২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ২ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

এবার ঘরের মাঠে বাংলাদেশের পরীক্ষা, প্রতিপক্ষ জর্দান


মোঃ মামুন রশীদ ॥ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খেলে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ ফুটবল দল। বড় ব্যবধানে পরাজিত হলেও প্রথমবার শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খেলে নিজেদের দুর্বলতা এবং শক্তিমত্তা সম্পর্কে জেনেছে বাংলাদেশ। এবার ঘরের মাটিতে আরেক শক্তিধর জর্দানের বিরুদ্ধে মাঠে নামবেন মামুনুল ইসলামরা। মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে সফরকারীদের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে বাংলাদেশ দল। এ ম্যাচে আগে দেশের ফুটবলামোদীরা ভাল ফল প্রত্যাশা করছেন। কারণ গত জুনে তাজিকিস্তানের বিরুদ্ধে ড্র করার স্মৃতি আছে। আর এশিয়ার অন্যান্য বড় দলের কাছে বাংলাদেশের মতো ছোট দলগুলো যেভাবে হারছে সে তুলনায় এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৫-০ ব্যবধানে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন অনেকে। তাই আত্মবিশ্বাস এবারের ম্যাচে অনেক উঁচুতেই থাকবে বাংলাদেশের। এবার সেটা জর্দানের বিরুদ্ধে মাঠে প্রয়োগের অপেক্ষা।

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রথমবার মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ ফুটবল দল। তাও আবার অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে। ওই মহাদেশেও প্রথমবার সফরে যায় বাংলাদেশের ফুটবলাররা। অপরিচিত পরিবেশ, অচেনা সবকিছুর মধ্যে মাত্র তিন দিন নিজেদের গুছিয়ে নেয়ার সুযোগ পেয়েছে দল। এর মধ্যেই পার্থের আবহাওয়া এবং পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে ওঠার প্রচেষ্টা চালাতে হয়েছে। এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন এবং চারবার বিশ্বকাপ খেলা অস্ট্রেলিয়া এমনকি ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে সর্বোচ্চ ১৪ নম্বর অবস্থান পর্যন্তও উঠেছিল। যদিও বাংলাদেশের মুখোমুখি হওয়ার আগে তাদের র‌্যাঙ্কিং ৬১ নম্বর ছিল, কিন্তু কাগজে-কলমে শক্তিমত্তায় বাংলাদেশের তুলনায় যোজন যোজন পার্থক্য তাদের। এর চেয়েও বড় কথা এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন তারা। আর সে কারণেই অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচ শুরুর পর কিছু বুঝে ওঠার আগেই মাত্র ২৯ মিনিটে ৪টি গোল হজম করে বসে সফরকারী বাংলাদেশ। কিন্তু পরে তাদের ঠেকিয়ে রাখতে পেরেছে দল। যদিও পুরোপুরি রক্ষণাত্মক মনোভাবেই খেলেছে বাংলাদেশ। কারণ আক্রমণে গিয়ে এশিয়া মহাদেশের চ্যাম্পিয়নদের সঙ্গে পেরে ওঠা যাবে না। দ্বিতীয়ার্ধে মাত্র একটা গোল হজম করে বাংলাদেশ। খেলা চলার পর অসিদের খেলার কৌশল বুঝে ওঠার পরই মূলত প্রতিরোধের উপায়টা বুঝে উঠতে পেরেছিল তারা। আর সে কারণেই অগোছালো প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধে মাত্র ১ গোল হজম করে। অস্ট্রেলিয়ার কাছে পরাজয়ের মধ্যেও তাই বড় প্রাপ্তি আছে বাংলাদেশের। এশিয়ার সেরা দলের বিরুদ্ধে খেলে আত্মবিশ্বাসটা বেড়েছে, নিজেদের চেয়ে শক্তিধর ও বড় দলের বিরুদ্ধে কিভাবে খেলতে হবে সেই ধারণা পেয়েছেন ফুটবলাররা। আর এসবই এখন অনুপ্রেরণা যোগাবে বাংলাদেশকে।

এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তাদেরই মাটিতে খেলে আসার পর এখন বেশ উজ্জীবিত বাংলাদেশ দল। এবার প্রতিপক্ষ শক্তিশালী জর্দান। তাদের বিরুদ্ধেও এখন পর্যন্ত কোন ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা নেই বাংলাদেশের। তবে একটা দিক থেকে তারাই থাকবে পিছিয়ে। কারণ বাংলাদেশের মাটিতে আগে কখনও খেলেনি তারা এবং পরিবেশটাও আলাদা। তাছাড়া ঘরের মাটিতে গত জুনে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম দুই ম্যাচে দারুণ খেলেছে বাংলাদেশ। কিরগিজস্তানের কাছে ৩-১ গোলে হেরে গেলেও তাজাকিস্তানের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে। সম্প্রতিই অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খেলে আসার আগে মালয়েশিয়া সফরে গিয়ে স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ ড্র করেছে। সবাই যেখানে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে চরম লজ্জাজনক পরাজয় আগেভাগে চিন্তা করে রেখেছিলেন তাদের বিরুদ্ধেও তুলনামূলকভাবে কম গোল হজম করেছে বাংলাদেশ। কারণ কিছুদিন আগে অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে অনেক দুর্বলতর দল আরব আমিরাতের কাছে মালয়েশিয়া হেরেছে ১০-০ গোলে। টানা দুই ম্যাচ প্রতিপক্ষের মাটিতে খেলার পর এখন দেশের মাটিতে খেলা। সে কারণে যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী ও অনুপ্রাণিত আছেন মামুনুলরা।

জর্দানের বর্তমান র‌্যাঙ্কিং ৯১। সেদিক থেকে অনেক পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ এতে কোন সন্দেহ নেই। কারণ আরও অবনমন ঘটা বাংলাদেশ বর্তমানে আছে ১৭৩ নম্বরে। তবে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ-জর্দান কোন ধরনের ফুটবল ম্যাচে মুখোমুখি হয়নি। এবারই প্রথম পরস্পরের মুখোমুখি হওয়ার কারণে উভয় দলই প্রতিপক্ষ সম্পর্কে তেমন কিছুই জানে না। এদিকে জর্দানের বিরুদ্ধে খেলার জন্য ভিন্ন কৌশল নিয়ে নামার পরিকল্পনা বাংলাদেশ দলের। আগের দুই ম্যাচে মালয়েশিয়া ও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে রক্ষণাত্মক মনোভাব নিয়ে নামলেও এবার আক্রমণাত্মক কৌশল নিয়ে নামার ছক কষছেন কোচ লোডভিক ডি ক্রুইফ।

জর্দান পরীক্ষার জন্য সেভাবেই প্রস্তুত হচ্ছে বাংলাদেশ দল। এখন পর্যন্ত রাশিয়া ২০১৮ বিশ্বকাপ ফুটবলের বাছাইয়ে এশিয়া অঞ্চলের ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি ৩ ম্যাচ খেলে সবার নিচে অবস্থান করছে পয়েন্ট টেবিলে। অবশ্য কিরগিজরাও তিন ম্যাচ খেলেছে। তাদের পয়েন্ট ৪। দুই ম্যাচ করে খেলে অস্ট্রেলিয়া ও জর্দান যথাক্রমে ৬ ও ৪ পয়েন্ট করে নিয়ে শীর্ষ দুটি জায়গা দখল করে আছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: