্ন বাংলাদেশ সফরের টেস্ট দলে দেখা যাবে না। ‘সিদ্ধান্ত নেয়াটা সহজ ছিল না। গত কয়েকদিন অনেক ভেবেছি। ইনজুরি নিয়ে পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছি। মনে হচ্ছে, দীর্ঘ পরিসরের টেস্টকে বিদায় জানানোর সময় হয়েছে। আশা করি এই সিদ্ধান্তে ওয়ানডে ও টি২০ ক্যারিয়ারটা দীর্ঘ করতে পারব।’ টেস্ট ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে বলেন ওয়াটসন। তিনি আরও যোগ করেন, ‘এ্যাশেজ শেষ হওয়ার পর এ নিয়ে খুব ভাবছিলাম। ভাবছিলাম কোন্টা সঠিক। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে নিজের সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করেছি। এক দশক ধরে দেশের হয়ে খেলতে পেরে আমি গর্বিত।’ এক সময় মাইক্লে ক্লার্কের যোগ্য উত্তরসূরি ভাবা হতো তাঁকে। মাঝে সহ-অধিনায়কের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। কিন্তু ইনজুরি ও অনাকাক্সিক্ষত কিছু ঘটনা, ফর্মহীনতা সব এলোমেলো করে দেয়। এমনকি কিছুদিনের জন্য দল থেকেও বাদ পড়তে হয়েছিল। ২০০২Ñএর মার্চে ওয়ানডে অভিষেক হওয়া ওয়াটসন টেস্টে সুযোগ পান ২০০৫ সালে। দশ বছরের টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রতিভাবান এই অলরাউন্ডারকে অনেকরাই ইনজুরির সঙ্গে লড়াই করতে হয়েছে।

বিপিএলÑদায়মুক্ত বিসিবি ॥ ক্রিকেটারদের পাওনা পরিশোধ শুরু

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান আফজালুর রহমান সিনহা আগেই বলেছিলেন, ‘ঈদের আগেই বিপিএলে খেলা ক্রিকেটারদের পাওনা পরিশোধ করে দেয়া হবে।’ সেই অনুযায়ী কাজও হয়েছে। রবিবার থেকেই সেই কাজ শুরু হয়ে গেছে।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল-টি২০) দ্বিতীয় আসরে খেলেছেন, কিন্তু পারিশ্রমিক পুরো পাননি; এখন ক্রিকেটারদের পাওনা পরিশোধ করে দেয়া হচ্ছে। সেই তালিকাটাও দীর্ঘ। জানা গেছে, ৬৫ ক্রিকেটারের অর্থ পরিশোধ করে দেয়া হবে। এ পাওনা পরিশোধের কাজটি ওয়ানডে ও টি২০ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার হাতে চেক তুলে দিয়েই শুরু করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সেই সঙ্গে যেন দায় মুক্তও হলো বিসিবি।

দুই বছর পর বিপিএলের তৃতীয় আসর শুরু হবে ২৫ নবেম্বর। এর আগে বিপিএলের পাওনা পেয়ে ক্রিকেটাররাও যেন নির্ভার হলো। তবে বরাবরের মতো অসন্তুষ্ট থাকা ক্রিকেটারও আছেন। খেলোয়াড়দের পাওনা প্রসঙ্গে বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বললেন, ‘অবশ্যই আমাদেরও খারাপ লেগেছে। আজকেই (রবিবার) হয়ত দেয়া শেষ হয়ে যেতে পারে। কাকে কত দেয়া হবে এটার দায়িত্ব দুর্জয়কে দেয়া হয়েছিল। দুর্জয় বসে একটা হিসাব করেছে কাকে কত দিতে হবে। আমরা সেই অনুযায়ী পাওনা দিয়ে দেব। একবারেই পুরোটা দিয়ে দেয়া হচ্ছে।’ কত টাকা দিচ্ছেন? সিনহা জানালেন, ‘সব মিলিয়ে আনুমানিক ২ কোটি টাকা। যারা একদমই পায়নি বা যাদের বকেয়া ছিল তাদের দিয়ে দেয়া হচ্ছে। সত্যিকার অর্থে খেলোয়াড়দের চুক্তি ছিল ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে। ফ্র্যাঞ্চাইজি যেটা দিয়েছে আমাদের আমরা সেটা দিয়ে দেব।’ মুশফিক, তামিম, মাশরাফিকে চেক তুলে দেয়া হলো। এ নিয়ে আফজালুর রহমান সিনহা জানালেন, ‘ওরা তিনজন যেহেতু সিনিয়র। এভাবে সবাইকে দিতে গেলে অনেক সময় লাগবে। খেলোয়াড়রা আলাদা আলাদা যাবে এবং চেক নিয়ে আসবে।’ সঙ্গে বিদেশী খেলোয়াড়দের বকেয়ার কথা উঠতেই জানালেন, ‘মোটামুটি এখানে কোন ঝামেলা নেই। বিদেশী খেলোয়াড়ের কোন অভিযোগ নেই। একজন দুইজনের হয়ত থাকতে পারে সেটাও সমাধান হয়ে যাবে।’ দায়মুক্তি লাগার বিষয়টি বললেন সিনহা, ‘অবশ্যই এটা আমি প্রথমেই বলেছি দায়মুক্তি তো লাগবেই। আমাদের নিজেদের কাছেও খারাপ লাগছিল যে খেলোয়াড়রা খেলল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো তাদের টাকা দিল না। কিন্তু তাদের তো বঞ্চিত করা যায় না।’ ক্রিকেটারদের সঙ্গে কথা বলে একটা হিসেব ঠিক করার জন্য ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান নাইমুর রহমান দুর্জয়কে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। সেই অনুযায়ী কাজও হয়েছে। দুর্জয় এ কাজটি করে খুশিও। বলেছেন, ‘গবর্নিং কাউন্সিল থেকে আমাকে বলা, প্লেয়ারদের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ফ্র্যাঞ্চাইজির কাছে বা বোর্ডের কাছে যেটা পাওনা ছিল একটু মধ্যস্থতা করার জন্য। সেটা করা হয়েছে। এখানে কয়েকটা পার্ট ছিল। আমরা চেষ্টা করেছি, প্লেয়ারদের ভেতর যে চাপা ক্ষোভ ছিল সেটা যেন না থাকে। আবার পেমেন্টটা বোর্ড থেকে হচ্ছে। বোর্ডেরও যেন বেশি চাপ না পড়ে এবং কাদের কী রকম দরকার। টাকার প্রয়োজনীয়তাটা কোন্ প্লেয়ারের কী রকম, সেটা একটু বিবেচনায় ছিল। কারণ, এখানে সিনিয়র প্লেয়ার আছে। বিভিন্ন সোর্স থেকে তারা আয়টা করতে পেরেছে। অনেকেই যেটা পারে নাই। তাদের সঙ্গে একটু ব্যালান্স করতে হয়েছে। এখানে আমাদের বেশকিছু সিনিয়র প্লেয়ারস বিগ সেক্রিফাইস করেছে। যারা প্রিমিয়ার লীগ বা অন্য খেলা থেকে টাকা-পয়সা পাচ্ছে না সেটা আমরা ম্যানেজ করতে পেরেছি।’ সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘অনেকেরই যেমন পাওনা অনেক বেশি। সেখানে আমরা কম দিচ্ছি। তার স্যাটিসফেকশন লেভেলটা ওইরকম হবে না। পরে তারা আসতে আসতে বুঝতে চেষ্টা করেছে। টাকাটা যেভাবে এ্যারেঞ্জ করা হয়েছে, তা সহজ নয়। প্লেয়ারদের জীবনটাই এমন। যতদিন ফর্মে থাকবে, ততদিনই আয় হবে। তারপরে একেকজন একেকভাবে আয় করতেও পারে, নাও করতে পারে। এরপরও এই লেভেলের আয়টা হয় না।

মারে-ফেদেরারের জয়

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছেন রজার ফেদেরার ও এ্যান্ডি মারে। শনিবার দারুণ জয়েই বছরের শেষ গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্ট ইউএস ওপেনের চতুর্থ পর্বে জায়গা করে নিয়েছেন তারা। তৃতীয় রাউন্ডে সুইস তারকা ফেদেরার হারিয়েছেন জার্মানির ফিলিপ কোলশ্রেইবারকে। আর ব্রিটিশ তারকা মারের জয়টি ব্রাজিলের থমাজ বেলুচ্চির বিপক্ষে। এছাড়াও বছরের শেষ এই মেজর টুর্নামেন্টের শেষ ষোলোতে জায়গা করে নিয়েছেন সুইজারল্যান্ডের স্টানিসøাস ওয়ারিঙ্কা, জন ইসনার, টমাস বার্দিচ এবং জন ইসনার।

হাল্কের গোলে কোস্টারিকার বিরুদ্ধে ব্রাজিলের স্বস্তির জয়

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কাকা ও হাল্কের প্রত্যাবর্তন সুখকর হয়েছে। দীর্ঘদিন পর এই দুই তারকা ব্রাজিলের হয়ে মাঠে নামেন। শনিবার রাতে আন্তর্জাতিক প্রীতি ফুটবল ম্যাচে ব্রাজিল ১-০ গোলে পরাজিত করে কোস্টারিকাকে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সির রেডবুল এ্যারেনায় পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের হয়ে গোল করেন ২০১৪ বিশ্বকাপের পর দলে ফেরা হাল্ক। কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নেয়ার পর এই প্রথম মাঠে নামল সেলেসাওরা। তবে অধিনায়ক নেইমারকে একেবারে শেষ মুহূর্তে মাঠে নামান কোচ কার্লোস দুঙ্গা। যে কারণে ম্যাচ শেষে কোচের ওপর চটেছেন বার্সিলোনা তারকা। কোপা আমেরিকার শেষ আট থেকে ছিটকে পড়ার হতাশা তাড়া করে ফিরছে ব্রাজিলকে। সামনে ২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপের বাছাই পর্ব। এ কারণে পুরনো ব্যর্থতা ভুলে প্রতিযোগিতামূলক লড়াইয়ে নামার আগে জয়ের পথে ফেরাটা খুব জরুরী ছিল কার্লোস দুঙ্গার দলের। সেটা হলেও ব্রাজিলের জয়ে ছিল না স্বস্তির ছাপ। ম্যাচের দুদিন আগে চোট পাওয়ায় নেইমারের খেলা নিয়ে শঙ্কা ছিল। আশঙ্কা সত্যি করে বার্সিলোনার এই তারকা ফরোয়ার্ডকে ছাড়াই প্রথম একাদশ নামান দুঙ্গা। তাতে অবশ্য কোস্টারিকার রক্ষণে চাপ সৃষ্টি করতে সমস্যা হয়নি ব্রাজিলের। ম্যাচের দশম মিনিটে গোলও পেয়ে যায় তারা। বল পায়ে ডি বক্সে ঢুকে জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন হাল্ক। এরপর ম্যাচের প্রায় পুরোটা সময়ই একের পর এক আক্রমণ চালাতে থাকে ব্রাজিল। কিন্তু মিসের মহড়ার কারণে আর ব্যবধান বাড়াতে পারেনি পেলের দেশ। দারুণ পাল্টা আক্রমণ থেকে ম্যাচের ৫৬ মিনিটে নিজেদের প্রথম সুযোগেই বল জালে জড়ান কোস্টারিকার ব্রায়ান রুইস। কিন্তু রেফারির অফসাইডের সিদ্ধান্তে সমতায় ফেরা হয়নি তাদের। ম্যাচের ৬৭ মিনিটে মাঝমাঠে বলের নিয়ন্ত্রণ আরও বাড়াতে অভিজ্ঞ মিডফিল্ডার কাকাকে নামান কোচ দুঙ্গা। পাশাপাশি ফিলিপ কাউটিনহোকেও নামান তিনি। ফলে ব্রাাজিলের আক্রমণের ধারও বাড়ে। ব্যবধান বাড়াতে মরিয়া ব্রাজিল ৭৭ মিনিটে আরেকটি গোল পেয়ে যেতেও পারত। কিন্তু ডগলাস কোস্টা বল জালে জড়ালেও অফসাইডের অজুহাতে সেটা বাতিল করা হয়। কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালে প্যারাগুয়ের কাছে হেরে যাওয়ার পর এই প্রথম মাঠে নামে ব্রাজিল। কোচ দুঙ্গা যে দলকে একেবারে নতুন চেহারা দিতে চেয়েছেন, তা স্পষ্টই বোঝা যায় ব্রাজিলের বর্তমান দলটির দিকে তাকালে। কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালে যে দলটি খেলেছিল, সেই দলের মাত্র দুজন খেলোয়াড়কে দেখা গেছে কোস্টারিকার বিরুদ্ধে। দীর্ঘদিন পর দলে ফেরা কাকা হাল্কের বদলি হিসেবে মাঠে নেমে পুরনো ঝলক দেখান। ম্যাচ শেষে কাকা বলেন, খুব ভাল লাগছে। আট মাস পর দলে ফিরতে পারায় আমি গর্ববোধ করছি। এখানকার সমর্থকদের উষ্ণতা ছিল সত্যিই বিশেষ কিছু। আমার মনে হচ্ছে, স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদে আমি দলের জন্য অনেক অবদান রাখতে পারব। আমি দুইবার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে খেলেছি। আর দুঙ্গা যদি চান, তাহলে আমি দলকে অনেক কিছু দিতে পারি। এই ম্যাচে বদলি হিসেবে খেলাটা পছন্দ হয়নি নেইমারের। ম্যাচ শেষে নিজের অসন্তুষ্টি জানিয়েছেন ব্রাজিল অধিনায়ক। তিনি বলেন, বেঞ্চে বসে থাকায় আমি অভ্যস্ত নই। এতে আমি অভ্যস্ত হতেও চাই না। আমি খেলতে চাই। আমি সবসময়ই শুরুর একাদশে থাকার জন্য কাজ করি। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে তোলার পর থেকেই দলের অপরিহার্য অংশ হয়ে গেছেন নেইমার।

আন্তঃকলেজ রাগবি

আদমজী ক্যান্টঃ কলেজ

আবারও চ্যাম্পিয়ন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি আন্তঃকলেজ রাগবি প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজ। আর রানার্সআপ হয়েছে সরকারী বাঙলা কলেজ। রবিবার বিকেলে অনুষ্ঠিত ফাইনালে নির্ধারিত সময়ের খেলা ০৫-০৫ পয়েন্টে ড্র ছিল। পরবর্তীতে টাইব্রেকারে ০৮-০৬ পয়েন্টে জয় তুলে নেয় আদমজী। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ডক্টর আব্দুর রব। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য এসএম বখতিয়ার আলম।

প্রকাশিত : ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫

০৭/০৯/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: